বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৯, ১০:২৭ পূর্বাহ্ন

প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের জবাব দিলেন বদরুদ্দোজা চৌধুরী

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, ২ জুন, ২০১৮
  • ৪৯ Time View

জগন্নাথপুর২৪ ডেস্ক::প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্যের জবাব দিয়েছেন সাবেক রাষ্ট্রপতি ও বিকল্পধারার চেয়ারম্যান এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী।

শুক্রবার রাজধানীর একটি হোটেলে বিকল্প স্বেচ্ছাসেবকধারার উদ্যোগে আলোচনাসভা ও ইফতার মাহফিলে তিনি প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের জবাব দেন।

বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেন, আমার নাম বদরুদ্দোজা। এর অর্থ হচ্ছে, ঘোর অন্ধকারে উজ্জ্বল পূর্ণ চন্দ্র। এই নামটিকে বিকৃত করে (অমুক কাকা) বলা সমীচীন হয়নি। এই নামটিকে ছোট করা উচিত না।

তিনি বলেন, ‘বদরুদ্দোজা নামটি আমাদের প্রিয় রাসূলের (সা.) একটি সুন্দর পদবি। এই নামটি আমার নানা আমার জন্য রেখেছিলেন। পবিত্র কোরআনুল কারিমে নাম বিকৃতির বিরুদ্ধে কঠোর হুশিয়ারি দেয়া হয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এটা স্মরণে রাখলে কৃতজ্ঞ থাকব। প্রধানমন্ত্রী, আপনি বয়সে আমার চেয়ে ছোট। তাই নাম বিকৃত করবেন না। জনগণও এটা পছন্দ করে না।’

ভারত সফর নিয়ে গত বুধবার গণভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনের প্রশ্নোত্তর পর্বে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বদরুদ্দোজা চৌধুরীকে ‘বদু কাকা’ বলে সম্বোধন করেছিলেন।

এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী নির্বাচন নিয়ে বিভিন্ন কথা বলেছেন। শুধু আওয়ামী লীগের দাবিকৃত (পরবর্তী সময়ে আমার সমর্থিত) তত্ত্বাবধায়ক সরকার বিল পাস করার প্রয়োজনে তাড়াহুড়া করে ১৯৯৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি ষষ্ঠ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল। তা না হলে দেশে রাজনৈতিক সংকট সৃষ্টি হতো। ওই সময়ে আমার দল বিএনপি নির্বাচনকে পাঁচ বছর ক্ষমতায় থাকার জন্য ব্যবহার করে নাই।’

ওই বিল পাস করার চার মাস পরেই সপ্তম জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় জানিয়ে বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেন, ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচন ছিল অসম্পূর্ণ, প্রশ্নবিদ্ধ এবং এটি অসংখ্য বিনা ভোটের সংসদ সদস্য সৃষ্টি করেছে। ওই নির্বাচনের ওপর ভিত্তি করে বর্তমান সরকার পাঁচ বছর কাটিয়ে দিল। বলা হচ্ছে, জাতীয় প্রয়োজনে এটা করতে হয়েছে। কিন্তু চার বছর পার হলেও নির্বাচন দেয়া হয়নি।

প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফর সম্পর্কে বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী, আপনি বড় গলায় বলেছেন, ভারতকে যা দিয়েছি, সারা জীবন মনে রাখবে। সাধারণ মানুষের মনে প্রশ্ন জেগেছে, কী দিয়েছেন? আপনি যখন দিয়েছেন, আপনিই তো জানেন, আর ভারত জানে, আমরা জানি না।’

তিনি আরও বলেন, কী কী নিলাম, এটা তো শোনা যায় না। তিস্তার পানি কই? মানুষ তো জানতে চায়।

বিকল্প স্বেচ্ছাসেবকধারা বাংলাদেশের সভাপতি বি এম নিজাম উদ্দিনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় গণস্বাস্থ্যকেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা জাফরুল্লাহ চৌধুরী, গণফোরামের কার্যকরী সভাপতি আইনজীবী সুব্রত চৌধুরী ছাড়াও সংগঠনের বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।
যুগান্তর

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24