শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০১:০৬ অপরাহ্ন

সুনামগঞ্জের মেয়ে রাহনুমা ব্রিটেনের টাউন কাউন্সিল নির্বাচনে জয়লাভ করে ডেপুটি মেয়র মনোনীত

Reporter Name
  • Update Time : সোমবার, ২৫ মে, ২০১৫
  • ৬৮ Time View

যুক্তরাজ্য প্রতিনিধি:: যুক্তরাজ্য প্রবাসী সাবেক কাঊন্সিলার আলী হায়দার এর স্ত্রী রাহনুমা হায়দার চৌধুরী সম্প্রতি সমাপ্ত ব্রিটেনের সাধারন নির্বাচনে সাউথ ইস্ট রিজওনের এক মাত্র বাঙ্গালী মহিলা কাউন্সিল মেয়র নির্বাচিত হবার গৌরব অর্জন করেছেন। রাহনুমা হায়দার চৌধুরী লিবারেল ডেমোক্রেট পার্টির মনোনয়ন নিয়ে গত ৭ মে নির্বাচনে সাউথ ইস্টের ইস্ট সাসেক্স এর সিফোর্ড এলাকার টাউন ও সিটি কাউন্সিল নির্বাচনে দু’টি পদে প্রতিদ্বন্ধিতা করেন। সিটি কাউন্সিলে প্রতিদ্বন্ধিতা করে তিনি জয়লাব করতে না পারলেও টাউন কাউন্সিল নির্বাচনে তার নিকটতম কনজার্ভেটিব পার্টির প্রার্থীকে পরাজিত করে বিপুল ভোটে নির্বাচিত হন। ১৪ মে কাউন্সিলারদের এক সভায় প্যানেল মেয়র মনোনয়নে রাহনুমা হায়দার ডেপুটি মেয়র মনোনীত হন। ১৬ জন কাউন্সিলের মধ্যে লিবারেল ডেমোক্রেটের ৬ জন ও কনজার্ভেটিব পার্টির ১০ জন কাউন্সিলার থাকা সত্বেও রাহনুমা হায়দার ডেপুটি মেয়র মনোনীত হওয়া বিরল ঘটনা। মূলত কনজার্ভেটিব পার্টির কাউন্সিলাররা থাকে সমর্থন না দিলে তিনি ডেপুটি মেয়র মনোনীত হতে পারতেন না।
রাহনুমা হায়দার দিরাই উপজেলার সোয়াতিয়র গ্রামের সমাজ সেবী মরহুম রকিব উদ্দিন চৌধুরীর কন্যা। ১৯৭৯ সালে তিনি বৈবাহিক সূত্রে যুক্তরাজ্যে পারি জমান। বৃটেনে যাওয়ার পর সেখানে পড়া লেখা শেষ করে শিক্ষকতা পেশায় যোগ দেন। সেই সাথে তিনি বিভিন্ন সমাজ সেবামূলক কাজে নিজেকে জড়িত করেন। তিনি সীফোর্ড প্রাইমারী স্কুলের দ্বিতীয় মেয়াদে স্কুল গভর্ণরের দায়িত্ব পালন করছেন। ইন্টারন্যাশন্যাল কফি মনিং পরিচালনা ছাড়াও ফ্রেন্স অফ সম্প্রতি সংস্থার চেয়ারপার্সন হিসাবে তিনি ২৫ বছর ধরে এথনিক মাইনওরেটি কমিউনিটি নিয়ে কাজ করছেন। সুনামগঞ্জ শহরের হাছনগরের বাসিন্দা সাবেক কাঊন্সিলার আলী হায়দার এর স্ত্রী রাহনুমা হায়দার চৌধুরী
স্বামী সন্তান নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে সাসেক্স এর সিফোর্ড এলাকার বসবাস করছেন। তার স্বামী আলী হায়দার একজন প্রতিষ্টিত ব্যবসায়ী। দীর্ঘদিন ধরে তিনি একই এলাকায় রেস্টুরেন্ট ব্যবসায় জড়িত। আলী হায়দার গত মেয়াদে একই আসন থেকে নির্বাচিত টাউন কাউন্সিলার হিসাবে দায়েত্ব পালন করেন। রাহনুমা হায়দা চৌধুরী ৪ পুত্র সন্তানের জননী। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি একজন গর্বিত মাতা। তার দ্বিত্বীয় সন্তান রাহুল হায়দার সোয়াস বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইতিহাসে এমএ করে ওয়ার্ক এন্ড পেনশন বিভাগের অধিনে চাইল মেন্টেন্যান্স সার্বিসে কাজ করছে। তৃতীয় ছেলে মিদাদ হায়দার ফিল্ম এন্ড মিডিয়া বিষয়ে প্রথম বিভাগে মাটার্স দিয়ে সাসেক্স বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডি করছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24