রবিবার, ২১ জুলাই ২০১৯, ০২:৩৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে আশার আলো ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে তিন শতাধিক বন্যার্তদের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ জগন্নাথপুরে বিপর্যস্ত যোগাযোগ ব্যবস্থা,১০ কোটি টাকার ক্ষতি, লাখো মানুষের দুর্ভোগ জগন্নাথপুরে বিদ্যুৎ স্পর্শে শিশুর মৃত্যু সুনামগঞ্জের নিরপরাধ ব্যক্তিদের মিথ্যা মামলায় জড়ানোর প্রতিবাদে মানববন্ধন যে পরিচয়ে হোয়াইট হাউসে যান প্রিয়া সাহা দুদকের তদন্তের অধিকাংশই চুনোপুঁটির বিরুদ্ধে : ইকবাল মাহমুদ প্রিয়া সাহার বক্তব্যকে ‘দেশদ্রোহী’ বললেন কাদের প্রিয়া সাহার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা করবেন ব্যারিস্টার সুমন দোয়ারাবাজারে ইউএনওকে প্রাণনাশের হুমকি, থানায় জিডি ভারতের বিহারে এবার গোরক্ষকরা হত্যা করল ৩ জনকে

যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশিকে খুনের দায়ে মিশরীয় নাগরিকের কারাদণ্ড

জগন্নাথপুর২৪ ডেস্ক::
  • Update Time : শনিবার, ২২ জুন, ২০১৯
  • ৮৪ Time View

যুক্তরাষ্ট্রে এক প্রবাসী বাংলাদেশিকে হত্যার দায়ে ১০ বছরের কারাদণ্ড পেয়েছেন মিশরীয় এক নাগরিক।

বৃহস্পতিবার এ হত্যা মামলার রায় ঘোষণা করেন ব্রঙ্কস সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি জেমস ম্যাককার্টি।

রায়ে ১০ বছরের দণ্ড ও কারাভোগের পর আরও পাঁচ বছর তাহা মেহরানকে কর্তৃপক্ষের নজরদারিতে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

২০১৭ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্য বকেয়া ভাড়ার জন্য বাংলাদেশি ভাড়াটে জাকির খানকে (৪৪) ছুরিকাঘাতে হত্যা করেন বাড়ির মালিক তাহা মেহরান।

ব্রঙ্কস ডিস্ট্রিক্ট অ্যাটর্নি ডারসেল ডি ক্লার্ক এ রায় প্রসঙ্গে বলেন, ২০১৭ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় ব্রঙ্কসের ১০০১ লগ্যান অ্যাভিনিউতে অবস্থিত ভবনের সামনে জাকির খানকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়। ৯ মাসের ভাড়া বকেয়া থাকায় তাহা ক্ষুব্ধ ছিলেন।

তিনি জানান, একই বাসায় থাকতেন জাকির ও তাহা। জাকির খান গাড়ি হাঁকিয়ে বাসায় আসা-যাওয়া করতেন দেখে হিংসায় জ্বলতেন মিশরীয় তাহা। বকেয়া ভাড়া আদায়ে সহায়তা চেয়ে কমিউনিটির অনেককে জানিয়ে সাড়া না পেয়ে নিকটস্থ ৪৫ প্রেসিঙ্কটে গিয়েও কোনো সহায়তা পাননি বলে আইন নিজের হাতে তোলে নেন তাহা।

মামলার বিবরণীতে বলা হয়েছে, জাকিরের বুক এবং ঘাড়ে বেশ কয়েকবার আঘাতের পর শরীরের বিভিন্ন স্থানে আরও ২৯টি আঘাতের চিহ্ন ছিল। গুরুতর অবস্থায় জাকিরকে নিকটস্থ জ্যাকবি মেডিকেল সেন্টারে নেয়ার পর জরুরি বিভাগের চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

জানা গেছে, সিলেটের সন্তান জাকির খান আবাসন ব্যবসায়ী ছিলেন। কমিউনিটির সভা-সমাবেশেও অর্থ সাহায্য দিতেন। তবু মাসের পর মাস ভাড়া পরিশোধ না করার জন্য তার খুন হওয়ায় বিষয়ে বিস্মিত অনেকে। তাকে দাফনের পর স্ত্রী-সন্তানরা গৃহহীন হয়ে পড়েছিলেন। পরবর্তীতে সিটি প্রশাসনের সহায়তায় স্বল্প ভাড়ায় থাকার ব্যবস্থা হয়েছে।

সুত্র-যুগান্তর

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24