সোমবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২০, ০৪:৫৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরসহ সিলেটে ভূমিকম্প জগন্নাথপুরে এখনও পুরোদমে শুরু হয়নি বেড়িবাঁধের কাজ ৪০ দিনের যুদ্ধের জন্য সামরিক সরঞ্জামের মজুদ গড়ছে ভারত দ. সুনামগঞ্জে জমি নিয়ে বিরোধে হামলা ও লুটপাট, আটক ১ বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থান নিয়ে যা বললেন পরিকল্পনামন্ত্রী জগন্নাথপুরে সৈয়দপুর-শাহারপাড়া ইউনিয়ন আ.লীগের সম্মেলন সম্পন্ন পিইসিইর উত্তরপত্র পুনঃনীরিক্ষা ও প্রত্যাশা’ জগন্নাথপুরে শতবর্ষ: ব্রজেন্দ্র নারায়নের উত্তরসূরীদের আবেগাপ্লুত স্মৃতিচারণ জগন্নাথপুরে এসোসিয়েশন কাপ বঙ্গবন্ধু ফুটবল লীগ টুর্নামেন্টের উদ্বোধন সমাজে শান্তি বজায় রাখতে যেসব স্বভাব ত্যাগ করতে বলে ইসলাম

জর্ডানে ব্রিটিশ দূতাবাসে চাকরি পেল বিড়াল!

Reporter Name
  • Update Time : মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর, ২০১৭
  • ৯১ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম ডেস্ক::জর্ডানে ব্রিটিশ দূতাবাসে চাকরি পেয়েছে একটি বিড়াল। ভুল শুনছেন? মোটেই নয়। সত্যিই জর্ডানে ব্রিটিশ দূতাবাসে ‘চিফ মাউসার’ বা ‘প্রধান ইঁদুর শিকারি’ হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছে একটি বিড়াল। আগে উদ্ধারকারী বিড়াল হিসেবে কাজের অভিজ্ঞতা রয়েছে তার।

‘লরেন্স অব আবদুন’, মোটাসোটা কালো–সাদা রঙের বিড়ালটিকে নিয়োগ দেওয়ার পর তার টুইটার অ্যাকাউন্টও খোলা হয়েছে। এর মধ্যে তার অনুসারীর সংখ্যা গিয়ে দাঁড়িয়েছে আড়াই হাজার।

লরেন্স নামটি রাখা হয়েছে টমাস অ্যাডওয়ার্ড লরেন্সের নাম অনুসারে। প্রথম বিশ্বযুদ্ধে টমাস অ্যাডওয়ার্ড লরেন্স আরবের হয়ে অটোমান সাম্রাজ্যের বিরুদ্ধে লড়েছিলেন। তাঁকে ‘লরেন্স অব অ্যারাবিয়া’ও বলা হতো। জর্ডানে ব্রিটিশ দূতাবাস অবস্থিত আম্মানের পার্শ্ববর্তী শহর আবদুনে। সেখান থেকেই ‘আবদুন’ শব্দটি এসেছে। গত মাসে পশু–প্রাণী আশ্রয়কেন্দ্র থেকে নিয়ে আসা হয় ‘লরেন্স অব আবদুন’কে।

জর্ডানে ব্রিটিশ দূতাবাসের কূটনীতিক লরা ডাউবান টুইটে বলেন, ‘মাউসিং ডিউটি ছাড়াও টুইটারে অনুসরণকারীদের কাছে পৌঁছে গেছে ও। খুবই মজার যে ব্রিটিশ নাগরিকেরা জর্ডানে দেশের দূতাবাসকে এখন একটি অন্য দৃষ্টিতে দেখবে। লরেন্সের টুইটার অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে আমরা জর্ডানের এমন দিক দেখানোর চেষ্টা করছি, যা সত্যিই ভীষণ ভালো, শান্তিপূর্ণ, সমৃদ্ধ।’ এখানে ব্রিটিশ পর্যটকদের পরিদর্শনে আসা উচিত বলেও মন্তব্য করেন তিনি।
তবে টুইটারে ‘ডিপ্লোম্যাটিক ক্যাট’ পরিচয় করিয়ে দেওয়ার পর অনুসারীদের ট্রলের শিকার হয়েছে লরেন্স। ডাউবান টুইটে লেখেন, সে কিছুটা কষ্ট পেয়েছে, কারণ টুইটে অনেকে তাকে মোটু বলে মন্তব্য করেছে। এ অবস্থায় কিছুটা ব্যায়াম করছে সে।

এর আগে গত বছর ইঁদুরের উৎপাত ঠেকাতে যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র কার্যালয়ে নিয়োগ দেওয়া হয় পালমারস্টোন নামের এক বিড়ালকে। টুইটারে এক বছরে ওই বিড়ালের অনুসারী ৫৭ হাজার। মন্ত্রণালয় থেকে নিয়মিত পালমারস্টোনের কাজের আপডেট দেওয়া হয়।

এর আগে ২০১১ সালে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে ইঁদুর মারতে ল্যারি নামের একটি বিড়ালকে নিয়োগ দেওয়া হয়। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন ওই সময় বলেছিলেন, ল্যারি ইঁদুর ধরতে খুবই পরিশ্রম করে যাচ্ছে। ল্যারি নামের ওই বিড়ালটির টুইটার অ্যাকাউন্টও আছে। গত বছর পর্যন্ত টুইটারে তার অনুসারীর সংখ্যা ছিল ৪৭ হাজার ৫০০।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24