রবিবার, ২৫ অগাস্ট ২০১৯, ০৭:২৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে নৌকাবাইচ:এবার সোনার নৌকা,সোনার বৈঠা জিতল কুতুব উদ্দিন তরী জগন্নাথপুরে সড়ক সংস্কার-অবৈধ যান অপসারণের দাবীতে আন্দোলনের হুঁশিয়ারি মালিক,শ্রমিক নেতারদের জগন্নাথপুরে এনজিও সংস্থা আশা’র উদ্যোগে তিনদিন ব্যাপি ফিজিওথেরাপী চিকিৎসা ক্যাম্প শুরু জগন্নাথপুরে মারামারি মামলাসহ বিভিন্ন ওয়ারেন্টের ১১ আসামী গ্রেফতার জগন্নাথপুরে পুকুরের পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু জগন্নাথপুরে ডেঙ্গু প্রতিরোধে সচেতনতামুলক সভা অনুষ্ঠিত ২১ আগস্টের মাস্টারমাইন্ডদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করতে আপিল করা হবে: ওবায়দুল কাদের ধর্মীয় শিক্ষার প্রয়োজন চিরদিন ৭১’র বয়স ৫ মাস,তবুও মানবতাবিরোধী অপরাধে সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা,প্রত্যাহারের দাবী ঠিকাদারের দায়িত্বহীনতায় জগন্নাথপুর-বেগমপুর সড়কে অসহনীয় দুর্ভোগ

দিরাই-শাল্লায় নির্বাচনী হাওয়া- দুই হেভিওয়েট প্রার্থীর ক্লান্তিহীন গণসংযোগ

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, ৫ আগস্ট, ২০১৭
  • ৩৩ Time View

