রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ০৭:০৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে মাদ্রাসা ছাত্র সাব্বিরের হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল জগন্নাথপুরে পৃথক দুই হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় এখনও মামলা হয়নি সাংবাদিকতার উজ্জ্বল পরিম-লে কামকামুর রাজ্জাক রুনু এক স্বপ্নচারী পুরুষ শেখ রাসেলের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে জগন্নাথপুরে আ.লীগের আলোচনাসভা জগন্নাথপুরে শ্রমিকলীগের কমিটি বিলুপ্ত জগন্নাথপুরের তিন রাজনীতিবীদ জেলা আ,লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য মনোনীত হলেন জগন্নাথপুরে দুইপক্ষের বিরোধে বলি হলো মাদ্রাসার ছাত্র সাব্বির জগন্নাথপুরে ছিনতাইকৃত গ্রামীণফোনের রিচার্জ কার্ড-অর্থসহ ডাকাত গ্রেফতার জগন্নাথপুরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে শিশু নিহত জগন্নাথপুরে অটোচালককে হত‌্যা করে লাশ ডোবায় ফেলে দিল দুবৃর্ত্তরা

নবীগঞ্জে প্রধান শিক্ষকের অর্থ আত্মসাতের তদন্ত অনুষ্টিত

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, ২১ আগস্ট, ২০১৬
  • ৪৫ Time View

নবীগঞ্জ থেকে নিজস্ব সংবাদদাতা:
হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার ইনাতগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বদরুল আলমের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের তদন্ত দুপুর ১২টায় অনুষ্টিত হয়েছে। অভিযোগকারী ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়,ইনাতগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক আতাউর রহমান অবসরে গেলে সহকারী শিক্ষক বদরুল আলম ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব গ্রহণ করেন। পরবর্তীতে তিনি প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব নেন। প্রধান শিক্ষক ছিাত্র/ছাত্রীদের কাছ থেকে ভিন্ন ভিন্ন খাত দেখিয়ে টাকা আদায় করে ভুয়া ভাউচারের মাধ্যমে খরচ করেন। বিদ্যালয়েরর বিভিন্ন খাত হতে প্রাপ্ত টাকা বিদ্যালয়ের নির্দিষ্ট ব্যাংক একাউন্টে জমা না করে বিধিবহির্ভূতভাবে নিজের কাছে রেখে আত্মসাৎ করেন। প্রধান শিক্ষক বদরুল আলম তার দীর্ঘ দিনের দুর্নীতিকে আরও দীর্ঘায়িত করার জন্য অফিস সহকারী নুর মোহাম্মদকে সরিয়ে সহকারী শিক্ষক অচিন্ত্য আচার্য্য মাধ্যমে আর্থিক লেনদেন করে থাকেন। ইনাতগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের ৩০০ গজের মধ্যে পাঞ্জেরী কিন্ডার গার্ডেন এন্ড জুনিয়র হাই স্কুল নামে তার একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। প্রধান শিক্ষকের এসব অনিয়মের বিরুদ্ধে এলাকাবাসী সিলেট শিক্ষা বোর্ডে অভিযোগ দায়েরের প্রেক্ষিতে বোর্ড কর্তৃক হবিগঞ্জ জেলা শিক্ষা অফিসার মোজাফ্ফর হোসেনকে আহবায়ক, আউশকান্দি র,প স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ লুৎফুর রহমান ও দীঘলবাক উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নিজামুল ইসলামকে সদস্য করে ৩ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করেন। তদন্ত কমিটি অভিযোগকারীদের নোটিশ প্রদান না করে প্রধান শিক্ষককে অবহিত করে তদন্তকার্যে উপস্থিত হয়ে অভিযোগকারীদের মোবাইল ফোনে ডেকে নিয়ে তাদের বক্তব্য শুনেন। এ নিয়ে আলোচনায় শুরুতে অভিযোগকারীদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। ইনাতগঞ্জ আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি আজিজুরর রহমান বলেন,প্রধান শিক্ষকের আর্থিক অনিয়ম ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে আমরা অভিযোগকারী বক্তব্য উপস্থাপন করেছি। তদন্ত কমিটি যাচাই-বাচাই করলে সত্য উদঘাটন হবে। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল বাতেন বলেন, আমি চাই প্রতিষ্ঠানটি দুর্নীতিমুক্ত হউক। এ ব্যাপারে তদন্ত কমিটির আহবায়ক জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মোজাফফর হোসেন বলেন,অভিযোগকারীদের বক্তব্য শুনেছি। তদন্ত প্রতিবেদন সিলেট শিক্ষা বোর্ডে প্রেরণ করবো।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24