রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৬:২৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
পড়াশোনার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের নামাজ শেখানো হয় যে বিদ্যালয়ে পানির নিচে প্রেমিকাকে বিয়ের প্রস্তাব দিতে গিয়ে মৃত্যু! সিলেটে চারদিনের রিমান্ডে পিযুষ যুক্তরাষ্ট্রে বন্দুকধারীর গুলিতে নিহত ২ জগন্নাথপুরে ৩৯টি মন্ডপে দুর্গাপূজার প্রস্তুতি,চলছে প্রতিমা তৈরীর কাজ জগন্নাথপুর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কমিটির বিরুদ্ধে অপপ্রচারে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত জগন্নাথপুরে ৬ মাসেও বকেয়া টাকা মিলেনি, ঋণের চাপে দিশেহারা পিআইসিরা জগন্নাথপুরে ৬ মাসেও বকেয়া টাকা মিলেনি, ঋণের চাপে দিশেহারা পিআইসিরা বেড়াতে গিয়ে বাড়ি ফেরার পথে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় প্রাণ গেল জগন্নাথপুরের এক যুবকের মাথায় ৪ ইঞ্চি লম্বা শিং এই বৃদ্ধের!

থানাহাজত থেকে আসামির লাশ উদ্ধার

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ২৬ জুলাই, ২০১৭
  • ৫৩ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম ডেস্ক :: থানা-পুলিশের হেফাজতে রিমান্ডে থাকা এক আসামির লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। বুধবার দুপুরে চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোল থানার শৌচাগার থেকে ওই লাশ উদ্ধার করা হয়।

পুলিশের ভাষ্য, ওই আসামি আত্মহত্যা করেছেন। তবে আসামির পরিবারের সদস্যরা অভিযোগ করেছেন, পুলিশের নির্যাতনে তাঁর মৃত্যু হয়েছে। পরে পুলিশ আত্মহত্যার নাটক সাজিয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ সুপারের নির্দেশে অতিরিক্ত পুলিশ সুপারকে প্রধান করে তিন সদস্যবিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

আসামির নাম মাহফুজ আলম (২৭)। এক রোগীর মৃত্যুর ঘটনায় করা মামলায় তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে পুলিশ জানতে পারে, অন্যের সনদ জাল করে তিনি চিকিৎসা দিয়ে আসছিলেন। মাহফুজ নওগাঁর বদলগাছী উপজেলার জগদিসপুর গ্রামের আবু বাক্কারের ছেলে।

নাচোল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন বলেন, মাহফুজ শৌচাগারে ঢুকে ফুলপ্যান্ট খুলে দরজার সঙ্গে আটকে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেন। নাচোল উপজেলার জননী ক্লিনিকে এক রোগীর মৃত্যুর ঘটনায় ২০ জুলাই দিবাগত রাতে তাকে ওই ক্লিনিক থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

ওসি জানান, মাহফুজকে দুই দিনের রিমান্ডে মঙ্গলবার বিকেলে নাচোল থানায় নিয়ে আসা হয়। বুধ ও বৃহস্পতিবার ছিল নির্ধারিত রিমান্ডের দিন। কিন্তু বুধবার দুপুর সোয়া একটার দিকে কর্তব্যরত কনস্টেবল দেখেন, অনেকক্ষণ হয়ে গেলেও মাহফুজ আলম শৌচাগার থেকে বের হচ্ছেন না। কিছুক্ষণ ডাকাডাকির পর কোনো সাড়া না পেয়ে ওই কনস্টেবল কর্তব্যরত কর্মকর্তাকে খবর দেন। বেলা তিনটার দিকে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুল কাদের, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মাদ নাজমুল হক, নাচোল পৌর মেয়র আবদুর রশিদ খান, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা শফিকুল ইসলামসহ স্থানীয় সাংবাদিকদের সামনে কাঠমিস্ত্রি দিয়ে টয়লেটের দরজা ভেঙে পুলিশ ভেতরে ঢুকে এবং ঝুলন্ত অবস্থায় থাকা লাশটি উদ্ধার করে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। মাহফুজের পরিবারের কাছে তাঁর মৃত্যুর খবর পাঠানো হয়েছে।

ওসি বলেন, মাহফুজ পরিচয় গোপন করে সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলায় কর্মরত সরকারি চিকিৎসক মাসুদ রানার এমবিবিএস পাসের সনদ জাল করেন। নিজেকে চিকিৎসক মাসুদ রানা পরিচয় দিয়ে রোগীর চিকিৎসা করে আসছিলেন।

মাহফুজ আলমের বড় ভাই শাহিনুল ইসলাম বলেন, ‘আমার ভাইকে পুলিশ নির্যাতন করে হত্যা করেছে। এ ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ার জন্যই পরে পুলিশ আত্মহত্যার নাটক সাজিয়েছে। আমি এ ঘটনায় আদালতে মামলা করব। আমি এর বিচার বিভাগীয় তদন্ত ও জড়িত ব্যক্তিদের শাস্তি চাই।’

১৭ জুলাই সন্ধ্যায় নাচোলের নেজামপুর ইউনিয়নের বাইপুর গ্রামের নাসির উদ্দিনের মেয়ে সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী নাহিদা খাতুন পেটে ব্যথা নিয়ে জননী ক্লিনিকে ভর্তি হয়। ওই ক্লিনিকের কর্তব্যরত চিকিৎসক মাহফুজ আলম রোগীর অ্যাপেনডিকসের প্রদাহ হয়েছে বলে দ্রুত অস্ত্রোপচারের কথা বলেন। রোগীর পরিবারের সম্মতিতে মাহফুজ আলম ওই রাতেই নাহিদার অস্ত্রোপচার করেন। ১৯ জুলাই নাহিদার অবস্থার অবনতি হলে তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানকার চিকিৎসক নাহিদাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরদিন রোগীর বাবা নাসির উদ্দিন বাদী হয়ে মাহফুজ আলমসহ অজ্ঞাতনামা আরও কয়েকজনকে আসামি করে মামলা করেন। এরপর মাহফুজকে ওই দিন রাতেই ক্লিনিক থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

পরে পুলিশ জানতে পারে, মাহফুজ পরিচয় গোপন করে সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলায় কর্মরত সরকারি চিকিৎসক মাসুদ রানার এমবিবিএস পাসের সনদ জাল করে নিজেকে চিকিৎসক মাসুদ রানা পরিচয় দিয়ে চিকিৎসা করে আসছিলেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24