বুধবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২০, ১২:২৫ অপরাহ্ন

ইনাতগঞ্জে প্রেমিক প্রেমিকা পুলিশের খাঁচায় বন্দি এলাকায় চাঞ্চল্য

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, ৬ মার্চ, ২০১৬
  • ১৪৭ Time View

ইনাতগঞ্জ সংবাদদাতা : আমি জুমানকে ভালোবাসি। সাড়ে তিন বছর ধরে আমাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছে। আমাকে অপহরণ করা হয়নি। আমার ইচ্ছাতেই তার হাত ধরে আমি পালিয়েছি। শনিবার রাতে এভাবেই ইনাতগঞ্জ পুলিশ ফাঁড়ির এসআই ধর্মজিৎ সিনহার কাছে জবাবন্দি দেন প্রেমিকা আয়শা আক্তার। স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়,নবীগঞ্জ উপজেলার ইনাতগঞ্জ ইউনিয়নের প্রজাতপুর গ্রামের রুপ উদ্দিনের পুত্র জুমান মিয়া(২০) ও একই গ্রামের সৌদি প্রবাসী মুক্তার আলী মেয়ে আয়েশা আক্তার (১৬) মধ্যে দীর্ঘ সাড়ে ৩বছর ধরে প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছে। তাদের এই প্রেমের সম্পর্ক উভয়ের পরিবারের মধ্যে জানাজানি হলে প্রেমিকা আয়েশাকে তারা নজর বন্দি করে রাখেন। এক পর্যায়ে আয়েশাকে তার পরিবারের লোকজন নানা বাড়ি ইনাতগঞ্জের ইছবপুর গ্রামে পাঠিয়ে দেন। সেখানে সে দুই মাস অবস্থান করার পর এক পর্যায়ে সে তার প্রেমিক জুমানের জন্য ব্যকুল হয়ে উঠে। আয়েশা মোবাইল ফোনে প্রেমিক জুমানকে জানায়,আমি এভাবে আর থাকতে পারছিনা। তুমি এসে আমাকে নিয়ে যাও। আমি তোমাকে ছাড়া বাচবোনা। এরই প্রেক্ষিতে গত ১৬ ফেব্র“য়ারী দু’জন একে অপরের হাত ধরে অজানার উদ্যেশ্যে পাড়ি জমায়। ১৭ ফেব্র“য়ারী আয়েশার বড় ভাই শিমুল আহমেদ বাদী হয়ে প্রেমিক জুমানকে প্রধান আসামী করে ৫জনের বিরুদ্ধে নবীগঞ্জ থানায় একটি অপহরন মামলা দায়ের করে। মামলার প্রেক্ষিতে গং আসামীদের মধ্যে জুমানের ভাই হামিমকে পুলিশ গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরন করে। পালিয়ে যাওয়ার ১৮দিন পর গতকাল শনিবার সন্ধার সময় ইনাতগঞ্জ ফাঁড়ির এসআই ধর্মজিৎ সিনহা প্রেমিক জোটিকে ইনাতগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ এলাকা থেকে আটক করে। পুলিশ হেফাজতে আটক প্রেমিকা আয়েশা জানায়,আমি জুমানকে ভালোবাসি। ভালোবাসা অপরাধ নয়। আমাকে আমার পরিবারের লোকজন মানসিকভাবে কষ্ট দিচ্ছিল। সেটা আমি সহ্য করতে পারিনি। তাই আমি জুমানের হাত ধরে পালিয়ে যাই। আমাকে অপহরণ করা হয়নি।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24