শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৯, ০২:০১ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরের চিতুলিয়া গ্রামে আগুন,দুইটি ঘরসহ পুড়ল ১২ লাখ টাকার মালামাল জগন্নাথপুরে এখনও সম্পন্ন হয়নি আ.লীগের ওয়ার্ড ভিত্তিত্ব কমিটি প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষা শুরু ১৭ নভেম্বর জগন্নাথপুরে সংবাদ প্রকাশের পর অবশেষে সুযোগ পেল ১৭ পরীক্ষার্থী বন্ধ হলো ফেসবুকের সাড়ে পাঁচ’শ কোটি ভুয়া অ্যাকাউন্ট রংপুর এক্সপ্রেসে আগুন, চারটি বগি লাইনচ্যুত জেলা মহিলা আ.লীগ নেত্রী রফিকা চৌধুরীর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে জগন্নাথপুরে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত আর্জেন্টিনার আদালতে সু চির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের ছাতক-সুনামগঞ্জ সড়কে বিআরটিসি বাস চালুর দাবি সম্মেলনকে সামনে রেখে জগন্নাথপুরে আ.লীগের কার্যকরী কমিটির সভা অনুষ্ঠিত

ধর্ষকদের দ্রুত বিচারের মাধ্যমে কঠোর শাস্তি দিয়ে নারী সমাজকে আতঙ্কমুক্ত করা হউক- সানোয়ার হাসান সুনু

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, ২৬ মে, ২০১৭
  • ৫৯ Time View

গা শিউড়ে ওঠার মতো ঘটনা ঘটছে ইদানিং। একের পর এক ধর্ষনের ঘটনা ঘটেই চলেছে। এক আতংকজনক পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। নারীরা এখন সন্ধ্যার পর ঘর থেকে বের হতে ভয় পাচ্ছে। মানুষরূপী ধর্ষনকারী নরপশুদের এক্ষুণি গলা টিপে না ধরলে নারীদের স্বাভাবিক চলাফেরার পথ রুদ্ধ হয়ে যেতে পারে বলে অনেকেই আশংকা করছেন। গত কয়েকদিনে একাধিক ধর্ষনের ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে আলোচিত ঘটনাগুলো হচ্ছে বনানী রেইনট্রি হোটেলে বিশ্ববিদ্যালয় পড়–য়া দুই ছাত্রী ধর্ষণ, মহাখালীতে একটি আবাসিক হোটেলে তরুনী ধর্ষণ,বিয়ানী বাজারে শিশু ধর্ষণ, কিশোরগঞ্জের নিকলিতে তরুনী ধর্ষন, বরিশালের আগৈল ঝড়ায় স্কুল ছাত্রী ধর্ষন, ভোলায় লালমোহনের কিশোরী ধর্ষন, হবিগঞ্জের বানিয়াচঙ্গে শিশু ধর্ষন, ফরিদপুরের মধুখালীতে বাকপ্রতিবন্ধী কিশোরী ধর্ষন, খুলনা নগরীতে এক নও মুসলিম গৃহবধু ধর্ষন, সিলেটে জৈন্তাপুরে মা ও মেয়ে ধর্ষন, সাম্প্রতিককালে ঘটে যাওয়া কয়েকটি লোমহর্ষক ধর্ষনের বর্ণনা মাত্র। এধরণের পৈশাচিক ঘটনা প্রায় প্রতিদিনই ঘটছে। স্কুল-কলেজ-বিশবিদ্যালয়ের ছাত্রী, গৃহবধু এমন কি কোলের শিশুরা ও ধর্ষনের শিকার হচ্ছে। যেন ধর্ষনের মহোৎসব চলছে বাংলাদেশে। ধর্ষনকারী বিকৃতমনা মানুষরূপী জানোয়ারদের দ্রুত বিচারের মাধ্যমে কঠোর শাস্তি দিতে হবে। এ ব্যাপারে কোন শৈথিল্য দেখানো চলবেনা। সাম্প্রতিককালে একের পর এক ধর্ষনের ঘটনা বৃদ্ধি পাওয়াতে এক আতংকজনক পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। এক অজানা আতংকে ভুগছে নারী সমাজ। বিশেষ করে মহিলারা এখন ঘর থেকে বের হতে ভয় পাচ্ছেন। প্রশ্ন হচ্ছে, আমরা এখন কোন বাংলাদেশে বসবাস করছি? আমাদের মা-বোনেরা ইজ্জত নিয়ে চলাচল করতে পারেনা। আজ মানুষের জানমাল ও ইজ্জতের নিরাপত্তা নেই। রাষ্ট্র কি ব্যর্থ হচ্ছে? লাখো শহীদের রক্ত ও মা-বোনের ইজ্জতের বিনিময়ে পাওয়া আমাদের প্রিয় মাতৃভ’মি স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশে বর্তমানে মানবাধিকার মারাত্মকভাবে লঙ্ঘিত হচ্ছে। মানুষ যেন নির্বিঘেœ বসবাস ও চলাচল করতে পারে এবং মানুষের জান মাল ও ইজ্জতের নিরাপত্তা বিধানের দায়িত্ব কল্যাণকর রাষ্টের একান্ত দায়িত্ব। এ ব্যাপারে রাষ্ট্রকে কার্যকর ভ’মিকা পালন করতে হবে। এ বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে সরকার ও সকল রাজনৈতিক দলগুলোকে ভাবতে হবে ও কার্যকর উদ্যোগ নিতে হবে। এখানে দলবাজির কোন স্থান নেই। অপরাধী যেই হোক তাকে দৃষ্টান্তমূলক শান্তি দিতে হবে। এ ধরণের ধর্ষনকারী নরপিশাচদের যেন রাজনৈতিকভাবে আশ্রয় প্রশ্রয় দেয়া না হয়। এবং কালো টাকার কাছে বিক্রি হয়ে বিচারের পথ যেন রুদ্ধ না হয়। এ ব্যাপারে সবাইকে সজাগ থাকতে হবে। ধর্ষকসহ গুরুতর অপরাধীদের দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল গঠন করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। অন্যদিকে পর্দাপ্রথা মেনে শালীনতার মাধ্যমে মা-বোনদের চলাফেরা করা উচিৎ বলে অভিজ্ঞ মহল মনে করেন। এদিকে এক শ্রেণির উশৃঙ্খল মেয়েরা অশালীন পোষাক পড়ে উগ্রভাবে চলাফেরা করে যা মোটেই ঠিক নয়। আমাদের নারী সমাজ যদি মহান আল্লাহ’র ফরজ বিধান পর্দাপ্রথা মেনে চলাফেরা করেন, তাহলে এটাই হবে খুবই মঙ্গল জনক।

লেখক: সাংবাদিক ও কলাম লেখক

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24