বৃহস্পতিবার, ২২ অগাস্ট ২০১৯, ০৬:২৩ পূর্বাহ্ন

‘হাইড্রাদৈত্য’ থেকে শিক্ষাকে রক্ষা কর ‘হারকিউলিস-অধ্যক্ষ মো.অাব্দুল মতিন

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, ২৭ আগস্ট, ২০১৭
  • ৭৩ Time View

একাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের ইংরজি পাঠ্য বইয়ের
‘Myths and Literature’ বা ‘পৌরাণিক কাহিনী ও সাহিত্য’ ইউনিটটি সেদিন পড়াচ্ছিলাম। সাহিত্য হিসেবে সেখানে ‘বাংলার মুখ'(Bengal’s Face) অনুচ্ছেদে অাধুনিক বাংলা সাহিত্যের অন্যতম শ্রেষ্ঠ কবি জীবনান্দ দাসের ‘বাংলার মুখ অামি দেখিয়াছি’ কবিতার ইংরেজি অনুবাদ
“Because I have seen Bangla’sface I will seek nomore;
The world has not anything more beautyful to show me” সাহিত্যবোধ তৈরীর জন্য দেয়া অাছে। Myths বোঝানোর জন্য গ্রিক পৌরাণিক কাহিনীর এ্যাপোলো ও মিউস ক্যালিওপের পুত্র অর্ফিয়ুস (Orpheus)এর বাঁশিরকোমল সুরে ঐশ্বরিক শান্তির কথা ; সুর দিয়ে বন্যপ্রাণী ও প্রকৃতিকে বশে অানার ক্ষমতার কথা বলা হয়েছে। আছে সুন্দর বন সংলগ্ন এলাকায় ধর্ম প্রচারক; অলৌকিক ক্ষমতার মাধ্যমে বাঘ,কুমির সহ ভয়ানক জীব জন্তুকে পোষ মানানোর মুসলিম সন্নাসী গাজীপীরের কথা। কিন্তু সেখানথেকে জুপিটার ও অ্যাল্কমেনার পুত্রহারকিউলিস(Harcules) কে নিয়ে যে অনুচ্ছেদ তা মনোযোগ দিয়ে পড়লাম ও পড়ালাম। যেখানে অাছে,গ্রিক পুরাণের হাইড্রা(Hydra) নামক দৈত্য অারগোস(Argos) নামক দেশটি ধ্বংস করেছিল। হারকিউলিস কে মাইসিনির রাজা ইউরিসথিয়াস এবং তাঁর চাচাতো ভাই দু’টি কঠিন কাজ করতে বাধ্য করেন। প্রথম কাজটি ছিল নিমিয়া উপত্যকায় ভয়ানক উৎপাতকারী একটি সিংহকে বধ করে তার চামড়া অানা। দ্বিতীয় কাজটি ছিল নয়টি মাথাওয়ালা হাইড্রা দৈত্যকে( যার মাঝখানের মাথাটি ছিল অমরণশীল) হত্যা করা। হারকিউলিস তাঁর বীরত্ব দিয়ে নিমিয়ার সিংহকে হত্যা করলেন এবং কাধে করে মাইসিনিতে ফিরে এলেন যা রাজাকে অাতঙ্কিত করলো। কিন্ত হারকিউলিস মুগুর দিয়ে যখন হাইড্রার মাথায় অাঘাত করেন; একটি মাথা বিচ্ছিন্ন হলে সেখানে নতুন দুটি মাথা জন্মায়! অবশেষে হাইড্রার অনুগত ভৃত্য ইয়োলাসের সাহায্যে হারকিউলিস হাইড্রার নবম মাথা ব্যতিত সকল মাথা পুড়িয়ে ফেলতে পেরেছিলেন। এভাবে হারকিউলিস সারাবিশ্বে অপরিমেয় শক্তির অধিকারী বীরপুরুষ হওয়ার খ্যাতি অর্জন করেন।
অনুচ্ছেদটি পড়ে অার পড়িয়ে মনে মনে ভাবলাম, অামাদের শিক্ষার্থীদেরকে হারকিউলিসের বীরত্বের মিথলজি শুনালেও শিক্ষায় লুকিয়ে থাকা গলদ কখনো নিমিয়ার ভয়ানক সিংহ, কখনো হাইড্রাদৈত্যের অমরণশীল মাথা সহ অামাদের শিক্ষার্থীদের গুণগত মানকে যে গিলে খাচ্ছে সেগুলোকে মুগুর দিয়ে উৎখাতের জন্য যদি সরকার হাইড্রার অনুগত ভৃত্য ইয়োলাসের মতো কাউকে খুঁজে পেতেন! হারকিউলিস যদি অামাদের শিক্ষা কে হাইড্রা দৈত্যের কাছ থেকে উদ্ধারের জন্য কাজ করতেন তবে তাঁকে অামরা জাতীয় বীরের মর্যাদা নিশ্চয়ই দিতাম। হায় হারকিউলিস! তুমি এসে অামাদের শিক্ষাকে নিমিয়ার সিংহ কিংবা অারগোসের হাইড্রা দৈত্যের কাছ থেকে
রক্ষা কর। রক্ষাকর হে বীর পুরুষ!

লেখকঃ মো. অাব্দুল মতিন
প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ, শাহজালাল মহাবিদ্যালয়,
জগন্নাথপুর,সুনামগঞ্জ।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24