শুক্রবার, ২৩ অগাস্ট ২০১৯, ০৮:৩২ পূর্বাহ্ন

সিলেট থেকে এরশাদের আগাম নির্বাচনী প্রচারনা শুরু

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, ১ অক্টোবর, ২০১৬
  • ১৫৬ Time View

আমিরুল ইসলাম চৌধুরী এহিয়া সিলেট থেখে- জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেন মোহাম্মদ এরশাদ সিলেট থেকে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগাম প্রচারনা শুরু করেছেন।

শনিবার সিলেট রেজিস্টারি মাঠের জনসভায় দলটির চেয়ারম্যান সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মোহাম্মদ এরশাদসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ নেতাকর্মীদের এই লক্ষ্যে তৃণমূল পর্যায়ে কাজ শুরুর নির্দেশ দিয়েছেন। এবং আরও একবার ক্ষমতায় যেতে সিলেটবাসীর সাহায্য চেয়েছেন।

এরশাদ তার বক্তব্যে অতীতে সিলেটবাসী সংসদে ৮টি আসন দিয়ে তার জীবন রক্ষায় যে অবদান রেখেছিলেন তার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেছেন, তা না হলে বিএনপি প্রতিহিংসা চরিতার্থ করতে গিয়ে আমাকে ফাঁসি দিত। এদেশে প্রতিহিংসার রাজনীতি বিএনপিই শুরু করেছে।

এরপর তিনি দেশের আইন শৃংখলা পরিস্থিতির দিকে ইঙ্গিত করে নিজের হতাশা ব্যক্ত করে বলেন, আমার সময় মাত্র ২টি জীবন ঝরেছিল বলে আমি ক্ষমতা ছেড়েছিলাম। এখন প্রতিদিন লাশের মিছিল। মানুষ কোথাও নিরাপদ নয়। এসবের বিচার কবে হবে কেউ জানেনা।

৯০ সালে ক্ষমতা ছাড়ার পর তার কাছে দেয়া প্রতিশ্র“তি ভঙ্গের ব্যপারে তিনি বলেন, কথা ছিল আমাকে নির্বাচন করতে দেওয়া হবে। কিন্তু প্রতিশ্র“তি ভঙ্গ করে আমাকে জেল দেওয়া হলো। আমি ছয় বছর আর আমার স্ত্রী আড়াই বছর জেল খেটেছেন। তখন নির্বাচন করতে দেওয়া হলে আমি আবার জনতার ভালোবাসায় ক্ষমতায় আসতাম।

আগামী নির্বাচনের ব্যপারে তিনি বলেন, আজকের এ সভায় এসেছি শাহজালাল-শাহপরাণের দোয়া নিতে। সিলেট থেকেই শুরু করলাম আগামী নির্বাচনের প্রস্তুতি। দেশের মানুষ পরিবর্তন চায়, তারা জাতীয় পার্টিকে ক্ষমতায় দেখতে চায়।

এসময় উপস্থিত নেতা কর্মীদের কাছে তিনি প্রশ্ন রাখেন, আপনারা কি চান?

জবাবে নেতা কর্মীরা তুমুল করতালী আর ‘এরশাদ’ ‘এরশাদ’ ‘জাপা জাপা’ বলে চিৎকার করে তার বক্তব্যকে স্বাগত জানান।

এ পর্যায়ে এরশাদ বলেন, আপনারা আজ থেকে গ্রামগঞ্জে কাজ শুরু করেন। প্রত্যেক নেতাকর্মী দলের জন্য যে কাজ করবে সে কাজের পুরস্কার পাবে।

এরপর তিনি অতীতে ক্ষমতায় থাকতে সিলেটের জন্য কি কি করেছেন তার বিবরণ দেন। এবং ভবিষ্যতে ক্ষমতায় গেলে প্রাদেশিক সরকার বাস্তবায়ন করবেন এবং তখন সিলেট বিভাগ হবে জালালাবাদ প্রদেশ এবং সিলেট নগরী হবে তার রাজধানী।

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ১ জন লোক ১৬ কোটি মানুষকের শাসন করতে পারেনা। প্রদেশ হলে ১৯ জনের জায়গায় এমপি হবেন ১০০ জন। এই ১০০ জন মানুষ পাবেন আপনাদের কথা বলার জন্য।

তিনি ক্ষমতায় গেলে আবারও সিলেটে হাইকোর্টের কার্যক্রম শুরু হবে বলেও প্রতিশ্রুতি দেন।

জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান এডভোকেট গিয়াস উদ্দিন আহমদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ইয়হিয়া চৌধুরী এহিয়া এমপি।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, সংসদের বিরোধীদলীয় নেত্রী ও দলের কো-চেয়ারম্যান রওশন এরশাদ, সাবেক মন্ত্রী ও দলের কো-চেয়ারম্যান জিএম কাদের, দলের মহাসচিব ও সাবেক মন্ত্রী রুহুল আমিন হাওলাদার এমপি, পানি সম্পদমন্ত্রী ও প্রেসিডিয়াম সদস্য আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী কাজী ফিরোজ রশিদ এমপি, সাবেক মন্ত্রী জিয়া উদ্দিন বাবলু এমপি, সালমা ইসলাম অ্যাডভোকেট এমপি, বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ তাজুল ইসলাম চৌধুরী এমপি, প্রেসিডিয়াম সদস্য সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা এমপি, প্রেসিডিয়াম সদস্য ও স্থানীয় সরকার ও পল্লী উন্নয়ন প্রতিমন্ত্রী মশিউর রহমান রাঙ্গা এমপি, প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ঢাকা উত্তর এর সভাপতি ফয়সল চিশতি, প্রেসিডিয়াম সদস্য ফখরুল ইমাম এমপি, জিয়াউল হক মৃধা এমপি, এটিইউ তাজ রহমান, আতিকুর রহমান আতিক, আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্ঠা ও বিরোধী দলীয় হুইপ সেলিম উদ্দিন এমপি, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল মুনিম চৌধুরী বাবু এমপি, কেন্দ্রীয় সদস্য ও সুনামগঞ্জ জেলা আহ্বায়ক পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ।

অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সিলেট জেলা জাতীয় পার্টির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইশরাকুল হুসেন শামীম ও মহানগর সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট আব্দুল হাই কাইয়ুম।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24