রবিবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২০, ০৬:২৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে ইউনিয়ন আ,লীগের সম্মেলন সফল করার লক্ষে প্রস্তুতিসভা অনুষ্ঠিত জগন্নাথপুরে ডাক্তার-নার্সের অবহেলায় শিশুর মৃত্যুের অভিযোগে তদন্ত কমিটি গঠন মুঠোফোনে প্রেমের ফাঁদে ফেলে কিশোরগঞ্জের তরুণী কে জগন্নাথপুর এনে ধর্ষণ নান্দনিক আয়োজনে ঐতিহ্যবাহি মিরপুরের উচ্চ বিদ্যালয়ে সাবেক শিক্ষার্থীদের মিলনমেলায় বাঁধাভাঙা উচ্ছ্বাস জগন্নাথপুরে জুয়াড়িসহ গ্রেফতার-১৩ কুকুরের সঙ্গে সেলফি, অতঃপর মুখে ৪০ সেলাই পৌর মেয়র আব্দুল মনাফের মরদেহে হিন্দু কমিউনিটি নেতাদের শ্রদ্ধা নিবেদন চিরনিদ্রায় নিজের তৈরী কবরে শায়িত জগন্নাথপুর পৌরসভার মেয়র আব্দুল মনাফ শ্রদ্ধা আর ভালবাসায় জগন্নাথপুর পৌরসভার জননন্দিত মেয়র আব্দুল মনাফকে শেষ বিদায়,জানাজায় শোকার্ত মানুষের ঢল পৌর মেয়র আব্দুল মনাফ এর মরদেহে পরিকল্পনা মন্ত্রীর শ্রদ্ধা নিবেদন

কফিনে রাতযাপন

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, ২৮ অক্টোবর, ২০১৬
  • ৬৩ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম ডেস্ক :: কফিনের মতো বড় বড় বাক্স। একেকটির আয়তন ২৪ বর্গফুট বা ২ দশমিক ২ বর্গমিটার। বাক্স হলেও ভেতরে তকতকে বিছানা-বালিশ। নীলাভ আলো। হঠাৎ দেখলে যে কারও সেটিকে মহাকাশ যাত্রীদের উপযোগী ‘স্পেস ক্যাপসুল’ বলে মনে হতে পারে। কিন্তু এটি আসলে মর্ত্যের সাধারণ মানুষেরই ঘর। আর ‘বিলাসবহুল’ এই ঘরের মাসিক ভাড়া ৬৫৮ মার্কিন ডলার। বর্ণনা পড়ে মনে হতে পারে, এটি শখের বশে বানানো ‘খেলাঘর’। আদতে তা নয়। বিশ্বের সবচেয়ে ঘনবসতিপূর্ণ ভূখণ্ড হংকংয়ে এক দম্পতি নিতান্ত রাত কাটানোর জন্য এই আবাসনের ব্যবস্থা করেছেন। শীতাতপনিয়ন্ত্রিত এই ‘ঘরে’ টেলিভিশন ও ইন্টারনেট সুবিধাও আছে। শুধু মি. ওয়াং নামে পরিচয় দেওয়া এক ব্যক্তি ও তাঁর স্ত্রী নিজেদের ৯৬০ বর্গফুটের ফ্ল্যাটে এ রকম ১০টি ক্যাপসুল বানিয়ে সাবলেট দিচ্ছেন। ওয়াং বেশ গর্বভরে বলেন, এই ঘরে বিশেষ ধরনের আলোর ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। এতে ভেতরে ঘুমাতে যাওয়া মানুষের মধ্যে মহাকাশ ভ্রমণের অনুভূতি তৈরি হবে। ওয়াংয়ের স্ত্রী জানান, প্রতিটি ক্যাপসুল রুমের ভাড়া প্রতি মাসে ৫ হাজার ১০০ হংকং ডলার হলেও কেউ তিন মাসের বেশি সময়ের জন্য ভাড়া নিতে চাইলে তাঁর জন্য কিছুটা ছাড় থাকবে। আর এক মাসের নিচে ভাড়া দেওয়া হবে না। পয়সা বানানোর জন্য নয়, নিজেদের বাড়ি ভাড়ার চাপ কিছুটা কমাতেই এ কাজ করেছেন বলে দাবি করেন ওয়াং দম্পতি। তবে তাঁরা এই অভিনব বাসস্থান নিয়ে যতই ভালো ভালো কথা বলুন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এর তীব্র সমালোচনা চলছে। র‍্যালফ চিউং নামের এক ব্যক্তি ফেসবুকে লিখেছেন, ‘এটি স্পেস ক্যাপসুল নয়। মৃত্যুর আগেই এখানে আপনার শেষ ঘুমের ব্যবস্থা করা হয়েছে।’ জেরি লি নামের একজন লিখেছেন, ‘বাহারি নাম “স্পেস ক্যাপসুল”; কিন্তু এটি তো কুকুরের বড় ঘরের চেয়ে বেশি কিছু না।’

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24