1. forarup@gmail.com : jagannthpur25 :
  2. jpur24@gmail.com : Jagannathpur 24 : Jagannathpur 24
বৃটেনে মন্ত্রীসহ ৩৬ এমপির বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ, কঠোর অবস্থানে প্রধানমন্ত্রী - জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর
শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ১২:১৯ পূর্বাহ্ন

বৃটেনে মন্ত্রীসহ ৩৬ এমপির বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ, কঠোর অবস্থানে প্রধানমন্ত্রী

  • Update Time : সোমবার, ৩০ অক্টোবর, ২০১৭
  • ২৯৪ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম ডেস্ক ::

যৌন কেলেঙ্কারিতে এবার তোলপাড় হচ্ছে বিলেত। রাজনীতিবিদদের বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে তা দিনকে দিন দীর্ঘ হচ্ছে। ক্ষমতাসীন কনজার্ভেটিভ পার্টির সহযোগীরা যৌন কেলেঙ্কারিতে জড়িত এমন কমপক্ষে ৩৬ জন এমপির নামের একটি তালিকা তৈরি করেছেন। এতে আতঙ্কের শিহরণ বয়ে যাচ্ছে ১০ ডাউনিং স্ট্রিটে। কঠোরতা উচ্চারণ করেছেন বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মে। তিনি সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, এই অবস্থা আর সহ্য করা হবে আমি এমনটা মোটেও বিশ্বাস করি না।
আমার স্টাফ, যাদের বেশির ভাগই যুবক বা যুবতী, শিক্ষাজীবন শেষ করে প্রথম দায়িত্বে এসেছেন তাদের এমন আচরণ সুষ্ঠু নয়। অনৈতিক আচরণের জন্য অভিযুক্ত ১৩ জন এমপির তালিকা ছড়িয়ে পড়েছে ওয়েস্টমিনস্টারে। পদক্ষেপ চেয়ে হাউজ অব কমন্সের স্পিকার জন বারকাউকে চিঠি লিখেছেন তেরেসা মে। এ খবর বৃটিশ মিডিয়ায় সয়লাব। এতে বলা হচ্ছে, একটি ¯িপ্রডশিটে যৌন হয়রানির দায়ে অভিযুক্ত কনজার্ভেটিভ পার্টির ৩৬ জন এমপির বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ প্রকাশ হয়েছে। ক্ষমতাসীন দল কনজার্ভেটিভদের সহযোগীরা এসব নাম সংগ্রহ করে একত্রিত করেছে। কোনো কোনো নামের বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট অভিযোগের বিস্তারিত বর্ণনা করা হয়েছে। এতে একজন এমপির সম্পর্কে বলা হয়েছে, পার্টিতে নারীদের স্পর্শ করেন তিনি। তার মধ্যে এই প্রবণতা রয়েছে। অন্য একজন নারীদের সঙ্গে উন্মত্ততা ও অত্যন্ত অসদাচরণ করেন। একজন মন্ত্রীর বিরুদ্ধেও অভিযোগ আছে। তাতে বলা হয়েছে তিনি একজন নারী গবেষকের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক গড়ে তুলেছিলেন। আরেকজন এক নারীকে মুখ বন্ধ রাখতে অর্থ দিয়েছিলেন। এ তালিকায় রয়েছে বর্তমানে মন্ত্রীসভায় থাকা দু’মন্ত্রী। তাদের বিরুদ্ধেও একই রকম অভিযোগ আছে। অভিযোগ আছে, ১৮ জন মন্ত্রী যৌন অসামঞ্জস্যপূর্ণ আচরণের অভিযোগের মুখোমুখি। ১২ জন এমপির বিরুদ্ধে নারী গবেষকদের বিরুদ্ধে অশালীন আচরণের অভিযোগ রয়েছে। অন্যদিকে চারজনের বিরুদ্ধে রয়েছে পুরুষ গবেষকদের বিরুদ্ধে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ। প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মের ব্রেক্সিট বিষয়ক মন্ত্রীদের মধ্যে একজন মার্ক গারনিয়ের তার নারী সেক্রেটারি ক্যারোলিন এডমন্ডসনকে দিয়ে সেক্স টয় কেনানোর কথা স্বীকার করার পরই বোমার মতো বিস্ফোরণ ঘটছে এসব তথ্যের। বলা হয়েছে, বৃটেনের আন্তর্জাতিক বাণিজ্য বিষয়ক মন্ত্রী মার্ক গারনিয়ের। তিনি কমন্স সেক্রেটারি ক্যারোলিনকে ‘সুগার টিটস’ বা ‘মিষ্টি যুবতী’ বলে ডাকতেন। একবার তাকে দিয়ে তিনি স্ত্রী ও এক বান্ধবীর জন্য সেক্স টয় কিনিয়েছেন। ওদিকে সাবেক মন্ত্রী স্টিফেন ক্রাব স্বীকার করেছেন ১৯ বছর বয়সী একটি যুবতীকে তিনি অশালীন এসএমএস পাঠিয়েছিলেন। ওয়েস্টমিনস্টারে চাকরির সাক্ষাতকার দেয়ার পর থেকেই এ ঘটনার শুরু। তবে বলা হয়েছে, ওই যুবতীর সঙ্গে তিনি যৌন সম্পর্ক স্থাপনের প্রস্তাব দিয়েছিলেন এসএমএসের মাধ্যমে। এমন অবস্থায় বিরোধ দল লেবার এমপি জন মান তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেছেন, ওয়েস্টমিনস্টারে নারী শিকারী পুরুষদের থেকে নারীদের রক্ষা করতে কমন্স সেক্স পেস্ট সার গঠনের জন্য। প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মে শুক্রবার ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেছেন, যৌন নির্যাতন কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। কোনো মন্ত্রীকে এ অভিযোগে অভিযুক্ত পাওয়া গেলে তার বিরুদ্ধে কঠিন ব্যবস্থা নেয়া হবে। নিন্দা জানিয়েছেন বিরোধ দল লেবার প্রধান জেরেমি করবিন। তিনি বলেছেন, ক্ষমতার করিডোরে দীর্ঘধিন ধরে এমন নির্যাতনের সংস্কৃতি চলছে। এমন অবস্থায় আন্তর্জাতিক বাণিজ্য বিষয়ক মন্ত্রী মার্ক গারনিয়েরের বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগ মন্ত্রীপরিষদ অফিসকে তদন্ত করতে নির্দেশ দিয়েছেন। শোনা যাচ্ছে, তেরেসা এমন পরিস্থিতিতে সহসাই মন্ত্রীপরিষদে রদবদল আনতে পারেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২৩
Design & Developed By ThemesBazar.Com