সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৯:২৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে প্রকাশ্য দিবালোকে গ্রামীণ ফোনের ৫ লাখ টাকা ছিনতাই, জনতার ধাওয়ায় বাইকসহ আটক ১ জগন্নাথপুরে সড়ক রক্ষায় ১০ টন ওজনের অধিক যান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা মিরপুর ইউপি নির্বাচনে প্রার্থীদের মধ্যে প্রতিক বরাদ্দ, আনুষ্ঠানিকভাবে প্রচারণা প্রার্থীরা গরুর মাংস বিক্রি: ভারতে খ্রিস্টান যুবককে পিটিয়ে হত্যা জগন্নাথপুরের ব‌্যবসায়ী ফেরদৌস মিয়া খুনের ঘটনায় সানিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড সুনামগঞ্জে হত্যা মামলায় একজনের মৃত্যুদণ্ড, তিনজনের যাবজ্জীবন ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের ওপর ছাত্রলীগের ‘হামলা’ আহত ২৫ অনেকেই গা ঢাকা দিয়েছে, অনেককেই নজরদাড়িতে রাখা হয়েছে: কাদের বিরিয়ানি খেলে শিক্ষকসহ ৪০ জন অসুস্থ আল কোরআন অনুসরণের আহ্বান রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিনের!

লেখাটি বিজ্ঞানীবন্ধু জহিরুল অালম সিদ্দিকীর জন্য

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, ২৯ অক্টোবর, ২০১৭
  • ৪৭ Time View

অধ্যক্ষ মো. আব্দুল মতিন::

