শনিবার, ২৪ অগাস্ট ২০১৯, ০১:৪৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
ঠিকাদারের দায়িত্বহীনতায় জগন্নাথপুর-বেগমপুর সড়কে অসহনীয় দুর্ভোগ জগন্নাথপুরের টমটম চালকের হত্যাকাণ্ড উন্মোচিত,ঘাতকের স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দি প্রদান জগন্নাথপুরে বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনায় জন্মাষ্টমী উদযাপন জগন্নাথপুরে সরকারি গাছ কাটায় সেই যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের ভারত-পাকিস্তান গুলি বিনিময় প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষা ১৭ নভেম্বর টমটম গাড়ীর জন্য জগন্নাথপুরের এক চালককে রশিদপুরে নিয়ে খুন,গ্রেফতার-১ জেলা আ.লীগের গণমিছিল ৫ বছরেও শেষ হয়নি জগন্নাথপুরের ভবেরবাজার-গোয়ালাবাজার সড়কের কাজ,দুর্ভোগ লাখো মানুষের “জুম্মু কাশ্মীরে,গণতহ্যা শুরু করেছে মোদী সরকার”

দলীয় সভানেত্রীর নিকট জামালগঞ্জ আ.লীগের পাল্টাপাল্টি অভি্যোগ

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, ১ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯
  • ৮৭ Time View

জগন্নাথপুর২৪ ডেস্ক::
চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রার্থী তালিকা তৈরি করাকে কেন্দ্র করে জামালগঞ্জের আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে চরম কোন্দল দেখা দিয়েছে। দলের গঠনতন্ত্র লঙ্ঘন করার অভিযোগ এনে বৃহস্পতিবার উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলী ও সাধারণ সম্পাদক এম নবী হোসেনের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনার কাছে লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে। অন্যদিকে, এই উপজেলার সাচনা বাজার ইউপি চেয়ারম্যান জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রেজাউল করিম শামীমের বিরুদ্ধে জাতীয় নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়ার কথা দলীয় সভানেত্রীর কাছে লিখিতভাবে জানানো হয়েছে।
অভিযোগ করেছেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি সাচনাবাজার ইউপি চেয়ারম্যান রেজাউল করিম শামীম সমর্থক জামালগঞ্জ উপজেলা ও ইউনিয়ন আ.লীগের ৪৯ জন দায়িত্বশীল নেতাকর্মী।
অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, জামালগঞ্জ উপজেলা ও বিভিন্ন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের পদধারী নেতাকর্মীদের নিয়ে গত ২৯ জানুয়ারী আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী নির্বাচনের জন্য গোপন ব্যালেটের দাবি তোলেন উপজেলা কমিটির অধিকাংশ নেতৃবৃন্দ। কিন্তু উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলী ও সাধারণ সম্পাদক এম নবী হোসেন তা অগ্রাহ্য করে উপস্থিত সবাইকে আগে স্বাক্ষর ও পরে ভোট গ্রহণের কথা বলেন। এ নিয়ে উপস্থিত নেতৃবৃন্দের মাঝে মতানৈক্য দেখা দিলে পরদিন ৩০ জানুয়ারী সকাল ১১টায় পর্যন্ত সভা মূলতবি ঘোষণা করেন। পরদিন মূলতবি সভা না করেই সভাপতি-সম্পাদক ঢাকা চলে যান।
লিখিত অভিযোগে আরো উল্লেখ করা হয়, ‘উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক উপজেলা ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দের মতামত উপেক্ষা করে দলীয় চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে স্বাধীনতা বিরোধী মৃত: আবদুল বারি চৌধুরীর ছেলে আব্দুল মুকিত চৌধুরীর একক নাম প্রস্তাব করাই ছিল তাদের একান্ত উদ্দেশ্য। উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের প্রস্তাবিত পছন্দের দলীয় প্রার্থী আব্দুল মুকিত চৌধুরীর পিতা আব্দুল বারি চৌধুরী থানা শান্তি কমিটির অন্যতম সদস্য ছিলেন। এছাড়া আব্দুল মুকিত চৌধুরীর আপন বড় ভাই রফিকুল বিন বারি উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি ও ছোট ভাই ফখরুল আলম চৌধুরী উপজেলা জামায়াতে ইসলামীর সাধারণ সম্পাদক।’
এ বিষয়ে জামালগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলী বলেন, ‘গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলের প্রার্থীর বিরুদ্ধে কাজ করেছেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি সাচনাবাজার ইউপি চেয়ারম্যান রেজাউল করিম শামীম। নির্বাচনে তাঁর সেন্টারে আওয়ামী লীগ ফেল করেছে। এই বিষয়টি আমরা দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতির কাছে লিখিতভাবে জানিয়েছি।
আমাদের এমপি সাহেব মোয়াজ্জেম হোসেন রতন আজ জানিয়েছেন শামীমকে শোকজ করা হয়েছে। এর জের ধরেই আমাদের বিরুদ্ধে এমন ভিত্তিহীন অভিযোগ করা হয়েছে।’ তিনি আরো বলেন, আমাদের কেন্দ্র থেকে ৩১ জানুয়ারির মধ্যে প্রার্থী তালিকা দিতে বলা হয়েছিলো। এর ১ দিন আগে ভোট করা সম্ভব ছিলো না। আমরা আলোপ আলোচনার মাধ্যমে প্রার্থী তালিকা করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করি। এ বিষয়ে আমাদের জেলা কমিটির সভাপতি মতিউর রহমান এবং সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এম এনামুল কবির ইমন সাহেবের সাথেও কথা হয়েছে। আমাদের প্রার্থী তালিকা এখনও চূড়ান্ত হয়নি। আমরা আজ (শুক্রবার) অথবা আগামী শনিবার সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সাথে বসে প্রার্থী তালিকা চূড়ান্ত করব। আমরা কোন অন্যায় করি নাই, করবও না। কাউকে অন্যায় সুযোগও দেব না। এসব অভিযোগ মিথ্যা।’

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24