বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯, ০৯:০৭ অপরাহ্ন

জগন্নাথপুরে ভুয়া নাগরিক-প্রমাণ মিলল চারজনের, পদক্ষেপ নিতে প্রতিমন্ত্রীর এমএ মান্নানের নিকট আবেদন

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮
  • ৮২ Time View

বিশেষ প্রতিনিধি::
সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ২০১৪ এর চুড়ান্ত ফলাফলে উর্ত্তীণ বহিরাগত শিক্ষকদের যোগদান না দেওয়ার দাবীতে এলাকাবাসীর দাবির সাথে জগন্নাথপুরের স্থানীয় শিক্ষকরা একাট্টা হয়েছেন। এবিষয়ে পদক্ষেপ নিতে সোমবার বিকেলে অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নানের শিক্ষকরা লিখিতভাবে একটি অভিযোগ দিয়েছেন।
এর আগে বহিরাগত শিক্ষকদের ঠেকাতে গত শুক্রবার (২১ সেম্পেম্বর) স্থানীয় শিক্ষকরা একসভা করে এ বিষয়ে একমত পোষন করে ভুয়া নাগরিকসনদধারী বহিরাগত শিক্ষকদেরকে জগন্নাথপুরে যোগদান না করাতে শিক্ষা কর্মকর্তার নিকট দাবি জানান।
উপজেলার ঘোষগাঁও সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুদীপ ভট্রাচার্য্য জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, গত ১৪ সেপ্টেম্বর প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর ২০১৪ এর সহকারী শিক্ষক নিয়োগ ফলাফলের আলোকে আমরা জানতে পারি জগন্নাথপুর উপজেলায় ভুয়া নাগরিক সার্টিফিকেটের মাধ্যমে চারজন শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় উর্ত্তীণ হয়েছেন। তাদের যোগদান বাতিলের জন্য স্থানীয় সংসদ সদস্য অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্র এম এ মান্নান ও উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার নিকট লিখিতভাবে দাবী জানিয়েছি।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, দীর্ঘ দিন ধরে জগন্নাথপুরে বহিরাগত শিক্ষকদের দৌরাত্ব্য চলছে। এ থেকে পরিত্রান পেতে সাম্প্রতিককালে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, মন্ত্রনালয়ের সচিব, এবং সিলেট বিভাগীয় কমিশনারসহ সরকারী বিভিন্ন উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের বরাবর লিখিত আবেদন করেন এলাকাবাসী।তারপরও কমছে না বহিরাগতদের দাপট। ২০১৪ সালের প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক পরীক্ষায় মৌখিত পরীক্ষা গত আগষ্ট মাসে সম্পন্ন হয়েছে। ওই পরীক্ষায় জগন্নাথপুর পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডে আশিকুর রহমান ( রোল নং ৫৪২৪৮২০), ৬নং ওয়ার্ডে অনির্বাস দাশ (রোল নং ৫৪২৪৬২১), উপজেলার আশারকান্দি ইউনিয়নে মিজানুর রহমান (৫৪২৩৮০৮) ও আব্দুল মজিদ (রোল নং ৫৪২৫২৯০) ভুয়া নাগরিক সার্টিফিকেটের মাধ্যমে পরীক্ষায় অংশ নেন। এছাড়াও পৌরসভারসহ উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের স্থানীয় নাগরিক সেজে বেশ কয়েকজন নিয়োগপ্রাপ্ত হয়েছেন বলে অভিযোগ রয়েছে।
উপজেলার আশারাকান্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শাহ আবু ঈমানী জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, প্রতারনার মাধ্যমে যারা আমাদের ইউনিয়নের বাসিন্দা সেজে নাগরিক সনদপত্র নিয়েছেন তােেদরকে আমরা সনাক্ত করেছি।
জগন্নাথপুর পৌরসভার মেয়র আব্দুল মনাফ জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, এ বিষয়টি নিয়ে আমরা সচেতনার মাধ্যমে কাজ করছি। যারা ভুয়া নাগরিক সনদ নিয়েছেন তাদেরকে চিহিৃত করা হয়েছে।
জগন্নাথপুর উপজেলার প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা জয়নাল আবেদীন জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, ভুঁয়া নাগরিক সেজে শিক্ষক নিয়োগের বিষয়ে একটি অভিযোগ পাওয়া গেছে। উর্ধত্বন কতৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে এবিষয়ে পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24