২০১৪ সালের ১৬ ডিসেম্বর। জগন্নাথপুর উপজেলার শাহজালাল মহাবিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সহ বিভিন্ন প্রতিষ্টানের শিক্ষক, সহস্র শিক্ষার্থীদের জন্য একটি স্মরণীয় দিন।ঐ দিন সহস্র শিক্ষার্থী সহ এলাকার শিক্ষানুরাগী,অভিভাবক, সকল মানুষ জড়ো হয়েছিল
জগন্নাথপুর- সুনামগঞ্জ রাস্তায়; কলেজ ক্যাম্পাসে। সবার মধ্যে কারো অপেক্ষার অানন্দমুখর ব্যতিক্রমী
একটি অপেক্ষা অামি জীবনে প্রথম অবলোকন করলাম। যিনি অাসবেন কোন মন্ত্রী নন,নিরাপত্তাবেষ্টিত কেউ নন। শিক্ষার্থীদের হাতে বাংলাদেশেরর লাল সবুজের ছোট- ছোট পতাকা;
পরিপাটি বসন,বিজয়ের অানন্দেমাখা মুখের বিজয়ী হাসি, হাতে অপেক্ষার প্রিয়জনের জন্য ফুলের তোড়া,
সুশৃঙ্খল সারিবদ্ধ জনতা! আমি শুধু জানতে দিয়েছিলাম অামার কলেজের শিক্ষার্থীদের যে,১৬ ডিসেম্বর তোমাদের কলেজে একজন বিজ্ঞানী অাসবেন; যিনি অামার বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের একজন বন্ধু ; মানবদেহে ক্যান্সার শনাক্তকরণ ডিভাইস ইতোমধ্যে অাবিষ্কার করেছেন; একজন শিক্ষা সংগ্রামী মানুষ; নাম ড. জহিরুল অালম সিদ্দিকী। বন্ধুরা তাঁকে শামীম নামে ডাকি। অামাদের সুনামগঞ্জ জেলার ধর্মপাশা উপজেলার জয়শ্রী গ্রামের সন্তান। ১৪ ডিসেম্বর বলেছিলাম। অার বিজয়ের মাসে বিজয় দিবসে সহস্রাধিক জনতার সম্মিলন। অামি বুঝেছিলাম, ভালকাজে মানুষ কিভাবে সাড়া দেয়। দুপুর বেলা একটি সাদা কার থেকে বন্ধু নামলে ফুলেল শুভেচ্ছা শেষে প্রথম অামিই শক্ত করে জড়িয়ে ধরেছিলাম বুকে ;মনে হয়েছিল বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের সকল বন্ধুরা বুঝি অামার বুকে
এসেছে। তারপর সবার সাথে পরিচয় করিয়ে দেবার পর সহস্রপদযাত্রায় পতাকা শোভিত বিজয় মিছিলে
ক্যাম্পাসে হয়ে অামার অফিসে নিয়ে গেলাম। সাথে বিশ্ববিদ্যালয়ের অারেক অনুজ কবি মুহম্মদ ইমদাদ।
একটু পর অপেক্ষমান জনতার বিজ্ঞানীর নির্ধারিত
বক্তব্য; জীবনের অব্যক্ত কথা,অাবিষ্কারের প্রেক্ষাপট
সহ সংগ্রামী জীবনের কথা সবাই মন্ত্রমুগ্ধ হয়ে শুনছে।
কোথাও টু শব্দটি নেই। গর্বে বুকে বিরল ঢেউ খেলা করছে অামার। বন্ধু তাঁর বক্তব্যে জানাল, ডিভাইসটি সকলের জন্য কম খরছে সহজলভ্য করার জন্য সে ও তাঁর পুরো গবেষণা টিমটি কাজ করছে।
বিগত ২৫ অক্টোবর প্রথম সারির জাতীয় দৈনিক প্রথম অালো পত্রিকায় প্রথমপেজে বন্ধুর গবেষণাগারে ডিভাইসটির ছবি সহ ইফতেখার মাহমুদ লিখেছেন,” বাংলাদেশি বিজ্ঞানীর সাফল্য: ঘরে বসেই ক্যানসার শনাক্ত করাযাবে” শিরোনামে। নসার শনাক্ত করাযাবে” শিরোনামে। প্রতিবেদনটি বিস্তারিত পড়ে বন্ধুর গবেষণার অাউটপুটের অাপডেট জেনে খুব মন খারাপের মধ্যে ও অানন্দ ও গর্ব করারঅনুভুতি সৃষ্টি হলো। যেখানে অাছে,মানুষের শরীরে ক্যানসার ছড়িয়ে পড়ার আগেই উদ্ভাবিত প্রযুক্তিতে তা শনাক্ত করা যাবে। আর এই প্রযুক্তি ব্যবহার করে উদ্ভাবিত যন্ত্রটির দামও কম, বাংলাদেশে উৎপাদন খরচ মাত্র দেড় শ টাকা। ঘরে বসেই যে কেউ এ যন্ত্র ব্যবহার করে ক্যানসার শনাক্ত করতে পারবে।
গবেষণায় নেতৃত্ব দিয়েছেন অস্ট্রেলিয়াপ্রবাসী বাংলাদেশি বিজ্ঞানী মুহম্মদ জহিরুল আলম সিদ্দিকী। তিনি বর্তমানে অস্ট্রেলিয়ার গ্রিফিথ বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করছেন। গবেষণাটির ফলাফল চলতি মাসে আন্তর্জাতিক স্বীকৃত দ্য রয়েল সোসাইটি অব কেমিস্ট্রি জার্নাল ন্যানোস্কেল, দ্য আমেরিকান কেমিক্যাল সোসাইটি জার্নাল অ্যানালাইটিক্যাল কেমিস্ট্রি এবং রয়েল সোসাইটি অব কেমিক্যাল কমিউনিকেশনসে ছাপা হয়েছে।সাধারণত কেউ ক্যানসারে আক্রান্ত হলে ঠিকমতো বুঝে ওঠার আগেই মানুষের শরীরে তা ছড়িয়ে পড়ে। ক্যানসারের অস্তিত্ব সম্পর্কে নিশ্চিত হতেও অনেক ধরনের পরীক্ষা-নিরীক্ষার প্রয়োজন হয়। ব্যয় হয় প্রচুর অর্থও। শনাক্তকরণের যন্ত্রটি সহজে ব্যবহারের উপযোগী ও স্বল্প মূল্যের। নিম্ন আয়ের দেশের মানুষদের যেন লাখ লাখ টাকা খরচ করে ক্যানসারের চিকিৎসা করাতে গিয়ে একদম পথে বসে যেতে না হয়, সেই বিষয়টিও গবেষকদের বিবেচনায় ছিল। এ ছাড়া যন্ত্রটি ক্যানসার শনাক্ত করার পাশাপাশি চিকিৎসার বিভিন্ন পর্যায়ে শরীরে ক্যানসারের বৃদ্ধি অথবা হ্রাস পর্যবেক্ষণ করতে পারবে। ফলে রোগীর চিকিৎসা সঠিক পথে এগোচ্ছে কি না, সে ব্যাপারে চিকিৎসকেরা ধারণা পাবেন। ২০১৫ সালে অস্ট্রেলিয়ার ন্যাশনাল হেলথ অ্যান্ড মেডিকেল রিসার্চ কাউন্সিলের আর্থিক অনুদানে গবেষণাটি হয়েছে।ঘরে বসেই যে কেউ এ যন্ত্রের মাধ্যমে ক্যানসার শনাক্ত করতে পারবেন। প্রথমে প্লাস্টিকের অ্যাপেন ড্রপের মধ্যে দু-এক ফোঁটা রক্ত, লালা কিংবা প্রসাবের নমুনা নেওয়া হয়। এর সঙ্গে রোগ শনাক্তকরণের জন্য ক্যানসার জৈব নির্দেশক (বায়োমার্কার) যুক্ত ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র ধাতব কণা যোগ করা হয়। এরপর এসব নমুনার পরিবর্তন খালি চোখে দেখে প্রাথমিক অবস্থায় ক্যানসার আছে কি নেই, সেটি জানা যাবে। বন্ধু ও তাঁঁর গবেষণা টিমের সবাইকে অভিনন্দন।

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের( শাবি) ৩২০ একরে বেড়ে উঠাদের দেশ-দেশান্তরে বিভিন্ন জায়গায় সুনাম,সম্মানের,গবেষনার সাফল্য সহ যে কোন খবর যখন চোখে পড়ে; অজান্তেই হৃদয়ে একটু টান পড়ে।মন খারাপ থাকলেও ভাল হয়ে যায়;যেন অাপন ভাই- বোন কোথাও বড় কিছু করেছে গোছের। এটা যে অন্য বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নকারীদের মধ্যে কাজ করেনা তা কিন্তু নয়; তবে শাবিতে অধ্যয়ন কারীদের সাস্টিয়ান অনুভুতি একটু বিরল। এখানে ধর্ম- বর্ণ,রাজনৈতিক দল এগুলো ঐ মুহুর্তে কাজ করেনা। ফেসবুকের পোষ্টে রত্নগর্ভা মা ( শ্রদ্ধেয় খালার)ছেলের কৃতিত্বের নিউজটি পড়ে অানন্দাশ্রু বর্ষণের দৃশ্যটি সহ বিস্তারিত বিষয়টি ঐ দিন কলেজের শিক্ষার্থীদের মধ্যে সকল ক্লাসে অালোচনা করেছি যদি বন্ধু বিজ্ঞানী শামীমের মতো কেউ একজন ভবিষ্যতে অাসে কোন মায়ের গর্ভে। সবাইকে নিয়ে খুব ভালো থেকো বন্ধু,খুব ভালো।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24