সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১১:৫৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে প্রকাশ্য দিবালোকে গ্রামীণ ফোনের ৫ লাখ টাকা ছিনতাই, জনতার ধাওয়ায় বাইকসহ আটক ১ জগন্নাথপুরে সড়ক রক্ষায় ১০ টন ওজনের অধিক যান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা মিরপুর ইউপি নির্বাচনে প্রার্থীদের মধ্যে প্রতিক বরাদ্দ, আনুষ্ঠানিকভাবে প্রচারণা প্রার্থীরা গরুর মাংস বিক্রি: ভারতে খ্রিস্টান যুবককে পিটিয়ে হত্যা জগন্নাথপুরের ব‌্যবসায়ী ফেরদৌস মিয়া খুনের ঘটনায় সানিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড সুনামগঞ্জে হত্যা মামলায় একজনের মৃত্যুদণ্ড, তিনজনের যাবজ্জীবন ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের ওপর ছাত্রলীগের ‘হামলা’ আহত ২৫ অনেকেই গা ঢাকা দিয়েছে, অনেককেই নজরদাড়িতে রাখা হয়েছে: কাদের বিরিয়ানি খেলে শিক্ষকসহ ৪০ জন অসুস্থ আল কোরআন অনুসরণের আহ্বান রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিনের!

হাওরের বাঁধের কাজে অভিযুক্ত ঠিকাদারেরা আ.লীগ ও বিএনপির নেতা-কর্মী

Reporter Name
  • Update Time : মঙ্গলবার, ৪ জুলাই, ২০১৭
  • ৬৬ Time View

খলিল রহমান
সুনামগঞ্জে হাওরের ফসল রক্ষা বাঁধের কাজের ঠিকাদারদের অনেকেই ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ এবং বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) পাঁচ প্রকৌশলীসহ ১৫ কর্মকর্তা এবং বাঁধের কাজের ৪৬ জন ঠিকাদারের বিরুদ্ধে মামলা করেছে।

