শনিবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২০, ০১:২৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
পৌর মেয়র আব্দুল মনাফের মরদেহে হিন্দু কমিউনিটি নেতাদের শ্রদ্ধা নিবেদন চিরনিদ্রায় নিজের তৈরী কবরে শায়িত জগন্নাথপুর পৌরসভার মেয়র আব্দুল মনাফ শ্রদ্ধা আর ভালবাসায় জগন্নাথপুর পৌরসভার জননন্দিত মেয়র আব্দুল মনাফকে শেষ বিদায়,জানাজায় শোকার্ত মানুষের ঢল পৌর মেয়র আব্দুল মনাফ এর মরদেহে পরিকল্পনা মন্ত্রীর শ্রদ্ধা নিবেদন পৌর চত্বরে মেয়র আব্দুল মনাফের মরদেহে শ্রদ্ধা নিবেদন চিলাউড়া হলদিপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সন্মেলনে পরিবর্তনের পক্ষে তৃণমূল নেতাদের আওয়াজ জগন্নাথপুর পৌরসভার মেয়র আব্দুল মনাফের মরদেহ গ্রামের বাড়িতে এসেছে:শোকার্ত জনতার ঢল জগন্নাথপুরে শিশুর মৃত্যু:’শিশুটি যখন মৃত্যুের যন্ত্রনায় চটপট করছিল,যখন ডাক্তার-নার্স ঘুমে’ জগন্নাথপুর পৌরসভার মেয়র আব্দুল মনাফ এর মরদেহ গ্রামের বাড়িতে এসেছে শোকার্ত জনতার ঢল জগন্নাথপুরের চিলাউড়া হলদিপুর ইউনিয়ন আ.লীগের সম্মেলন সম্পন্ন হলেও কমিটি হয়নি

ঘূর্ণিঝড় ফণীর আক্রমন থেকে ফসলরক্ষায় জগন্নাথপুরে ধান কাটতে মাইকিং

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, ৩ মে, ২০১৯
  • ৫৭৪ Time View

বিশেষ প্রতিবেদক :: ঘূর্ণিঝড় ফণীর প্রভাব থেকে বোরো ফসল রক্ষায়
সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার কৃষকদের কে দ্রুত ধান কাটার জন্য মাইকিং করে আহ্বান জানানো হয়েছে।  বৃহস্পতিবার উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে এ আহ্বান জানানো হয়।এছাড়াও পানি উন্নয়ন বোর্ড ও উপজেলা কৃষি কার্যালয় থেকে পৃথক পৃথক বার্তায় ধান কাটার আহ্বান জানানো হয়।
পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ সহকারী প্রকৌশলী নাসির উদ্দীন জানান,

গত ৩০ এপ্রিল থেকে ২ মে পর্যন্ত প্রকৃতির বিরূপ প্রভাবের কারণে সুনামগঞ্জের সুরমা নদীর পানি অস্বাভাবিক বৃদ্ধি পেয়েছে। এই তিন দিনের ব্যবধানে সুরমা নদীর পানি সুনামগঞ্জে ১০ ফুট বৃদ্ধি পেয়েছে। তিনি বলেন, যেখানে হাওরের বেড়িবাঁধ গুলোর ডিজাইন লেভেল (উচ্চতা) ৬.৫০ মিটার সেখানে বর্তমানে সুনামগঞ্জে সুরমা নদীর পানি ৪.৩৮ মিটার। যেখানে বিপদসীমা ৫.৪৭। এই (৫.৪৭) লেভেল এ নদীর পানি অতিক্রম করলে হাওরের ডুবন্ত বাঁধগুলোর ভিত্তি দূর্বল হতে শুরু করবে, এমনকি কোন কোন হাওরের বাঁধ ভেঙ্গে পানিও প্রবেশ করতে পারে।
সিলেট তথা ভারতের চেরাপুঞ্জি ও বরাক বেসিন এর পানি সুনামগঞ্জের নদীসমূহে এখনও পুরোপুরিভাবে নেমে আসেনি। যখন নেমে আসবে তখনই হাওরে বিপদের আশনিসংকেত হয়ে দাঁড়াবে।
তাছাড়া আগামী শনিবার হতে ঘূর্ণিঝড় ফণীর প্রভাবে নিম্নচাপের ফলে কালবৈশাখী ঝড় ও শিলাবৃষ্টির আশংকা বিদ্যমান। তাই কৃষকদের অপেক্ষা না করে সব ধান দ্রুত কাটতে আমরা আহ্বান জানিয়ে প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছি।
জগন্নাথপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শওকত ওসমান মজুৃমদার বলেন,জগন্নাথপুর উপজেলার বৃহৎ হাওর নলুয়া,মইয়া পিংলার হাওরে শতভাগ ধান কাটা শেষ। কিছু উচু এলাকায় ধান কাটার বাকি রয়েছে। গতকাল পর্যন্ত আমাদের হিসেবে
৯৪ শতাংশ ধান কাটা হয়েছে। প্রাকৃতিক বিপর্যয় থেকে ফসল রক্ষায় আমরা ব্যাপক প্রচারনার পাশাপাশি জমিতে গিয়ে গিয়ে দ্রুত ধান কাটতে কৃষকদেরকে বলছি।
জগন্নাথপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান বলেন, আবহাওয়া অধিদপ্তরের সর্তক বার্তা অনুযায়ী ঘুর্ণিঝড় ফণীর প্রভাবে
হাওর সমূহের পাকা ধানের ক্ষতি হতে পারে তাই পাকা ধান ফেলে না রেখে দ্রুত কেটে ঘরে তুলতে কৃষক ভাইদের মাইকিং করে জানানো হয়েছে।
জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহ্ফুজুল আলম জানান আমরা কৃষকদেরকে ধান কাটার পাশাপাশি সর্তক বার্তা জানিয়ে দূর্যোগ ব্যবস্হানা কমিটির সভা করে প্রস্তুুতি নিয়েছি।

 

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24