শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ১০:০৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে দুইপক্ষের বিরোধে বলি হলো মাদ্রাসার ছাত্র সাব্বির জগন্নাথপুরে ছিনতাইকৃত গ্রামীণফোনের রিচার্জ কার্ড-অর্থসহ ডাকাত গ্রেফতার জগন্নাথপুরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে শিশু নিহত জগন্নাথপুরে অটোচালককে হত‌্যা করে লাশ ডোবায় ফেলে দিল দুবৃর্ত্তরা জগন্নাথপুরে ‘ভুয়া’নাগরিক সনদধারীদের ঠেকাতে জনপ্রতিনিধিদের দ্বারে দ্বারে স্থানীয়রা জগন্নাথপুরে মেধাবী শিক্ষার্থীদের সম্মাননা প্রদান যুবলীগ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী রোববার মিটিং ডেকেছেন : ওবায়দুল কাদের দেশে দারিদ্র কমলেও বৈষম্য বাড়ছে:পরিকল্পনামন্ত্রী জগন্নাথপুরে শুক্রবার সকাল ৬টা ১২টা ও শনিবার ৮ থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত বিদ্যুৎ থাকবে না জগন্নাথপুরে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প ও উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত

জগন্নাথপুরে নৌপথে বেপরোয়া ‘চাঁদাবাজি’,চাঁদা না দিলে শ্রমিকদের মারধর করে লুটে নেয় মালামাল

বিশেষ প্রতিনিধি::
  • Update Time : রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
  • ৪৫৬ Time View
সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়া কুশিয়ারা নদীর মোকামের খাল এলাকায় নৌযানে চাঁদাবাজির অভিযোগ পাওয়া গেছে।
আজ রোববার চাঁদাবাজির শিকার ভুক্তভোগীরা জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এর নিকট চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে ব্যবস্হা গ্রহণের দাবি জানিয়ে লিখিত আবেদন করেছেন।
লিখিত অভিযোগে বলা হয়, সিলেটের বালাগঞ্জ, শেরপুর ও সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর ও দিরাই উপজেলায় বিভিন্ন পণ্য পরিবহনের নৌপথে যাতায়াত করতে কুশিয়ারা নদীর মোকামের খাল হয়ে যাতায়াত করতে হয়। মোকামের খাল এলাকাটি সিলেটের বালাগঞ্জ,হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ ও সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর মিলিয়ে তিন উপজেলার সীমান্তে অবস্থিত। সীমান্তবর্তী দিঘলবাক গ্রামের রবিউল মিয়ার নেতৃত্বে একদল চাঁদাবাজ নৌযান গুলো আটকে প্রতিদিন চাঁদাবাজি করছে। চাঁদা না দিলে নৌশ্রমিকদের মারধর করে জোরপূর্বক নৌকা ডুবিয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে নৌকা থেকে মালামাল লুট করে নিয়ে যায়।
দিরাই উপজেলার ফতেহপুর গ্রামের নৌশ্রমিক মোস্তাক মিয়া বলেন, কুশিয়ারা নদীর মোকামের খাল হয়ে প্রতিদিন শত শত নৌযান বালু,পাথর ও নিত্য প্রয়োজনীয় মালামাল নিয়ে সিলেট,সুনামগঞ্জ ও হবিগঞ্জের বিভিন্ন উপজেলার হাট বাজারে আমরা পৌঁছে দেই। কিন্তু দুঃখের বিষয় তিন মাস ধরে মোকামের খাল এলাকায় একটি সংঘবদ্ধ চাঁদাবাজ চক্র আমাদের নৌকা আটকিয়ে আমাদের কাছ থেকে নৌকা প্রতি এক থেকে দুই হাজার টাকা চাঁদা আদায় করছে।
আরেক নৌশ্রমিক ফাজিলপুর গ্রামের কামাল মিয়া জানান, চাঁদা না দিলে নৌকাগুলো যাতায়াতে বাধা প্রদান ও শ্রমিকদের সাথে দূরব্যবহার করার পাশাপাশি নৌকা থেকে  মালামাল লুট করে নিয়ে যায়।
দিঘলবাক গ্রামের জিতু মিয়া বলেন,প্রায় দিনই নৌশ্রমিকরা চাঁদাবাজির শিকার হচ্ছেন বলে আমাদেরকে জানাচ্ছেন। আমরা তাদেরকে আইনের আশ্রয় নিতে বলেছি।
এ বিষয়ে জানতে চাঁদাবাজির অভিযোগে অভিযুক্ত রবিউল মিয়ার সঙ্গে মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তার মুঠোফোন বন্ধ পাওয়া যায়।
আশারকান্দি ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান বকুল দাস জানান, মোকামের খাল এলাকায় নৌচলাচলে বাধা প্রদানের বিষয়ে অভিযোগ পেয়ে অভিযুক্তদের জিজ্ঞাসাবাদ করলে তারা জানান নৌচলাচলের কারণে নদীর পাড়ে তাদের বসতভিটা ভেঙে যাচ্ছে তাই
 তারা বাড়িঘর রক্ষায় বাধা দিচ্ছেন। আমরা নৌচলাচলে বাধা না দিতে তাদের কে বলেছি।
জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও ) এর দায়িত্বে থাকা সহকারী কমিশনার ভূমি ইয়াসির আরাফাত জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকেবলেন, কুশিয়ারা নদীর মোকামের খাল এলাকায় নৌযানে চাঁদাবাজির একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি তদন্ত করে আইনানুগ পদক্ষেপ গ্রহন করা হবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24