শনিবার, ২৪ অগাস্ট ২০১৯, ০৬:০৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
ঠিকাদারের দায়িত্বহীনতায় জগন্নাথপুর-বেগমপুর সড়কে অসহনীয় দুর্ভোগ জগন্নাথপুরের টমটম চালকের হত্যাকাণ্ড উন্মোচিত,ঘাতকের স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দি প্রদান জগন্নাথপুরে বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনায় জন্মাষ্টমী উদযাপন জগন্নাথপুরে সরকারি গাছ কাটায় সেই যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের ভারত-পাকিস্তান গুলি বিনিময় প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষা ১৭ নভেম্বর টমটম গাড়ীর জন্য জগন্নাথপুরের এক চালককে রশিদপুরে নিয়ে খুন,গ্রেফতার-১ জেলা আ.লীগের গণমিছিল ৫ বছরেও শেষ হয়নি জগন্নাথপুরের ভবেরবাজার-গোয়ালাবাজার সড়কের কাজ,দুর্ভোগ লাখো মানুষের “জুম্মু কাশ্মীরে,গণতহ্যা শুরু করেছে মোদী সরকার”

দ. সুনাগঞ্জের প্রাথমিক শিক্ষা- ৯৭টি’র মধ্যে ৬৯ টিতে নেই প্রধান শিক্ষক

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, ২৭ আগস্ট, ২০১৭
  • ২৯ Time View

কাজী জমিরুল ইসলাম মমতাজ, দ. সুনামগঞ্জ
দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার অধিকাংশ প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক নেই। ভারপ্রাপ্ত শিক্ষক দিয়ে চলছে শিক্ষা কার্যক্রম। তাই অধিকাংশ বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষকগণ প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পালন করছেন।
জানা যায়, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলায় ৯৭টি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। তন্মধ্যে বর্তমানে কর্মরত আছেন মাত্র ৩৮ জন প্রধান শিক্ষক। অর্থাৎ ৬৯টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একটিতে প্রধান শিক্ষক নেই। প্রধান শিক্ষক ও সহকারি শিক্ষক সব মিলিয়ে উপজেলায় ১৩৮টি পদ এখনও শূন্য রয়েছে। ফলে উপজেলার প্রাইমারি স্কুলগুলো পরিপূর্ণভাবে শিক্ষা দান করতে পারছে না। অভিভাবক ও উপজেলার সচেতন মহল শিক্ষার এই প্রারম্ভিক স্তরের দুরবস্থাকে দেখছেন গোড়ায় গলদ হিসেবে।
জানা যায়, ভারপ্রাপ্ত শিক্ষকরা ব্যস্ত থাকেন দাপ্তরিক কর্মকান্ড নিয়ে। এতে নিজের জন্যে বরাদ্দকৃত শ্রেণিতেও পাঠদান করতে পারছেন না তারা। শুধুমাত্র প্রধান শিক্ষকের অভাবে বিষয়ভিত্তিক পড়াশোনাতেও পিছিয়ে পড়ছে কোমলমতি শিশুরা। যার নেতিবাচক প্রভাব পড়বে আগামী পরীক্ষাগুলোতে। এছাড়াও উপজেলার অধিকাংশ প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নৌকায় যেতে হয়। ফলে হাওর এলাকায় শিক্ষকরা চাকুরীতে যোগদান করেই বদলীর অপেক্ষায় থাকেন।
জানা যায়, উপজেলার অধিকাংশ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক সুনামগঞ্জ শহরে থাকেন। শহরাঞ্চলের শিক্ষকরা নিয়োগ পেয়ে গ্রামে শিক্ষকতা করতে চান না। যে কারণে গ্রামের শিক্ষার্থীরা সুশিক্ষা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।
উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো. বজলুর রহমান জানান, শিশুদের শিক্ষার প্রথম স্তম্ভ হলো প্রাথমিক শিক্ষা। দীর্ঘদিন ধরে শিক্ষক নিয়োগ নেই। শিক্ষক সংকট থাকা সত্বেও বিদ্যালয়ে পাঠ দান চলছে। তবে বর্তমান সরকার প্রাথমিক শিক্ষার উপর গুরুত্ব দিয়েছেন। শীঘ্র্রই শিক্ষক সংকট সমাধান হবে।’

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24