সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৯:৪৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে প্রকাশ্য দিবালোকে গ্রামীণ ফোনের ৫ লাখ টাকা ছিনতাই, জনতার ধাওয়ায় বাইকসহ আটক ১ জগন্নাথপুরে সড়ক রক্ষায় ১০ টন ওজনের অধিক যান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা মিরপুর ইউপি নির্বাচনে প্রার্থীদের মধ্যে প্রতিক বরাদ্দ, আনুষ্ঠানিকভাবে প্রচারণা প্রার্থীরা গরুর মাংস বিক্রি: ভারতে খ্রিস্টান যুবককে পিটিয়ে হত্যা জগন্নাথপুরের ব‌্যবসায়ী ফেরদৌস মিয়া খুনের ঘটনায় সানিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড সুনামগঞ্জে হত্যা মামলায় একজনের মৃত্যুদণ্ড, তিনজনের যাবজ্জীবন ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের ওপর ছাত্রলীগের ‘হামলা’ আহত ২৫ অনেকেই গা ঢাকা দিয়েছে, অনেককেই নজরদাড়িতে রাখা হয়েছে: কাদের বিরিয়ানি খেলে শিক্ষকসহ ৪০ জন অসুস্থ আল কোরআন অনুসরণের আহ্বান রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিনের!

সন্তানদের মাঝে কোনো প্রকার বৈষম্য নয়

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, ২০ অক্টোবর, ২০১৭
  • ৪২ Time View

ওয়ালি উল্লাহ সিরাজ: পবিত্র কুরআনে মহান আল্লাহপাক ইরশাদ করেছেন, স্মরণ করো, যখন তারা [ইউসুফ (আ.)-এর ভাইয়েরা] বলল, অবশ্যই ইউসুফ ও তাঁর ভাই (বিনইয়ামিন) আমাদের পিতার কাছে আমাদের চেয়ে অধিক প্রিয়, অথচ আমরা একটি সংহত দল (তাদের চেয়ে অধিক শক্তিশালী)। আমাদের পিতা তো স্পষ্ট বিভ্রান্তিতেই আছেন। [সুরা : ইউসুফ, আয়াত : ৮ (দ্বিতীয় পর্ব)]

তাফসির : দয়াশীলতা ইমানদারের চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য। মহানবী (সা.) একবার হাসান (রা.)-কে চুমু খেলেন। সেখানে উপস্থিত সাহাবি আকরা বিন হাবিস (রা.) বললেন, ‘আমার ১০টা সন্তান আছে। তাদের কাউকে আমি কখনো চুমু খাইনি। ’ তখন রাসুল (সা.) তার দিকে তাকলেন এবং বললেন, ‘যে স্নেহ করে না, সে স্নেহ পায় না। ’ (বুখারি, হাদিস : ৫৯৯৭)

আল্লাহ তাআলা সন্তান দান করে মানুষকে পরীক্ষা করেন। তিনি কাউকে পুত্রসন্তান দান করেন, কাউকে কন্যাসন্তান দান করেন। কাউকে পুত্র-কন্যা উভয়টি দান করেন। কাউকে এক সন্তান আর কাউকে একাধিক সন্তান দান করেন।

