শনিবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৯, ০৭:৪৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে সমাপনী পরীক্ষার্থীদের সংবর্ধনা জগন্নাথপুরের সাম্রাটে সমাপনী পরীক্ষার্থীদের সংবর্ধনা জগন্নাথপুর পৌরসভার মেয়র মনাফকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকায় প্রেরণ জগন্নাথপুরের চিতুলিয়া গ্রামে আগুন,দুইটি ঘরসহ পুড়ল ১২ লাখ টাকার মালামাল জগন্নাথপুরে এখনও সম্পন্ন হয়নি আ.লীগের ওয়ার্ড ভিত্তিত্ব কমিটি প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষা শুরু ১৭ নভেম্বর জগন্নাথপুরে সংবাদ প্রকাশের পর অবশেষে সুযোগ পেল ১৭ পরীক্ষার্থী বন্ধ হলো ফেসবুকের সাড়ে পাঁচ’শ কোটি ভুয়া অ্যাকাউন্ট রংপুর এক্সপ্রেসে আগুন, চারটি বগি লাইনচ্যুত জেলা মহিলা আ.লীগ নেত্রী রফিকা চৌধুরীর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে জগন্নাথপুরে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

জগন্নাথপুরে শ্রমিক-ব্যবসায়ী দ্বন্দ্ব,পরিবহন ধর্মঘটের আল্টিমেটাম,অন্যদিকে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধের ঘোষনা ব্যবসায়ী নেতাদের

বিশেষ প্রতিনিধি::
  • Update Time : শুক্রবার, ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
  • ৮৯১ Time View

