বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯, ০৩:৩৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে জুয়া খেলার দায়ে আ.লীগ নেতাসহ চারজনের কারাদণ্ড এরালিয়া বাজার উচ্চ বিদ্যালয়ের ১৭ শিক্ষার্থী ফরম পূরন থেকে বঞ্চিত নতুন সড়ক আইন সংশোধনের দাবিতে জগন্নাথপুরে পরিবহন ধর্মঘট পালন, জনভোগান্তি জগন্নাথপুরে গানে গানে মাতিয়ে গেলেন ‘ক্লোজআপ ওয়ান’র তারকা শিল্পী সালমা আইন শৃঙ্খলা সভা: জগন্নাথপুরে মাদক বিরোধী অভিযান জোরদারের আহবান জগন্নাথপুরে সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেফতার দুই ট্রেনের মুখামুখি সংঘর্ষে নিহত ১৬ রাধারমন দত্ত এ দেশের লোক সংস্কৃতির ভান্ডার কে সমৃদ্ধ করেছেন: জেলা প্রশাসক ‘আওয়ামী লীগে দুঃসময়ের কর্মী চাই, বসন্তের কোকিল না’ জগন্নাথপুরে মূল্য তালিকা না থাকায় ভ্রাম‌্যমান আদাতের অভিযানে জরিমানা আদায়

জগন্নাথপুরে বৈদ্যুতের ট্রান্সফরমানটি যেন মৃত্যুকূপ

বিশেষ প্রতিনিধি::
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ২৯ আগস্ট, ২০১৯
  • ২৮৮ Time View

‘সাবধান, ‘বিপদজনক” দূরে থাকুন। এরকম নির্দেশনামূলক সাইনবোর্ড বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের পক্ষ থেকে বিদ্যুতের ট্রান্সফমারে লেখা থাকতো। কারন প্রাণহানি কিংবা দুর্ঘটনার আশঙ্কা দেখা দিতে পারে। এজন্য  সাবধান করা হতো। কিন্তু সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর পৌরশহরের হবিবনগর এলাকায় লোকজনের যাতায়াতের ফুটপাতের ওপর বিপদজনকভাবে নিচুস্থানে বিদ্যুতের ট্রান্সফমার রয়েছে। যেকারণে এই মৃত্যুর কুপ দিয়ে লোকজন চলাচল করছেন।
সরেজমিনে দেখা দেয়া, পাগলা-জগন্নাথপুর-রানীগঞ্জÑআউশকান্দি (আব্দুস সামাদ আজাদ) আঞ্চলিক মহাসড়কের জগন্নাথপুর পৌরশহরের হবিবনগর এলাকায় সড়কের পাশে ড্রেনের ওপর যেখান দিয়ে ফুটপাত হিসেবে জনসাধারণ যাতায়াত করনে। সেখানের মধ্যখানে নিচুস্থানে বিদ্যুতের একটি ট্রান্সফমার রয়েছে। ট্রান্সফমার ঘেষা একটি বাসাবাড়ির প্রবেশদ্বারের গেইট রয়েছে। এই গেইট দিয়ে বাড়ির লোকজন প্রতিনিয়ত চলাফেরা করছেন। এছাড়াও ট্রান্সফমার পাশে রয়েছেন অসংখ্যা দোকানপাট।
স্থানীয়রা জানান, প্রায় দশ বারো বছর পূর্বে হবিবনগর এলাকায় বিদ্যুতায়নের জন্য সড়কের পাশ বিদ্যুতের একটি ট্রান্সফমার স্থাপন করা হয়। ওই সময় ট্রান্সফমারটি উচুস্থানে থাকলেও সাম্প্র্রতিকালে সড়কের প্রশস্তকরণ ও উচু হওয়ায় বিদ্যুতের ট্রান্সফমারটি নিচু স্থানে চলে আসে।ট্রান্সফমারের নিচে ড্রেনের ওপর দিয়ে মানুষ চলাফেরা করছেন মৃতে্যুর ঝুঁকি নিয়ে। গতকয়েকদিন আগে এলাকা কয়েকজন গাছের ডাল-পালা দিয়ে ট্রান্সফমারের একাংশ বেরা দিয়ে রেখেছেন। যাতে করে দুর্ঘটনা কিছুটা এড়ানো যায়। তবে ট্রান্সফমারের পাশ দিয়ে প্রতিনিয়ত চলাফেরা করে আসছেন জনসাধারণ।

ট্রান্সফমারের ঘেষা একটি বাসাবাড়ির স্থানীয় বাসিন্দা ছুরত আলী জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, আমাদের বাসাবাড়ির প্রবেশদ্বারের ঠিকসামনে নিচুস্থানে বিদ্যুতের বিপদজনক ট্রান্সফমার। এটি আমাদের জন্য মৃত্যুকুপ। এই মৃত্যুকুপ দিয়েই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে আমরা চলাফেরা করছি। তিনি বলেন, সব সময় ভয়ে থাকি আমাদের স্কুল পড়–য়া সন্তানদের নিয়ে। কারণ বিদ্যুতের ট্রান্সফমার ঘেষে তাদেরকে বিদ্যালয়ে যেতে হয়। কখন কি হয়। এক দুঃশ্চিতায় জীবন কাটছে আমাদের।
ট্রান্সফমার পাশের দোকানদার রিজু মিয়া বলেন, সড়কের পাশের ড্রেনের ওপর দিয়ে লোকজন ফুটপাত হিসেবে যাতাযাত করে আসছেন। আর ড্রেনের ওপরই নিচু এলাকা রয়েছে বিদ্যুতের ট্রান্সফমার। এজন্যে দুর্ঘটনার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। কয়েকদিন আগে দুর্ঘটনা এড়াতে আমরা সামান্য গাছের ডাল-পালা দিয়ে ট্রান্সফমারের নিচের একাংশ বেরা দিয়ে রেখেছি। তারপরও অনেক লোকজন অসাবধানতাবশত বিদ্যুতের ট্রান্সফমার ঘেষে যাতায়াত করছেন।
স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর জগন্নাথপুর পৌরসভার প্যানেল মেয়র-২ সোহেল আহমদ জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, বিদ্যুতের ট্রান্সফমারটি বিপদজনক স্থানে থাকায় দুর্ঘটনার আশঙ্কা রয়েছে।  স্থানীয়দের সাবধানে চলাফেরার করার জন্য অনুরোধ করেছি। ট্রান্সফমারটি দ্রুত অপসারণের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেছি।
এবিষয়ে জগন্নাথপুর উপজেলা আবাসিক (বিদ্যুৎ) প্রকৌশলী আজিজুল ইসলাম আজাদ জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন,আশা করছি, আগামী সপ্তাহেই এটি সরানো হবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24