মামলায় পাউবো কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহার, দুর্নীতি, ঠিকাদারদের সঙ্গে অবৈধ যোগসাজশের অভিযোগ আনা হয়েছে। আর ঠিকাদারদের বিরুদ্ধে ঠিক সময়ে ফসল রক্ষা বাঁধের কাজ শেষ না করে কৃষকদের ক্ষতিসাধনের অভিযোগ করা হয়েছে।
দুর্নীতিবিরোধী সংগঠন ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) নির্বাহী পরিচালক ইফতেখারুজ্জামান বলেন, ‘রাজনীতির সঙ্গে ব্যবসায় এক হয়ে যাওয়ার ফল এটি। এ চিত্র আমাদের অসুস্থ রাজনীতির বহিঃপ্রকাশ। ক্ষমতাসীন এবং বিরোধী দলের একত্রে এসব কাজে জড়িয়ে যাওয়া প্রমাণ করে ভাগ-বাঁটোয়ারার প্রশ্নে আদর্শের কোনো বিষয় নেই।’
দুদকের মামলার বাদী হলেন সংস্থাটির প্রধান কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. ফারুক আহমেদ। মামলার দায়েরের পরই দুদক পাউবোর সুনামগঞ্জ কার্যালয়ের সাবেক নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আফছার উদ্দীন ও ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স ইব্রাহিম ট্রেডার্সের স্বত্বাধিকারী মো. বাচ্চু মিয়াকে ঢাকা থেকে গ্রেপ্তার করে।
এজাহারে উল্লেখ আছে, ২০১৫-২০১৬ অর্থবছরের ৮৪টি অসমাপ্ত কাজ নতুনভাবে দরপত্র আহ্বান ছাড়াই এ বছর আগের ঠিকাদারদের দেওয়া হয়েছে। এ বছর ৭৬টি কাজের মধ্যে নয়টি বাঁধের কোনো কাজই হয়নি। বাকি কাজ আংশিক করার মাধ্যমে সরকারি টাকা আত্মসাতের সুযোগ সৃষ্টি করা হয়েছে। এ কারণে কৃষকের ক্ষতি হয়েছে।
আসামির তালিকায় পাউবোর ১৫ জন ছাড়া সুনামগঞ্জের ১৩ জন, ঢাকার ৯ জন, সিলেটের ৬ জন, কুমিল্লার ৩ জন, চট্টগ্রামের ২ জন, মৌলভীবাজারের ২ জন, সাতক্ষীরার ২ জন, টাঙ্গাইলের একজন, ফরিদপুরের একজন, পটুয়াখালীর একজন, খুলনার একজন, ময়মনসিংহের একজন, হবিগঞ্জের একজন, রাজশাহীর একজন, কুষ্টিয়ার একজন, চুয়াডাঙ্গার একজন ঠিকাদার রয়েছেন।
মামলায় সুনামগঞ্জ জেলা শিল্প ও বণিক সমিতির সভাপতি এবং জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক খায়রুল হুদা চপলকে আসামি করা হয়েছে। তাঁর ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের নাম মেসার্স নূর ট্রেডিং। এবার ওই প্রতিষ্ঠান কাজ পায় তিনটি। গতবার পেয়েছিল দুটি।
সুনামগঞ্জের আরেক ঠিকাদার জেলা শিল্প ও বণিক সমিতির সহসভাপতি সজীব রঞ্জন দাশ এবার পেয়েছিলেন সাতটি হাওরে নয়টি বাঁধের কাজ। এর মধ্যে দুটি বাঁধের কোনো কাজ তিনি করেননি। গতবার তিনি পেয়েছিলেন তিনটি বাঁধের কাজ। সজীব রঞ্জন দাস আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত।
সুনামগঞ্জের আরও দুই ঠিকাদার কাজী নাসিম উদ্দিন ও মো. সোয়েব আহমদ বিএনপির রাজনীতি করেন। জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক পদে আছেন তাঁরা। কাজী নাসিম উদ্দিন এবার তিনটি, গত বছর একটি বাঁধের কাজ পেয়েছিলেন। সোয়েব আহমদ এবার পেয়েছেন চারটি বাঁধের কাজ। গত বছর তিনি পেয়েছিলেন একটির কাজ।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, অভিযুক্ত ঠিকাদারদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি কাজ পাওয়া খন্দকার শাহীন আহমদের বাড়ি ফরিদপুরের গোয়ালচামট এলাকার। তিনি এবার আটটি হাওরের ফসল রক্ষায় নয়টি বাঁধ নির্মাণের কাজ পেয়েছিলেন। কিন্তু পাঁচটি বাঁধে কোনো কাজ করেননি। এই ঠিকাদার গত বছরে কাজ পেয়েছিলেন পাঁচটি বাঁধের। কিন্তু কোনোটির কাজই শেষ করেননি। খন্দকার শাহীদ আহমদ একসময় বিএনপির করতেন, এখন তিনি আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত।
আরেক আলোচিত ঠিকাদার গুডম্যান এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী হলেন টাঙ্গাইল জেলার আকুর-টাকুর পাড়ার মো. আফজালুর রহমান। তিনি টাঙ্গাইলের বিএনপি নেতা ও সাবেক বনমন্ত্রী শাহজাহান সিরাজের ভাগনে। এলাকায় একজন বড় ঠিকাদার ও ব্যবসায়ী হিসেবে পরিচিত। এই ঠিকাদার এবার তাঁর প্রতিষ্ঠানের নামে তিনটি হাওরে সাত বাঁধের কাজ পেয়েছিলেন। এর মধ্যে তিনি একটি বাঁধের কোনো কাজ করেননি। গত বছর তিনি একইভাবে সাত বাঁধের কাজ পেয়ে কোনো কাজই পুরোপুরি শেষ করেননি। অভিযোগ আছে, গ্রেপ্তার হওয়া পাউবোর প্রকৌশলী মো. আফছার উদ্দীন নিজে ওই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন।
এ বিষয়ে জানার জন্য আফজালুর রহমানের মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করলেও তিনি ফোন ধরেননি।
দুদকের মামলায় অভিযুক্ত সুনামগঞ্জের মেসার্স মালতী এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকার বিপ্রেশ তালুকদার বাপ্পী জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য। তিনি এবার পেয়েছিলেন তিনটি বাঁধের কাজ।
তবে বাঁধের কাজের অনিয়মের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ঠিকাদার খন্দকার শাহীন আহমদ, সজীব রঞ্জন দাস ও খায়রুল হুদা চপল।
পাউবো সূত্রে জানা গেছে, হাওরের ফসল রক্ষায় সুনামগঞ্জে পাউবো ১ হাজার ৫০০ কিলোমিটার বেড়িবাঁধ প্রতিবছর উন্নয়ন, সংস্কার ও রক্ষণাবেক্ষণ করে। ঠিকাদার ও স্থানীয়ভাবে গঠিত প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির (পিআইসি) মাধ্যমে এ কাজ হয়। পিআইসি করে বাঁধের সংস্কার আর ঠিকাদার নতুন বাঁধ নির্মাণ করে। বাঁধের কাজের সময়সীমা থাকে ১৫ ডিসেম্বর থেকে ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। কিন্তু কখনোই কাজ সময়মতো শুরু এবং শেষ হয় না। ঠিকাদারদের বাঁধের কাজে গত বছর এবং এ বছরে বরাদ্দ ছিল ৮০ কোটি ৯৪ লাখ টাকা। গত ২৭ মার্চ থেকে সুনামগঞ্জে প্রবল বর্ষণ ও উজান থেকে পাহাড়ি ঢল নামতে থাকে। এরপর একে একে ফসল রক্ষা বাঁধ ভেঙে তলিয়ে যায় হাওরের কাঁচা বোরো ধান।
অভিযোগ উঠেছে, দলীয় নাম ভাঙিয়েই এসব নেতা-কর্মী ঠিকাদারির কাজ বাগিয়ে নিয়েছেন। তবে সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মতিউর রহমান এ অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘দলীয় কোনো প্রভাবে কাজ পাননি কেউ। ঠিকাদারেরা নিজ দায়িত্বে কাজ করেছেন। আমরা পাউবো, ঠিকাদারসহ যারা অনিয়মে যুক্ত, তাদের শাস্তি সব সময় চেয়েছি।’
জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম বলেন, ‘আমাদের দলের কেউ বাঁধের কাজ করে থাকলে নিয়মতান্ত্রিকভাবেই পেয়েছেন।’
‘হাওর বাঁচাও সুনামগঞ্জ বাঁচাও আন্দোলনের আহ্বায়ক মুক্তিযোদ্ধা বজলুল মজিদ চৌধুরী বলেছেন, ‘আমরা আশা করি, যাদের কারণে সুনামগঞ্জের কয়েক লাখ কৃষক আজ নিঃস্ব হয়েছেন, তাদের অবশ্যই বিচার হবে।’
জেলা প্রশাসনের হিসাব অনুয়ায়ী, সুনামগঞ্জে এবার ১৫৪টি হাওরে ২ লাখ ২৩ হাজার ৮২ হেক্টর জমিতে বোরো ধানে আবাদ হয়েছিল। এর মধ্যে ১ লাখ ৬৬ হাজার ৬১২ হেক্টর জমির ধান তলিয়ে গেছে। এতে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ৩ লাখ ২৫ হাজার ৯৯০ কৃষক পরিবার।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24