1. forarup@gmail.com : jagannthpur25 :
  2. jpur24@gmail.com : Jagannathpur 24 : Jagannathpur 24
সুনামগঞ্জে পরীক্ষায় খাতা না দেখানোয় ছুরিকাঘাতের অভিযোগ - জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর
শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ১১:৫০ অপরাহ্ন

সুনামগঞ্জে পরীক্ষায় খাতা না দেখানোয় ছুরিকাঘাতের অভিযোগ

  • Update Time : শনিবার, ১৫ জুলাই, ২০২৩
  • ১৬১ Time View

জগন্নাথপুর২৪ ডেস্ক::

সুনামগঞ্জ শহরের ঐতিহ্যবাহী সরকারি জুবিলী উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির দিবা শাখার ছাত্র পূর্নেন্দু তালুকদার ধ্রুবকে একই শ্রেণির আরেক ছাত্র তায়েব হাসান চৌধুরী ছুরিকাঘাত করেছে বলেছে অভিযোগ উঠেছে। গেল বছরের অক্টোবর মাসে তায়েব হাসান চৌধুরীকে পরীক্ষায় খাতা না দেখানোর কারণে এবং শ্রেণি শিক্ষক তাকে অপমান করার জেরে ধ্রæব কে ছুরিকাঘাত করেছে বলেছে অভিযোগ।
পূর্নেন্দু তালুকদার ধ্রুব শহরের নতুনপাড়ার বাসিন্দা দিরাই সরকারি কলেজের গণিত বিভাগের প্রভাষক প্রসূন কান্তি তালুকদারের ছেলে। তায়েব হাসান চৌধুরী তাহিরপুর উপজেলার বালিজুরি গ্রামের তৈমুর চৌধুরীর ছেলে, তারা বর্তমানে শহরতলীর জগাইড়গাঁও গ্রামে বসবাস করেন।
ধ্রুব ’র বাবা প্রভাষক প্রসূন কান্তি তালুকদার জানান, গত ৯ জুলাই রবিবার বিকালে বিদ্যালয় ছুটির পর বিদ্যালয়ের প্রধান ফটক থেকে মিথ্যা কথা বলেধ্রুব =কে উকিলপাড়ার সরকারি কলেজের হিন্দু হোস্টেলের সামনের নির্জন রাস্তায় নিয়ে তার মাথার পেছনে ছুরিকাঘাত করে সহপাঠি তায়েব হাসান চৌধুরী। ঘটনার পর আহত ধ্রুব সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছে। ঘটনার পরদিন ১০ জুলাই সোমবার ধ্রুব ’র বাবা তাঁর ছেলেকে ছুরিকাঘাতের ঘটনায় বিচার চেয়ে সরকারি জুবিলী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের কাছে লিখিত আবেদন করেন। তবে গতকাল ১৪ জুলাই শুক্রবার পর্যন্ত ছেলেকে ছুরিকাঘাতের ঘটনায় কোন বিচার পাননি। শুক্রবার বিকালে বিষয়টি তিনি পৌরসভার মেয়রকে জানিয়েছেন।
ধ্রুব জানান, ৯ জুলাই স্কুল ছুটির পর তায়েব মিথ্যা কথা বলে আমাকে উকিলপাড়ার দিকে নিয়ে যায়। পরে আমার গলায় ছুরি ধরে সরকারি কলেজের হিন্দু হোস্টেলের রাস্তার দিকে নেয় এবং আমার কানে আঘাত করে। এসময় আমি দৌঁড়ে চলে যেতে চাইলে সে আমার মাথার পেছনে ছুরি দিয়ে আঘাত করে।

ছুরিকাঘাতের অভিযোগ মিথ্যা দাবি করে তায়েব হাসান চৌধুরীর মা সুহেনা আক্তার বলেন, ছুরিকাঘাতের কোন ঘটনা ঘটেনি। তারা সিঙ্গারা খেতে চাইছিল। ধাক্কা-ধাক্কিতে হয়ত পড়ে গেছে। বিষয়টি নিয়ে দুই পরিবারের মধ্যে সমঝোতা হয়েছে। শুনেছি বিদ্যালয়ে অভিযোগ করা হয়েছে। শহরের একটি স্কুলের প্রধান শিক্ষক বিষয়টি মিমাংসা করার জন্য দায়িত্বে নিয়েছেন। আমরা দুইদিন তাদের বাসায়ও গিয়েছি। শুক্রবারও তাদের বাসায় যেতে চাইছিলাম কিন্তু তারা নাকি সিলেটে চলে গেছেন বলে জানিয়েছেন।
তিনি আরও বলেন, ‘নবম শ্রেণিতে পড়ার সময় ছেলেদের মধ্যে পা দিয়ে একটু খোচাখুচি হয়েছিল। এখন অহেতুক এসব ঘটনা রটানো হয়েছে। স্কুলে আমরা যাইনি এটা সঠিক তবে ননদের জামাইকে পাঠিয়েছিলাম, তিনি প্রধান শিক্ষককে স্কুলে পান নি।
সরকারি জুবিলী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ মনসুর রহমান খান বলেন, দশম শ্রেণির এক ছাত্র বিদ্যালয়ের বাইরে আরেক ছাত্রকে ছুরিকাঘাত করেছে বলে ছাত্রের বাবা আমার কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। যে ছাত্রের বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হয়েছে তার অভিভাবককে পাওয়া যায়নি। বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্যআগামী রবিবার পৌরসভার মেয়রসহ সবাইকে নিয়ে বসা হবে।
সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র নাদের বখত বলেন, সরকারি জুবিলী উচ্চ বিদ্যালয়ের এক ছাত্রকে তার সহপাঠি ছুরিকাঘাত করেছে বলে একজন অভিভাবক আমাকে জানিয়েছেন। শহরের ঐহিত্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এমন ঘটনা মোটেও কাম্য নয়। সন্তান ও ছাত্রদের প্রতি শিক্ষক-অভিভাবকদের আরও দায়িত্বশীল হতে হবে।

শেয়ার করুন

Comments are closed.

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২৩
Design & Developed By ThemesBazar.Com