শনিবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৯, ০৭:৫০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে সমাপনী পরীক্ষার্থীদের সংবর্ধনা জগন্নাথপুরের সাম্রাটে সমাপনী পরীক্ষার্থীদের সংবর্ধনা জগন্নাথপুর পৌরসভার মেয়র মনাফকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকায় প্রেরণ জগন্নাথপুরের চিতুলিয়া গ্রামে আগুন,দুইটি ঘরসহ পুড়ল ১২ লাখ টাকার মালামাল জগন্নাথপুরে এখনও সম্পন্ন হয়নি আ.লীগের ওয়ার্ড ভিত্তিত্ব কমিটি প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষা শুরু ১৭ নভেম্বর জগন্নাথপুরে সংবাদ প্রকাশের পর অবশেষে সুযোগ পেল ১৭ পরীক্ষার্থী বন্ধ হলো ফেসবুকের সাড়ে পাঁচ’শ কোটি ভুয়া অ্যাকাউন্ট রংপুর এক্সপ্রেসে আগুন, চারটি বগি লাইনচ্যুত জেলা মহিলা আ.লীগ নেত্রী রফিকা চৌধুরীর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে জগন্নাথপুরে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

জগন্নাথপুরের যে সড়কে বছরজুড়েই দুর্ভোগ

বিশেষ প্রতিনিধি ::
  • Update Time : শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
  • ৬৩৬ Time View

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরের রানীগঞ্জ-হলিকোণা সড়কটি সংস্কারের অভাবে বছরজুড়ে ভোগান্তির শিকার হচ্ছে কয়েকটি গ্রামের জনসাধারণ।
স্থানীয় এলাকাবাসি জানান, অনেক বছর পূর্বে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল (এলজিইডি) অর্থায়নে প্রায় ৭ কিলোমিটার লম্বা রানীগঞ্জ-হলিকোনা সড়ক নির্মাণ করা হয়। এরমধ্যে ১প্রায় এক কিলোমিটার সড়ক পাকাকরণ করা হয়েছে।  এ সড়ক দিয়ে উপজেলার চিলাউড়া-হলদিপুর ইউনিয়নের ইসমাইল চক, সালদিকা,
স্বজনশ্রী, বাউধরন, খাগাউড়া,গোপড়াপুর ও পাশ্ববর্তী দিরাই উপজেলার হাতিয়া,নাচনি, সুরইয়াপাড় গ্রামের জনসাধারণ প্রতিনিয়ত জগন্নাথপুর উপজেলা সদর ও রানীগঞ্জ ইউনিয়নের সঙ্গে যাতায়াত করে আসছেন। দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে সড়কটি সংস্কারহীন হয়ে পড়ায় সারাবছরই জনদুর্ভোগ পোহাতে হয়। সম্প্রতিকালে বাউধরন এলাকার শাহ আলম নামে এক যুবক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তার ফেসবুক আইডিতে তিনটি ছবি পোষ্ট করে লিখেন উপজেলার সঙ্গে সংযোগ রক্ষাকারী একমাত্র যাতায়াতকারী সড়কটি ছয় ঋতুর দেশে তিন রূপ ধারন করে। ধুলোবালি, হাঁটু সমান কাঁদামাটি আর জোয়ারের পানিতে সড়কে অর্বণীয় কষ্ঠ আর যন্ত্রনা সহ্য করতে হয় লোকজনকে।

খাড়াউড়া গ্রামের আব্দুল মজিদ বলেন, রানীগঞ্জ-হলিকোণা সড়ক দিয়ে আমাদের
ইউনিয়নের ছয় থেকে সাত গ্রামের লোকজনের পাশাপাশি সীমান্তবর্তী দিরাই উপজেলার
কয়েকটি গ্রামের মানুষ জগন্নাথপুর উপজেলা সদরের সঙ্গে প্রতিনিয়ত যাতায়াত করছেন। সড়কে কয়েকবছর ধরে কোন সংস্কার কাজ না হওয়ায় সীমাহীন ভোগান্তির শিকার হচ্ছে আমরা। বার বার কর্তৃপক্ষের নিকট সংস্কারের দাবী  জানিয়ে আসলেও দাবীটি উপেক্ষিতই রয়েছে।
বাউধরণ গ্রামের কবির আহমদ বলেন, বর্ষা মৌসুমে সড়কের কিছু অংশ পানিতে
তলিয়ে যায়। আবার হেমন্তে ধুলোবালি আর বৃষ্টি মৌসুমে কাদাযুক্ত হয়ে পড়ে সড়কটি। যেকারণে এলাকার শিক্ষার্থীসহ পথচারিরা চরম দুর্ভোগে পড়েন।
স্থানীয় চিলাউড়া-হলদিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আরশ মিয়া জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, সড়কটি
সংস্কারের জন্য সংশ্লিষ্টদের অনেকবার অনুরোধ করেছি। সড়কের জনদুর্ভোগ কিছুটা কমাতে আমি কিছু কিছু ইটের সুরকি দিয়ে মেরামত করেছি। আশা করছি, এবার সড়কটি সংস্কারের উপযোগে হবে।
এ বিষয়ে জানতে জগন্নাথপুর উপজেলা প্রকৌশলী (এলজিইডি) গোলাম সারোয়ারের
সঙ্গে মুঠোফোনে একাধিকার যোগাযোগের করেও তাঁর কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তবে এলজিইডি একটি সুত্র জানায়, সড়কটি সংস্কারের ইতিমধ্যে টেন্ডার প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে। এ কাজটি সুনামগঞ্জের এক ঠিকাদার পেয়েছেন। অচিরেই সড়কের কাজ শুরু হবে বলে ওই সুত্রে জানা গেছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24