1. forarup@gmail.com : jagannthpur25 :
  2. jpur24@gmail.com : Jagannathpur 24 : Jagannathpur 24
  3. ali.jagannathpur@gmail.com : Ali Ahmed : Ali Ahmed
  4. amit.prothomalo@gmail.com : Amit Deb : Amit Deb
জগন্নাথপুরের সেই সমতেরা সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলেন - জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর
বুধবার, ০৫ অক্টোবর ২০২২, ০৫:৩৪ অপরাহ্ন

জগন্নাথপুরের সেই সমতেরা সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলেন

  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ২৫ আগস্ট, ২০২২
  • ৪২৩ Time View

নিজস্ব প্রতিবেদক – সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলায় সমতেরা বেগম (৪০) নামের মানসিক ভারসাম্যহীন নারী সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। মঙ্গলবার রাতে তিনি নবীগঞ্জ উপজেলার বাউসা গ্রামে গিয়ে আত্বীয় স্বজন সবাই কে দেখে আনন্দে মেতে উঠেন।অসুস্থ অবস্থায় আত্বীয় স্বজনরা তাঁর পাশে না থাকলে সুস্থ সমতেরা কে পেয়ে তাঁরাও খুশি।


স্হানীয়রা জানান, তিন বছর আগে নবীগঞ্জ উপজেলার সীমান্তবর্তী জগন্নাথপুর উপজেলার রানীগঞ্জ বাজারে হঠাৎ করে এক মানসিক ভারসাম্যহীন নারীর চলাফেরা দেখতে পান ব্যবসায়ীরা।এরপর থেকে ওই নারী রানীগঞ্জ বাজারে অবস্হিত রানীগঞ্জ উচ্চবিদ্যালয় ও রানীগঞ্জ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ফটকে বসবাস শুরু করেন।করোনাকালীন ছুটি শেষে গত ৩ মার্চ বিদ্যালয় দুটি খোলার পর তাঁকে সেখানে অসংলগ্ন অবস্থায় চলাফেরা করতে দেখা যায়। তাঁর উলঙ্গ হয়ে চলাফেরা ও চিৎকারে বিদ্যালয় দুটির শিক্ষার পরিবেশ বিঘ্নিত হয়। এসময় রানীগঞ্জ উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবদুস সামাদ ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিলে জানতে পারেন ওই নারীর নাম সমতেরা বেগম। তিনি হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার বাউসা গ্রামের মৃত আবদুল্লাহর মেয়ে। তবে ওই ঠিকানায় যোগাযোগ করা হলে তাঁর আত্বীয় স্বজনরা সমতেরার দায়িত্ব নিতে চাননি। পরে প্রধান শিক্ষক ওই নারীর চিকিৎসার জন্য সহায়তা চেয়ে ফেসবুকে আবেদন জানান। এ বিষয়ে ২৭ এপ্রিল অসুস্থ নারীর পাশে তাঁরা সবাই শিরোনামে গণমাধ্যম প্রতিবেদন প্রকাশিত হলে অনেকেই চিকিৎসা সহায়তায় এগিয়ে আসেন। ১ লাখ ২৫ হাজার টাকার তহবিল গঠন করে শুরু হয় চিকিৎসা। সিলেটের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করে সমতেরা বেগম এর চিকিৎসা শুরু হয়। এক মাস চিকিৎসা শেষে কিছুটা স্বাভাবিক হলে তাকে রানীগঞ্জ ইউনিয়নের রানীনগর গ্রামের হোটেল ব্যবসায়ী রশিদ মিয়ার বাড়িতে রেখে পারিবারিক যত্নে সুস্থ করে তোলা হয়। সেখান থেকে মঙ্গলবার তিনি নিজ বাড়িতে ফিরে যান।
রানীগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবদুস সামাদ জানান, অযত্ন অবহেলায় মানসিক ভারসাম্যহীন তার চরম পর্যায়ে চলে গিয়েছিলেন সমতেরা। সেখান থেকে মানুষের ভালোবাসায় চিকিৎসা পেয়ে সে সুস্থ হয়ে উঠেছে। তাঁর সুস্থতায় আমি আনন্দিত। তিনি বলেন, গত কয়েক দিন ধরে সমতেরা অসুস্হ মাকে দেখতে বাড়ি যাওয়ার ইচ্ছের কথা বলছিল আমাদের কে পথ দেখিয়ে সে তাঁর বাড়িতে নিয়ে গেছে। সে এখন অনেকটা স্বাভাবিক।সুস্থ সমতেরা কে পেয়ে আত্বীয় স্বজনরা খুশি হয়েছেন।
সমতেরা বেগম এর বোন রংমালা বেগম বলেন, আর্থিক অভাব অনটনের কারণে বোনের খোঁজ ও চিকিৎসা করাতে পারিনি।সুস্থ অবস্থায় বোন কে পেয়ে খুব ভালো লাগছে। যারা তাঁর বোন কে সুস্থ করে তাদের কাছে ফিরিয়ে দিয়েছেন তাদের কাছে তিনি কৃতজ্ঞতা জানান। বাউসা গ্রামে সমতেরা বেগমের বৃদ্ধ মা, বিবাহিত তিন বোন ও ইরান প্রবাসী দুই ভাইয়ের স্ত্রী সন্তান রয়েছেন। তাদের সাথে এখন তিনি থাকবেন।

শেয়ার করুন

Comments are closed.

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২১
Design & Developed By ThemesBazar.Com
%d bloggers like this: