রবিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৭:১৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে ব্রিটিশ বাংলা এডুকেশন ট্রাস্টের রিসোর্স সেন্টারের কাজ পরিদর্শনে ট্রাস্টের প্রতিনিধিদল জগন্নাথপুরে একদিনে ১১ জন ডাক্তারের যোগদান জগন্নাথপুরে বেড়িবাঁধের ৩০ প্রকল্প অনুমোদন কাল কাজ শুরু হতে পারে শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবসে জগন্নাথপুরে প্রশাসনের উদ্যোগে শ্রদ্ধা নিবেদন ও আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত জগন্নাথপুরে আ.লীগের উদ‌্যোগে শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবসে আলোচনাসভা ও শ্রদ্ধা নিবেদন দিরাইয়ে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মানববন্ধন মুসলিমবিদ্বেষী আইনের বিরুদ্ধে ভারতজুড়ে বিক্ষোভ আমি স্বাধীনতা বিরুধী পরিবারের সন্তান নই- চেয়ারম্যান আব্দুল হাশিম জগন্নাথপুরে বাংলা মিরর সম্পাদক আব্দুল করিম গনি সংবর্ধিত জগন্নাথপুরে তিনদিন ব্যাপি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলার উদ্বোধন

লন্ডনে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষনের অভিযোগে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত শিক্ষকের ১৯ বছরের কারাদন্ড

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, ৫ মার্চ, ২০১৬
  • ২৩ Time View

যুক্তরাজ্য প্রতিনিধি:১৪ বছরের শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের দায়ে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত আরবি শিক্ষককে ১৯ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন লন্ডনের স্নেয়ার্সব্রুকস আদালত। ধর্ষণের শিকার ওই শিক্ষার্থী গর্ভবতী হয়ে পড়েছিল। ৩১ বছর বয়সী ধর্ষক মোহাম্মদ ইসলাম পূর্ব লন্ডনের বেথনাল গ্রিনে একটি ইসলামিক সেন্টারে আরবির শিক্ষক ছিলেন। ২০১০ সালে ধর্ষণের শিকার মেয়েটির বয়স যখন মাত্র ৯ বছর তখন থেকেই মোহাম্মদ ইসলাম তাকে যৌন নির্যাতন শুরু করেন। কিন্তু ওই সময় বিষয়টি কাউকে জানায়নি কিশোরী। দীর্ঘ পাঁচ বছর ধরে নির্যাতন সহ্য করে ২০১৫ সালে মেয়েটি গর্ভবতী হয়ে পড়লে বিষয়টি পরিবারের নজরে আসে।
তবে মোহাম্মদ ইসলাম আদালতে সব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, কিশোরী মেয়েটিই তাকে যৌন সম্পর্ক তৈরিতে প্ররোচিত করেছিল। কিন্তু ৯ বছর বয়সী নাবালিকা কিশোরী যৌন সম্পর্ক স্থাপনে তার আরবি শিক্ষককে প্ররোচিত করেছেন এমন দাবি প্রত্যাখ্যান করে মোহাম্মদ ইসলামকে দোষী সাব্যস্ত করেন আদালত। আদালত কিশোরীর গর্ভের সন্তানের ডিএনএ পরীক্ষার মাধ্যমে শনাক্ত করেন যে, ওই গর্ভজাত সন্তানের জনক মোহাম্মদ ইসলাম।
এ ঘটনায় কিশোরীর বাবা বিস্ময় প্রকাশ করে বলেন, একজন ধর্মীয় শিক্ষকের মাধ্যমে তার মেয়ে ধর্ষিত হতে পারেন এটা তিনি কল্পনাও করতে পারেননি। ব্রিটিশ বাংলাদেশি কমিউনিটির প্রাণকেন্দ্র পূর্ব লন্ডনে আরবি শিক্ষকের হাতে কিশোরী নাবালিকা ধর্ষণের ঘটনা আলোচনায় আসার পর লন্ডনের বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত আরবি শিক্ষকদের ওপর আস্থাহীনতা তৈরি হবে বলে মনে করছেন কমিউনিটির বিশিষ্টজনরা। সেইসঙ্গে তাদের পরামর্শ- এ ধরনের আরবি শিক্ষাকেন্দ্রে সন্তানদের পাঠানোর ক্ষেত্রে বাবা-মা’দের সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24