বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০২:১৬ পূর্বাহ্ন

সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগে কলকলিয়া ইউনিয়নের নেতৃত্বে ধারাবাহিকতা অব্যাহত নেতাকর্মীরা উজ্জীবিত

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৭
  • ৪০ Time View

সুহেল হাসান :: সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের নেতৃত্বে কলকলিয়া ইউনিয়নের বাসিন্দাদের আধিখ্য অব্যাহত রয়েছে। নবগঠিত কমিটিতে আহ্বায়ক ও যুগ্ম আহ্বায়ক হিসেবে কলকলিয়া ইউনিয়নের সন্তানরা স্থান পেয়েছেন। এর আগে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সদর ছাত্রলীগের সভাপতি হিসেবে কলকলিয়া ইউনিয়নের বাসিন্দারা দায়িত্ব পালন করেন। কলকলিয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা নবগঠিত জেলা ছাত্রলীগের কমিটিকে স্বাগত জানিয়ে একাধিক আনন্দ মিছিল করেছে। জানা গেছে, ১৯৯৬ সালে আওয়ামীলীগ সরকারের ক্ষমতার শেষ দিকে জেলা ছাত্রলীগের কমিটিতে সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পান কলকলিয়া ইউনিয়নের মজিদপুর জমিদারবাড়ির সন্তান তনুজ কান্তি দেব। পরে তিনি ছাত্রলীগের লিয়াকত-বাবু) পরিষদের কেন্দ্রীয় সংসদের সদস্য নির্বাচিত হন। দীর্ঘদিন ছাত্রলীগের জেলা কমিটির নেতৃত্ব দেন। সভাপতির দায়িত্ব অত্যন্ত সুনামের সহিত পালন করেন এ সাবেক মেধাবী ছাত্রনেতা। তিনি একজন সুবক্তা হিসেবে সুনামগঞ্জের আওয়ামী রাজনীতিতে পরিচিত। বিএনপি ক্ষমতায় এলে প্রথমেই নির্যাতনের শিকার হন তনুজ কান্তি দেব। আওয়ামীলীগ সভানেত্রী বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসময় এ ছাত্রনেতার খোঁজখবর নেন। এমনকি ব্যক্তিগতভাবে তাকে চিনেন। তৃণমুলের ছাত্রলীগে নেতাকর্মীদের কাছে অত্যন্ত জনপ্রিয় তনুজ কান্তি দেব সত্য ও ন্যায়ের পক্ষে বঙ্গবন্ধুর আর্দশের একজন সক্রিয় কর্মী হিসেবে রাজপথে কাজ করায় আওয়ামীলীগের গুরুত্বপূর্ণ অনেক নেতারই বিরাগভাজন হতে হয়েছে তাকে। যে কারণে জেলা আওয়ামীলীগের কমিটিতে সাধারণ সম্পাদক পদে নিজের প্রার্থীতা ঘোষনা করেও কোন পদ তাঁর ভাগ্যে জুটবে কীনা সন্দেহ রয়েছে। জেলা আওয়ামীলীগের প্রস্তাবিত দুটি কমিটির (সভাপতি মতিউর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক এনামুল কবির ইমন) এর একটিতেই তার নাম রাখা হয়নি বলে শোনা গেছে। অপরদিকে সদর ছাত্রলীগের সভাপতি হিসেবে কলকলিয়া ইউনিয়নের শ্রীধরপাশা গ্রামের চৌধুরী পরিবারের সন্তান এমরানুল হক চৌধুরী দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমানে তিনি সাংবাদিকতা পেশায় সম্পৃক্ত রয়েছেন। যার ধারাবাহিকতায় পরবর্তী কমিটিতে সহ-সভাপতি হিসেবে কলকলিয়া ইউনিয়নের সন্তান আরিফ উল আলম দায়িত্ব পান। এবার তিনি আহ্বায়ক হিসেবে দায়িত্ব পান। এ ছাত্রনেতা তনুজ কান্তি দেবের অনুসারি হিসেবে পরিচিত। যুগ্ম আহ্বায়ক হিসেবে দায়িত্ব পান কলকলিয়া ইউনিয়নের খাশিলা গ্রামের বাসিন্দা দিপংকর কান্তি দে। তরুণ এ ছাত্রনেতা কলকলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক দ্বিপক কান্তি দে দীপালের ছেলে। জেলা ছাত্রলীগের কমিটিতে কলকলিয়া ইউনিয়নের সন্তানদের ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকায় নেতাকর্মীরা উজ্জীবিত।
কলকলিয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক লায়েক আহমদ জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন,সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগে কলকলিয়া ইউনিয়নের আধিখ্য আমাদেরকে অনুপ্রাণিত করে। আমরা বিশ্বাস করি কলকলির সন্তান ছাত্রনেতারা জননেত্রী শেখ হাসিনার বিশ্বস্থ সৈনিক হিসেবে ভবিষ্যতেও আরো গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করবেন। লায়েক জানান, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি তনুজ কান্তি দেবের গ্রামের সন্তান হিসেবে গর্ববোধের পাশাপাশি কলকলিয়া ইউনিয়নের বাসিন্দা হিসেবে নবগঠিত কমিটির আহ্বায়ক আরিফ উল আলম ও যুগ্ম আহ্বায়ক দিপংকর কান্তি দে এর দায়িত্ব পাওয়ায় তারা আনন্দিত।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24