বিশেষ প্রতিনিধি ও আবু হানিফ চৌধুরী
সুনামগঞ্জের আলোচিত নির্বাচনী আসন দিরাই-শাল্লায় ৭৫ বছর বয়সি দুই হেভিওয়েট প্রার্থী সমানতালে গণসংযোগ করছেন। গত প্রায় ১৫ দিন হয় এই আসনের বর্তমান এমপি প্রয়াত রাজনীতিক সুরঞ্জিত সেন গুপ্তের স্ত্রী ড. জয়া সেন গুপ্তা একনাগারে বিভিন উন্নয়ন কর্মসূচিতে অংশগ্রহণের পাশাপাশি, সাংগঠনিক বিভিন্ন কর্মসূচিতেও যোগ দিয়েছেন। পিছিয়ে নেই বিএনপি’র কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য, এই আসনের সাবেক সংসদ সদস্য নাছির উদ্দিন চৌধুরীও। গত ১০ দিনে তিনি নির্বাচনী এলাকার ৬ টি ইউনিয়নে গণসংযোগ করেছেন। দুই শক্তিশালী প্রার্থী’র লাগাতার গণসংযোগে দিরাই-শাল্লায় জাতীয় নির্বাচনের আমেজ সৃষ্টি হয়েছে। সুনামগঞ্জের ৫ টি আসনের কোথাও প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীরা গণসংযোগে এমন সক্রিয় নয়।
প্রয়াত জাতীয় নেতা সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত দিরাই-শাল্লা আসন থেকে ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি ন্যাপ’র প্রার্থী হিসাবে ১৯৭০ সালের প্রাদেশিক পরিষদ নির্বাচনে এমপিএ নির্বাচিত হবার পর থেকেই এই আসনটি জাতীয়ভাবে আলোচনায় ওঠে আসে। এরপর ন্যাপ, ৮ দলীয় ঐক্যজোট, ১৫ দলীয় ঐক্যজোট এবং আওয়ামী লীগে যোগদান করে সব মিলিয়ে ৭ বার এই আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত। ১৯৯৬ সালের জাতীয় নির্বাচনে সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত দিরাই-শাল্লায় পরাজিত হয়েছিলেন। ঐ সময় তিনি পরাজয়ের জন্য দলীয় অভ্যন্তরীণ কোন্দলকে দায়ী করেছিলেন। তবে ঐ মেয়াদেই হবিগঞ্জের আজমিরিগঞ্জ-বানিয়াচঙ থেকে উপ-নির্বাচনে এমপি নির্বাচিত হয়েছিলেন প্রয়াত এই রাজনীতিক।
সুরঞ্জিত সেন গুপ্তের মৃত্যুর পূর্ব পর্যন্ত এখানে লড়াই হয়েছে সুরঞ্জিত ও নাছিরের। গত ৫ ফেব্রুয়ারি সুরঞ্জিত সেন গুপ্তের জীবনাবসান হওয়ায় আসনটি শূন্য হয়। ৩০ মার্চ এই আসনের উপ-নির্বাচনে প্রায় ৫৫ হাজার ভোটের ব্যবধানে জয়ী হন সুরঞ্জিতের স্ত্রী ড. জয়া সেন গুপ্তা।
নির্বাচনে বিএনপি অংশ না নিলেও প্রয়াত সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত’র নির্বাচনী প্রতিদ্বন্দ্বি স্বতন্ত্র প্রার্থী ছায়েদ আলী মাহবুব হোসেনকে নিয়ে নাছির উদ্দিন চৌধুরী সক্রিয়ভাবে মাঠে ছিলেন। আওয়ামী লীগের একটি অংশও প্রকাশ্যে বিরোধিতা করেছিল।
রাজনৈতিক সচেতন এলাকা দিরাই-শাল্লাজুড়ে উপ-নির্বাচনের ৪ মাস যেতেই আবারও জাতীয় নির্বাচনের আমেজ সৃষ্টি হয়েছে। আগামী জাতীয় নির্বাচনে দীর্ঘদিনের ধারাবাহিকতায় সুরঞ্জিত পরিবারের সঙ্গেই নাছির চৌধুরী’র পরিবারের লড়াই হবে বলেই মনে করছেন দিরাই-শাল্লাবাসী।
বর্তমান সংসদ সদস্য ড. জয়া সেন গুপ্তা গত ১৭ জুলাই থেকে ১৫ দিন এই আসনের প্রত্যন্ত এলাকায় নানা কর্মসূচিতে যোগ দেবার পাশাপাশি সাংগঠনিক কর্মকান্ডেও অংশ নিয়েছেন। গত বুধবার (২ আগস্ট) ফিরেছেন ঢাকায়।
এই ১৫ দিনে ড. জয়া সেন গুপ্তা নির্বাচনী এলাকার শাল্লা উপজেলায় ৫ দিন কাটিয়েছেন। শাল্লার প্রতাপপুর ও ফয়জুল্লাপুরের বেড়িবাঁধ ভাঙন এলাকা ঘুরে দেখেছেন। বাহাড়া ও হবিবপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে গণ-সংযোগ করেছেন। শাল্লা উপজেলায় সরকারী বিভিন্ন কর্মসূচীতে যোগদানের পাশাপাশি দলীয় কর্মীসভায়ও অংশ নিয়েছেন।
সাবেক সংসদ সদস্য নাছির উদ্দিন চৌধুরীও গত ১০ দিন ধরে একনাগারে গণসংযোগে রয়েছেন। শাল্লা উপজেলার রফিনগর, হবিবপুর, আটগাঁও ও বাহাড়া, দিরাই উপজেলার রফিনগর এবং গতকাল (শুক্রবার) ভাটিপাড়ায় গণ-সংযোগ করেছেন এই নেতা।
নাছির উদ্দিন চৌধুরী বলেন,‘আমি ৩ বছর জেলা বিএনপি’র দায়িত্বে থাকায় নির্বাচনী এলাকায় গণসংযোগ করতে পারিনি। নেতা-কর্মীদের সঙ্গে যোগাযোগ কম ছিল। এটি পূরণ করার জন্য গণসংযোগ শুরু করেছি। আগামী ১৮ আগস্ট পর্যন্ত আমার এক নাগারে গণসংযোগ কর্মসূচি রয়েছে। এরপর নতুন কর্মসূচি দেব। শরীর ভাল থাকলে আমার এই গণসংযোগ আগামী নির্বাচন পর্যন্ত চলবে।
ড. জয়া সেন গুপ্তা বলেন,‘আমি নব-নির্বাচিত, নির্বাচনের পর এবং হাওরে ফসলহানির পর অনেকের সঙ্গে দেখা হয়নি। এজন্যই আমি-সাক্ষাৎ শুরু করছি। আরও দেখা করবো। আমি রাজনীতিতে নতুন, তবুও দিরাই-শাল্লাবাসী আমাকে নির্বাচিত করেছেন। কৃতজ্ঞতার বন্ধনে আবদ্ধ করেছেন। আমি তাঁদের সঙ্গে দেখা করা শুরু করেছি, এটি অব্যাহত রাখবো এবং আমাদের সরকারের পল্লী বান্ধব-কৃষিবান্ধব মন্ত্রী’র তত্বাবধানে এবং আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে যে ত্রাণ কার্যক্রম চলছে এটি যাতে সুষ্ঠুভাবে মানুষের কাছে পৌঁছে, সেটি দেখার জন্যও আমি মানুষের পাশে থাকবো।’
দিরাই উপজেলা শিক্ষক সমিতিরি সাধারণ সম্পাদক সর্দার গোলাম মোস্তফা রুমি বলেন,‘নির্বাচন আরও এক বছরের বেশি সময় বাকী রয়েছে, এটি দিরাই-শাল্লায় এসে বোঝার উপায় নেই। সকলের মুখে মুখেই নির্বাচনী আলোচনা। আওয়ামী লীগ ও বিএনপি’র দুই হেভিওয়েট প্রার্থীও সমানতালে রয়েছেন গণ-সংযোগে। বয়সে প্রবীণ হলেও গণসংযোগ এবং সভা সমাবেশ দুজনেই চালাচ্ছেন ক্লান্তিহীনভাবে।’ একই মন্তব্য করলেন শাল্লা উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি বিশ্বজিৎ চৌধুরী নান্টু।
এদিকে, দিরাই-শাল্লা আসনে আগামী জাতীয় নির্বাচনে মনোনয়ন প্রাপ্তির আশায় ফেইসবুক কিংবা গণ-মাধ্যম কেন্দ্রীক প্রচারণায় রয়েছেন আওয়ামী লীগের অ্যাড. শামছুল ইসলাম, অবনী মোহন দাস এবং বিএনপি’র লন্ডন প্রবাসী তরুণ নেতা অ্যাড. তাহির রায়হান চৌধুরী পাভেল।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24