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে পরিবহন শ্রমিক ও মৎস্য আড়তের লোকজনের মধ্যে মারামারির ঘটনায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় স্থানীয় গণমাধ্যমে উপজেলা সড়ক পরিবহন মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের সভাপতি নিজামুল করিম ও সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলা খেজুরের যৌথ সাক্ষরে পাঠনো এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, পরিবহন শ্রমিকের এক ট্রাক চালককে মারধরের ঘটনায় থানায় মামলা রেকর্ড করা না হলে আগামী রবিবার থেকে অনিদিষ্টকালের জন্য পরিবহন ধর্মঘট পালন করা হবে। পরিবহন সেক্টরের এধরনের আল্টিমেটামের প্রতিবাদে আজ শুক্রবার বিকেল চারটার দিকে জগন্নাথপুর বাজার বাজারের বড় গলিতে মৎস্য আড়ত ও বাজারের ব্যবাসীদের উদ্যোগে বাজার বনিক সমিতির সাবেক সভাপতি প্রবীন ব্যবসায়ী আবদার হোসেন ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় ব্যবসায়ী নেতারা বলেন, তুচ্ছ বিষয়কে কেন্দ্র করে জগন্নাথপুরের বাজারের প্রবীন মৎস্য ব্যবসায়ী ও জগন্নাথপুর বাজার বনিক সভাপতি আফছর উদ্দিন ভূঁইয়াসহ ২০ থেকে ২৫ জন ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে থানায় মিথ্যা অভিযোগ অবিলম্বে প্রত্যাহার করতে হবে। অন্যতায় জগনন্নাথপুর বাজারের সকাল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে আন্দোলনের ডাক দেয়া হবে। সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জগন্নাথপুর পৌরসভার প্যানেল মেয়র শফিকুল হক, কাউন্সিলর আবাব মিয়া, সুহেল আহমদ, বাজার বনিক সমিতির সভাপতি আফছর উদ্দিন ভূঁইয়া, সাবেক সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক তাজউদ্দিন আহমদ, বাজার ব্যবস্থাপনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক জাহির উদ্দিন, ব্যবসায়ী আব্দুল জব্বার, ছালিক আহমদ পীর, মুজিবুর রহমান, শফিকুল ইসলাম লিলু, শশি কান্ত গোপ, উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি সাফরোজ ইসলাম প্রমুখ।
শ্রমিক ও ব্যবসায়ী সুত্রে জানা যায়, গত ৮ সেপ্টেম্বর হবিবনগর এলাকায় পরিবহন শ্রমিক ও মাছের আড়তের লোকজনের মধ্যে মারামারি ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ট্রাক চালক হবিবনগর এলাকার রাসেল মিয়া আহত হন। এ ঘটনায় গত ৮ সেপ্টেম্বর ট্রাক ট্যাংকলরী ও কাভারভ্যান শ্রমিক ইউনিয়ন জগন্নাথপুর উপজেলা শাখার উপ-কমিটির সভাপতি জগন্নাথপুর পৌরএলাকার লুদরপুরের বাসিন্দা ফয়জুন নুর বাদি হয়ে জগন্নাথপুর থানা একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।
ফয়জুর নুর জানান, যাত্রীবাহী গাড়ি দিয়ে আড়তের মাছ নিয়ে যাওয়ায় আমাদের শ্রমিকরা এতে বাঁধা দেন। এতে আড়তের লোকজন ক্ষিপ্ত হয়ে আমাদের শ্রমিকদের মারধর করে। এঘটনার পরের দিন অর্থাৎ ৯ সেপ্টেম্বর দুপুরে আবারও আড়তের লোকজন আমাদের সমিতির ট্রাক চালক হবিবনগর এলাকার রাসেল মিয়াকে ধরে নিয়ে গিয়ে আটক করে বেঁধে মারধর করে। পরে পুলিশ তাকে আহতাবস্থায় উদ্ধার করে স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। তিনি বলেন, এঘটনায় আমি বাদি হয়ে জগন্নাথপুর থানায় আড়ত ব্যবসায়ী আফছর উদ্দিন গংদের বিরুদ্ধে লিখিতভাবে অভিযোগ দায়ের করেছি।
জগন্নাথপুর উপজেলা সড়ক ও পরিবহণ মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের সভাপতি নিজামুল করিম বলেন, আমাদের ট্রাক চালককে অন্যায়ভাবে মারধর করা হয়েছে। এঘটনায় জগন্নাথপুর থানায় লিখিতভাবে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অভিযোগটি মামলায় রেকর্ড করা না হলে আগামী রবিবার থেকে অনিদিষ্টকালের জন্য আমরা পরিবহন ধর্মঘট কর্মসুচী পালন করবো।
জগন্নাথপুর বাজার বণিক সমিতির সভাপতি ও মৎস্য আড়ত ব্যবসায়ী আফসর উদ্দিন ভূঁইয়া জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, পরিবহন শ্রমিকরা যানবাহনের নিকট থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছে। এনিয়ে শ্রমিক ও মাছের আড়তের কর্মীদের মধ্যে কথাকাটাকাটির এক পযার্য়ে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এর ঘটনার পর আবারও শ্রমিকরা আমাদের আড়তের এক কর্মীকে মারধর করে। পরে শ্রমিক ও আড়ত কর্মীদের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটে। এবিষয়কে কেন্দ্র করে শ্রমিকরা মিথ্যা মামলা দিয়ে ব্যবসায়ীদেরকে হয়রানির চেষ্ঠা করছে। যার প্রতিবাদে শুক্রবার সভা হয়েছে। এবং পুলিশকে মিথ্যা মামলা রের্কড না করতে আহ্বান জানানো হয়েছে। তিনি বলেন, ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে এবিষয়ে জগন্নাথপুর থানায় মামলার প্রস্তুুতি চলছে।
জগন্নাথপুর পৌরসভার কাউন্সিলর আবাব মিয়া ও সোহেল আহমদ জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন. তচ্ছু বিষয়কে কেন্দ্র করে কোন গণবিরুদ্ধে কোন ধরনের কর্মসুচীকে আমরা সমর্থন করিনা। ব্যবসায়ী এবং শ্রমিকরা আমাদেরই অংশ। তাই আমরা বিষয়টি আলাপ আলোচনার মাধ্যমে নিস্পতির প্রচেষ্ঠা করবো।
জগনন্নাথপুর থানার পরির্দশক তদন্ত নব গোপাল দাস জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন,পুলিশ দুটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছে। বিষয়টি সামাজিক ভাবে নিস্পত্তির চেষ্ঠা চলছে। না হলে আইনানুগ পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24