মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯, ০৯:৫১ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে ভ্রাম্যমান আদালতের টের পেয়ে পেঁয়াজ ১৭০ থেকে নেমে এলে ১২০ টাকা কেজি জগন্নাথপুর উপজেলাকে মাদকমুক্ত করতে মতবিনিময়সভা অধ্যক্ষকে পানিতে নিক্ষেপ: ছাত্রলীগের আরো পাঁচজন গ্রেফতার নবীজীর কাছে যে সকল বেশে হাজির হতেন জিবরাইল (আ.) অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে পণ্য পরিবহন মালিক শ্রমিক লবনের গুজব জগন্নাথপুরের সর্বত্রজুড়ে,ক্রেতা সামলাতে না পেরে দোকান বন্ধ, চলছে মাইকিং জগন্নাথপুর বাজারে লবন নিয়ে গুজব জগন্নাথপুরে আমনের ফলনে কৃষক খুশি জগন্নাথপুরে দুই মেধাবী শিক্ষার্থীর সহায়তায় এগিয়ে এলেন লন্ডন প্রবাসী মোবারক আলী জগন্নাথপুরে ৬ দিন ধরে মাদ্রাসার নৈশ্য প্রহরী নিখোঁজ

ভূমিকম্প হলে যা করবেন-আতঙ্কে দেশবাসী

Reporter Name
  • Update Time : মঙ্গলবার, ৫ জানুয়ারী, ২০১৬
  • ১১৬ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডেস্ক:: বছরের শুরুতেই জগন্নাথপুরসহ সারা দেশে বড় ধরনের ঝাকুনি দিয়ে গেল ভূমিকম্প। উৎপত্তিস্থল ভারতের মনিপুরে হলেও এর প্রভাব ছিল বাংলাদেশের সর্বত্র।সোমবার ভোরের ৬.৭ মাত্রার এ ভূমিকম্পনটিকে এযাবৎকালের সবচেয়ে ভয়াবহ কম্পন হিসেবেই দেখছেন ঢাকার বিশেষজ্ঞরা।
বাংলাদেশে এ ভূমিকম্পে খুব বেশি ক্ষয়ক্ষতি না হলেও আতংক ছড়িয়েছে ব্যাপক। আচমকা আতংকে হার্ট অ্যাটাকে মারা গেছেন আটজন। হুড়োহুড়ি করে নামতে গিয়ে আহত হয়েছেন অর্ধশতাধিক। এনিয়ে দেশবাসী আতঙ্কে রয়েছেন। আরো বড়ধরনের ভূমিকম্প ও সুনামি হতে পারে বলেও আশঙ্কা করা হচ্ছে।
প্রকৃতপক্ষে ভূমিকম্পের সময় আমাদের করণীয় কী? বিশেষজ্ঞরা বলছেন, যেহেতু ভূমিকম্পের কোনো পূর্বাভাস দেয়ার যন্ত্র নেই, তাই নিজেদের সতর্কতা ও সচেতনতাই হচ্ছে একমাত্র ভরসা।
ভূমিকম্পে যা করবেন, যা করবেন না:
মাথা ঠান্ডা রাখতে হবে
ভূমিকম্পের সময় কোনোভাবেই উত্তেজিত হওয়া যাবে না। ঠান্ডা মাথায় চিন্তা করতে হবে এবং সিদ্ধান্ত নিতে হবে। আতংকগ্রস্ত হয়ে ছোটাছুটি করলে বরং ক্ষতি হওয়ার সম্ভবনা বেশি।
খোলা জায়গায় স্থান নেয়া
ভূমিকম্প শুরু হলে অযথা আতংকগ্রস্ত না হয়ে, সম্ভব হলে দ্রুত খোলা জায়গায় বা ফাকা মাঠে স্থান নিতে হবে। তবে আশপাশে উঁচু ভবন থাকলে ফাঁকা জায়গায় গিয়ে তেমন সুফল হবে না। কারণ উঁচু ভবন ভেঙে ওপরে পড়ার সম্ভবনা থাকে।
বীমের পাশে বা দরজার নিচে দাড়ানো
বিল্ডিং হলে ভূমিকম্প অনুভূত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই বীমের পাশে বা দরজার নিচে অবস্থান নেবেন। এতে বিল্ডিং ভেঙ্গে পড়লেও ফাঁকা জায়গায় নিজেকে লুকানোর সুযোগ থাকে।
সিঁড়ির নিচে অবস্থান নেয়া
কোনো ভবনের সবচেয়ে মজবুত জায়গা হচ্ছে সিড়ি। তাই নিজেকে রক্ষা করতে সিড়ির নিচে অবস্থান নিতে পারেন।
টেবিলের নিচে আশ্রয় নেয়া
আধাপাকা বাড়ি হলে ঘরের মধ্যে টেবিলের নিচে বা শক্ত কোনো কিছুর আশ্রয় নিতে পারেন।
ফার্নিচার বা জানালার পাশে নয়
ভূমিকম্পের সময় অবশ্যই জানালার পাশে অবস্থান করা যাবে না। এতে জানালার কাঁচ ভেঙে আহত হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যাবে। এছাড়া কাঁচের কোনো ফার্নিচারের পাশেও দাড়ানো যাবে না।
গ্যাস ও বিদ্যুতের মেইন সূইচ বন্ধ করা
কম্পন অনুভূত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই সুযোগ পেলে বিদ্যুৎ লাইন বন্ধ করতে হবে। এর ফলে বৈদ্যুতিক দুর্ঘটনা থেকে হয়তো রক্ষা পাওয়া যাবে।
লিফট ব্যবহার না করা
দ্রুত নিচে নামতে গিয়ে লিফট ব্যাবহার করা যাবে না। ভূমিকম্পের সময় লিফট হচ্ছে সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ জায়গা।
ভূমিকম্পের ক্ষয়ক্ষতি রোধে দীর্ঘমেয়াদি করণীয়
ভূমিকম্পের ক্ষয়ক্ষতি তাৎক্ষণিক রোধ করা ছাড়াও দীর্ঘমেয়াদি পরিক্ল্পনার মাধ্যমে কমানো যায়। উঁচু ভবন নির্মাণের ক্ষেত্রে ভূমিকম্প সহন

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24