সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০১:২৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে নৌপথে বেপরোয়া ‘চাঁদাবাজি’,চাঁদা না দিলে শ্রমিকদের মারধর করে লুটে নেয় মালামাল মিরপুরের সেই প্রার্থী আপিলে ফিরলেন নির্বাচনী লড়াইয়ে মিরপুর ইউপি নির্বাচনে প্রার্থিতা প্রত্যাহার করলেন দুইজন, কাল প্রতিক বরাদ্দ পড়াশোনার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের নামাজ শেখানো হয় যে বিদ্যালয়ে পানির নিচে প্রেমিকাকে বিয়ের প্রস্তাব দিতে গিয়ে মৃত্যু! সিলেটে চারদিনের রিমান্ডে পিযুষ যুক্তরাষ্ট্রে বন্দুকধারীর গুলিতে নিহত ২ জগন্নাথপুরে ৩৯টি মন্ডপে দুর্গাপূজার প্রস্তুতি,চলছে প্রতিমা তৈরীর কাজ জগন্নাথপুর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কমিটির বিরুদ্ধে অপপ্রচারে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত জগন্নাথপুরে ৬ মাসেও বকেয়া টাকা মিলেনি, ঋণের চাপে দিশেহারা পিআইসিরা

নবীগঞ্জে এক মুক্তিযোদ্ধার সন্তানকে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টা

Reporter Name
  • Update Time : সোমবার, ২৪ আগস্ট, ২০১৫
  • ৩৯ Time View

রাকিল হোসেন নবীগঞ্জ থেকে:নবীগঞ্জ উপজেলার করগাঁও ইউনিয়নের জন্তরী গ্রামে একটি শ্বশানের জায়গা দখলে ব্যর্থ হয়ে দিন মজুর গোপাল সরকার নামের এক মুক্তিযোদ্ধার সন্তানকে কেরোসিন দিয়ে আগুন লাগিয়ে পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গোপাল সরকারকে মূমুর্ষ অবস্থায় নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপে¬ক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করেন। এ ব্যাপারে গতকাল রবিবারে নবীগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অভিযোগ সূত্রে জানাযায়, উপজেলার করগাঁও ইউনিয়নের জন্তরী গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা গৌরাঙ্গ সরকারের বাড়ির পেছনে থাকা একটি শ্বশান রয়েছে যা জন্তরী গ্রামের হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন ব্যবহার করে আসছেন। কিন্তু এই শ্বশানের জায়গা দখল করতে মরিয়া হয়ে উঠেন একই গ্রামের কথিপয় প্রভাবশালী মৃত আরিফ উল¬াহর ছেলে নজাপত মিয়া। সে এই শ্বশান ব্যবহার না করার জন্য অনেক দিন বাধা, আপত্তি করে নিরিহ হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকদের। এক পর্যায়ে দাফট দেখিয়ে শ্বশানের জায়গা জবর দখল করে ফেলে নজাপত মিয়া। কিন্তু তার ভয়ে এতে কেউ কথা বলতে সাহস পায়নি। পরে নজাপতের নিকট থেকে শ্বশানের জায়গা উদ্ধারের জন্য গোপাল সরকার জেলা প্রশাসক ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবর আবেদন করেন। আবেদনের প্রেক্ষিতে সহকারী কমিশনার (ভূমি) স্থানীয় তহশীলদারের স্বারক নং- ৫৮ ধারায় ১১/০৬/১৫ই প্রতিবেদনের প্রেক্ষিতে গোপালের পরিবারসহ স্থানীয় হিন্দু সম্পদায়ের মানুষদের এই জায়গাটি শ্বশান হিসেবে ব্যবহার করার অনুমতি দেন। এই প্রতিবেদনের পর নজাপত মিয়া ও তার বাহিনী ক্ষুব্দ হয়ে উটে গোপালের উপর। গত শুত্রবার রাত প্রায় ৮টার দিকে নজাপত ও তার লোকজন নবীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজের নিকস্থ রাহুল মিয়ার দোকানের সামনে গোপাল সরকার কে ডেকে নিয়ে আসে এবং নজাপত গোপালকে হুমকি দামকি দিয়ে বলে এই শ্বাশানটি তোমরা আর ব্যবহার করবেনা এবং শ্বশানের এই জায়গাটি তোমাদের প্রয়োজন নেই মর্মে একটি লিখিত দিতে হবে। এতে গোপাল রাজি না হওয়ায় তাকে লাথি, কিল, ঘুষিসহ হাতুরে মারপিট করে এবং গোপালকে ওই শ্বশানেই হত্যা করিবে বলেও হুমকি দিয়ে তাকে রাস্তায় ফেলে চলে যায়। ওই দিনই রাত অনুমান ১২টার দিকে গোপালের বাড়িতে গিয়ে দেশীয় প্রাণ নাশক অস্ত্র শস্ত্র নিয়ে গোপালের রুমে ডুকে প্রাণে হত্যার উদ্যোশ্যে মারপিট করে। এসময় গোপাল “বাচাও বাচাও” বলে চিৎকার করলে ঘরের থাকা তার ভাইসহ অন্য সদস্যরা গোপালের রুমে গেলে অস্ত্রের মুখে তাদেরকে জিম্মিকরে করে হত্যার হুমকি প্রর্দশন করে নজাপত ও তার লোকজন। তখনই নজাপতের ছেলে খালেদ মিয়া তার হাতে থাকা কেরোসিনের ড্রাম থেকে কেরোসিন গোপালের শরীরে ডেলে দেয়। এসময় নজাপত মিয়া তার হাতে থাকা একটি দিয়াশলাই এর কাটিতে আগুন ধরিয়ে গোপালের শরীরে আগুন লাগিয়ে চলে যায় বলে অভিযোগে প্রকাশ। যাওয়ার সময় হুমকি দিয়ে যায় এ বিষয়ে কাউকে বললে বা মামলা মোকদ্দমা করার চেষ্টা করলে সবাইকে হত্যা করা হবে। আগুনে গোপালের দুই হাতসহ শরীরের বিভিন্নস্থানে জলসে যায়। এমনতঅবস্থায় নজাপত ও তার লোকজন পাহারা দিতে থাকে, ফলে তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ারও সুযোগ দেয়নি। পরের দিন স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপে¬ক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তার অবস্থা আশংকাজনক দেখে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার নির্দেশ দেন। এ ব্যাপারে গতকাল রবিবার বিকালে নবীগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24