সোমবার, ১৯ অগাস্ট ২০১৯, ০৩:১৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
কাশ্মীরে নির্বিচারে ধরপাকড় চলছে স্মৃতির রত্নায় ঈদ ভাবনা || আব্দুল মতিন জগন্নাথপুরে আগুনে পুড়ল দুইটি ঘর,ক্ষয়ক্ষতি ১০ লাখ জগন্নাথপুর আদর্শ মহিলা কলেজের উদ্যােগে দুই যুক্তরাজ্য প্রবাসিকে সম্মাননা প্রদান জগন্নাথপুরে শিক্ষক সংকট নিরসনে প্রবাসি সংগঠন নিয়োগ দিল ১২ প্যারা শিক্ষক যে ঘুষ খাবে সেই কেবল নয়, যে দেবে সেও অপরাধী: প্রধানমন্ত্রী বাস-অটোরিকশা সংঘর্ষে নিহত ৭ জগন্নাথপুরের পাটলীতে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা জগন্নাথপুরে গাছ কাটার ঘটনায় যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে মামলা হচ্ছে জগন্নাথপুরে শিকল দিয়ে তিনদিন বেঁধে রাখার পর রিকশাচালকের মৃত্যু:হত্যা মামলা দায়ের

এরশাদের উন্নয়নের ছোঁয়ায় জগন্নাথপুর

স্টাফ রিপোর্টার
  • Update Time : সোমবার, ১৫ জুলাই, ২০১৯
  • ৫৯৯ Time View

স্টাফ রিপোর্টার :: নয় বছরের সাবেক প্রেসিডেন্ট জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেন মোহাম্মদ এরশাদের শাসনামলে জগন্নাথপুরে অনেক উন্নয়ন হয়েছে। এক সময় জাতীয় পার্টির দূর্গে পরিণত হয় এ উপজেলার।বাংলাদেশের রাজনীতিতে বহুল আলোচিত হুসেন মোহাম্মদ এরশাদ নানা কারণে আলোচিত ও সমালোচিত হলেও ইতিহাসের পাশাপাশি গ্রাম বাংলার সাধারণ মানুষের মণিকোঠায় ঠাঁই করে নিয়েছেন। তাঁর মৃত্যুর সংবাদে জগন্নাথপুর উপজেলার জাতীয়পার্টির নেতাকর্মী ও এরশাদ প্রেমী সাধারণ মানুষ তার নয় বছরের শাসনামলের উন্নয়ন নিয়ে আলোচনা করছেন।
জাতীয় পার্টির শাসনামলে সুনামগঞ্জ ৩ আসন জগন্নাথপুর দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়ে হুমায়ুন রশিদ চৌধুরী পররাষ্ট্রমন্ত্রী হন।পরবর্তীতে তার ভাই ফারুক রশিদ চৌধুরী জাতীয় পার্টির হয়ে সাংসদ নির্বাচিত হয়ে অর্থ প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। জাতীয় পার্টির শাসনামলে উপজেলা প্রদ্ধতি ব্যাপক জনপ্রিয়তা পায়। উপজেলা পর্যায়ে উন্নয়ন কর্মযজ্ঞ শুরু হলে এরশাদের জনপ্রিয়তা বাড়তে থাকে। এসময় জাতীয় পার্টির হয়ে পর পর দুবার উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন সৎ&nbsp; স্বজ্জন ব্যাক্তিত্ব অধ্যাপক আবু খালেদ&nbsp; চৌধুরী। ক্ষমতায় থাকাকালীন সময় ও পরবর্তীতে একাধিকবার তিনি জগন্নাথপুরে আসেন। এছাড়াও এরশাদের শাসনামলে জগন্নাথপুরের স্বরুপ চন্দ্র উচ্চ বিদ্যালয় ও বালিকা বিদ্যালয় সরকারি করণ করা হয়। তাঁর ছোঁয়ায় অনেক উন্নয়ন হয় জগন্নাথপুরে।<br>
জাতীয় পার্টির জগন্নাথপুর উপজেলার&nbsp; একনিষ্ঠ কর্মী ফিরোজ রানা বলেন, এরশাদ ছিলেন গ্রাম বাংলার আপামর জনতার নেতা।তার মৃত্যুতে আমার বাবা মা মারা যাওয়ায় যেভাবে কষ্ট পেয়েছি সেভাবে কস্ট পাচ্চি।
রফিকুল ইসলাম রফিক নামের যুব সংহিতর সাবেক সাধারণ সম্পাদক বলেন,এরশাদ ছিলেন বাংলাদেশের রাজনীতির কিংবদন্তি পুরুষ। তাঁর শুন্যতা পূরন হবার নয়।
জাতীয় পার্টি নেতা এরশাদ মিয়া বলেন,কুয়েত যুূদ্ধের সময় এরশাদ আমাদের কে দেশে ফিরিয়ে আনতে বিশেষ ভূমিকা রাখেন। তিনি বলেন,যারা এরশাদের বিরুধীতা করেন তারা ক্ষমতার জন্য বার বার এরশাদের কাছে আসতে হয়েছে। এটাই এরশাদের রাজনীতির সফলতা।
জগন্নাথপুর উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম লাল মিয়া বলেন,জগন্নাথপুর উপজেলায় পল্লীবন্ধু এরশাদের অনেক অবদান রয়েছে। তাঁর আমলের উন্নয়নের কথা এখনো মানুষ স্মরন করছে। তিনি বলেন,বিচক্ষণ রাজনীতিবীদ ও সফল রাষ্টনায়ক হিসেবে তিনি আজীবন বেঁচে থাকবেন বাংলার মানুষের মনে।
উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি কাউন্সিলর খলিলুর রহমান বলেন,এরশাদ ছিলেন ক্ষণজন্মা রাজনীতিবীদ। তাঁর মৃত্যুতে আমরা শোকাহত।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24