একাধিক সন্তানের বেলায় পিতা-মাতার দায়িত্ব সব সন্তানকে সমান দৃষ্টিতে দেখা। এক সন্তানকে অন্যের ওপর প্রাধান্য না দেওয়া। কোনো কোনো পরিবারে দেখা যায়, কন্যাসন্তানের সব চাওয়া পূরণ করা হয় না অথচ পুত্রসন্তান চাওয়া মাত্র সব কিছু হাজির করা হয়। ইসলামে এ ধরনের বৈষম্য করা কঠোরভাবে নিষিদ্ধ। হজরত ইবনে আব্বাস (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসুল (সা.) বলেছেন, ‘যার ঘরে কোনো কন্যাসন্তান জন্মগ্রহণ করে, আর সে তাকে কষ্ট দেয় না, তাকে অপমানিত করে না এবং তার ওপর পুত্রসন্তানদের প্রাধান্য দেয় না, আল্লাহ তাকে এই সন্তানের অসিলায় জান্নাতে প্রবেশ করাবেন। ’ (মুসনাদে আহমাদ)
কোথাও কোথাও পুত্রসন্তানদের মধ্যে এক ছেলেকে অন্য ছেলের ওপর প্রাধান্য দেওয়া হয়। ইসলামে এটিও নিষিদ্ধ। নুমান ইবনে বশির (রা.) থেকে বর্ণিত, ‘একবার তাঁর পিতা তাঁকে নিয়ে রাসুল (সা.)-এর কাছে গেলেন এবং বললেন, আমি আমার এ ছেলেকে একটি গোলাম (চাকর) দান করেছি। রাসুল (সা.) তাকে জিজ্ঞাসা করলেন, তুমি কি তোমার সব সন্তানকেই এমন দান করেছ? পিতা উত্তর দিলেন, না। রাসুল (সা.) বললেন, তাহলে এ গোলাম ফেরত নিয়ে নাও। ’ (বুখারি, হাদিস : ২৫৮৬)

হাদিসের প্রসিদ্ধ ছয়টি কিতাবের মধ্যে ‘ইবনে মাজাহ’ ছাড়া বাকি পাঁচটিতেই ওপরে উল্লিখিত হাদিস বর্ণিত হয়েছে। এ হাদিসের কোনো কোনো বর্ণনায় এসেছে : ‘তোমরা আল্লাহকে ভয় করো এবং সন্তানদের মধ্যে ইনসাফ কায়েম করো। ’ (মুসলিম, হাদিস : ১৬২৩)

এ বিষয়ে পবিত্র কোরআনে এসেছে : ‘…যখন তোমরা কথা বলবে, তখন ন্যায্য কথা বলবে—যদিও তা স্বজনদের সম্পর্কে হয়। আর আল্লাহ প্রদত্ত অঙ্গীকার পূর্ণ করো। এভাবেই আল্লাহ তোমাদের নির্দেশ দিচ্ছেন, যেন তোমরা উপদেশ গ্রহণ করো। ’ (সুরা : আন’আম, আয়াত : ১৫২)

সন্তানদের জন্য কিছু সঞ্চয় করাও ইসলামের শিক্ষা। সন্তানদের কারো মুখাপেক্ষী রেখে যাওয়া মহানবী (সা.) কখনোই পছন্দ করেননি। মহানবী (সা.) ইরশাদ করেছেন, ‘তুমি তোমার উত্তরাধিকারীদের মানুষের করুণার মুখাপেক্ষী রেখে যাওয়ার চেয়ে তাদের সচ্ছল রেখে যাওয়াই উত্তম। ’ (বুখারি : ১/৪৩৫; মুসলিম : ৩/১২৫১)

কিন্তু ওয়ারিশদের মধ্যে কোনো ধরনের বৈষম্য করা যাবে না। মৃত্যুর সময় ঘনিয়ে এলে সবাই কমবেশি অসিয়ত করে। এ অসিয়তের মাধ্যমে যদি কোনো উত্তরাধিকারীকে ক্ষতিগ্রস্ত করার চিন্তা থাকে, তাহলে এমন অসিয়ত ইসলামে নিষিদ্ধ। এ বিষয়ে আল্লাহ তাআলা ইরশাদ করেন, ‘…এটা (উত্তরাধিকার সম্পত্তির বণ্টন) অসিয়ত আদায় ও ঋণ পরিশোধের পর (কার্যকর হবে), যদি অসিয়ত কারো জন্য ক্ষতিকর না হয়। আল্লাহ সর্বজ্ঞ ও অশেষ সহনশীল। ’ (সুরা : নিসা, আয়াত : ১২)

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24