1. forarup@gmail.com : jagannthpur25 :
  2. jpur24@gmail.com : Jagannathpur 24 : Jagannathpur 24
সুনামগঞ্জের ১০ কলেজ চার বছর আগে সরকারি হলেও মিলছে না সরকারি সুবিধা - জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর
বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৪:৪৭ অপরাহ্ন

সুনামগঞ্জের ১০ কলেজ চার বছর আগে সরকারি হলেও মিলছে না সরকারি সুবিধা

  • Update Time : শুক্রবার, ২৩ ডিসেম্বর, ২০২২
  • ২৯৫ Time View

বিশেষ প্রতিনিধি
সুনামগঞ্জের ১০ উপজেলায় ১০ টি কলেজ চার বছর আগে সরকারিকরণ হলেও স্থানীয় শিক্ষার্থীরা কেবল ধর্মপাশা ও শাল্লা কলেজ ছাড়া অন্য কোথাও এর সুবিধা পাচ্ছে না। ধর্মপাশা ও শাল্লা ছাড়া দীর্ঘদিন হয় চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় থাকা কলেজগুলোর শিক্ষকরা এখনো সরকারিভাবে নিয়োগ প্রাপ্ত হননি।
জেলার জামালগঞ্জ কলেজের অনার্স পড়–য়া একজন শিক্ষার্থী বৃহস্পতিবার কলেজের মাসিক টিউশন ফি’র ৫০০ (পাঁচশ টাকা) টাকার রশিদ এ প্রতিবেদকের ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে পাঠিয়ে জানতে চায়, এই টাকা আদায় ঠিক হয়েছে কী-না, দয়া করে যাচাই করবেন। বিষয়টি যাচাই করতে গিয়ে জানা গেছে, ২০১৬ খ্রি.’এর ২০ জুন সরকারি প্রজ্ঞাপনে সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ কলেজ, তাহিরপুরের বাদাঘাট কলেজ, ছাতক ডিগ্রি কলেজ, বিশ^ম্ভরপুর দিগেন্দ্র বর্মণ ডিগ্রি কলেজ, শান্তিগঞ্জের পাগলা হাইস্কুল এ- কলেজ, জগন্নাথপুর ডিগ্রি কলেজ, শাল্লা, ধর্মপাশা ও দোয়ারা কলেজ সরকারিকরণের ঘোষণা হয়।
এরপর ২০১৮ খ্রি.’এর আট আগস্ট ঘোষণা অনুযায়ী কলেজগুলো জাতীয়করণ করা হয়। জাতীয়করণ হবার প্রায় চার বছর পরেও শিক্ষক কর্মচারীরা সরকারি গেজেটভুক্ত না হওয়ায় সরকারি সুবিধা পচ্ছেন না সংশ্লিষ্ট শিক্ষক কর্মচারীরা। এছাড়া গেল চার বছর ধরে এলাকাবাসী এসব প্রতিষ্ঠানের সাইনবোর্ডে ‘সরকারি’ শব্দ যুক্ত দেখলেও টিউশন ফি প্রদানে কেবল ধর্মপাশা ও শাল্লা ছাড়া অন্য প্রতিষ্ঠানগুলোর শিক্ষার্থীরা ছাড় পায় নি।
জামালগঞ্জ সরকারি কলেজে শিক্ষার্থীর সংখ্যা দুই হাজার সাতশ প্রায়। এই কলেজ সরকারিকরণের আগে যে টিউশন ফি নেওয়া হতো, এখনো সেটিই নেওয়াা হচ্ছে। যেমন একাদশ শ্রেণিতে মাসে টিউশন ফি ২০০ টাকা, ডিগ্রিতে ২৫০ টাকা এবং অনার্সের শিক্ষার্থীদের টিউশন ফি নেওয়া হয় মাসে ৫০০ টাকা।
অথচ ধর্মপাশা ডিগ্রি কলেজে ২০১৮ সাল থেকে একাদশ ও ডিগ্রি শ্রেণিতে ভর্তি ফি নেওয়া হচ্ছে ২৫ টাকা থেকে ৩০ টাকা। শাল্লা সরকারি কলেজে গত বছর থেকে (২০২১ খ্রি. হতে) একাদশ ও ডিগ্রি শ্রেণিতে টিউশন ফি নেওয়া হচ্ছে ২০ টাকা থেকে ২৫ টাকা।

শাল্লা কলেজের অধ্যক্ষ মো. আব্দুশ শহীদ বললেন, ২০১৬ সালের ২০ জুনে প্রজ্ঞাপনে জানানো হয় কলেজ সরকারিকরণের আওতায় নেবার কথা। ২০১৮ সালের ৮ আগস্ট জাতীয়করণ হয়। প্রথমে প্রতিষ্ঠান গেজেটভুক্ত হয়। গেল ১৪ আগস্ট শিক্ষকদের গেজেটভুক্ত করে চিঠি পাঠানো হয়। ২০ আগস্ট আমরা নিয়ম অনুযায়ী যোগদান করেছি। আমাদের কলেজসহ একসঙ্গে হওয়া ১৮ টি কলেজের শিক্ষক কর্মচারীদের বকেয়া বেতন পরিশোধের অর্থ বরাদ্দের চিঠিও শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে অর্থ মন্ত্রণালয়ে গেছে। তিনি জানান, জাতীয়করণের প্রথম দিকে তারাও বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নিয়মেই টিউশন ফি নিয়েছেন। গেল বছর থেকে সরকারি নিয়মে টিউশন ফি নেওয়া হচ্ছে। তার মতে শিক্ষকরা যেহেতু সরকারি নিয়ম অনুযায়ী বেতন ভাতা পাবেন, সেহেতু টিউশন ফি বেসরকারি নিয়মে নেওয়া ঠিক হবে না ভেবেই তারা টিউশন ফি কমিয়েছেন।
ধর্মপাশা সরকারি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আব্দুল করিম বললেন, কলেজ যেহেতু জাতীয়করণ হয়েছে। শিক্ষকরাও সেই অনুযায়ী বকেয়া বেতন পাবেন। তাহলে শিক্ষার্থী ফি কেন বেশি নেব। এজন্য জাতীয়করণের ঘোষণার পর থেকেই সরকারি নিয়মে টিউশন ফি নেওয়া হচ্ছে।
বিশ^ম্ভরপুর কলেজের অধ্যক্ষ বিমলাংশু রায় বললেন, প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ হবার পর যেসব শিক্ষক মারা গেছেন, তারা বকেয়া পাবেন না। যারা অবসরে গেছেন, তারা বকেয়া পাবেন। তিনি জানালেন, জাতীয়করণ হলেও কলেজের সকল খরচ চালাতে টিউশন ফি ছাড়া এখনো পর্যন্ত কোন অর্থ পাওয়া যায় নি। এজন্য আগের নিয়মেই টিউশন ফি নেওয়া হচ্ছে। একেক কলেজে একেক রকম টিউশন ফি আদায় করায় বিতর্ক তৈরি হয় বলেও মন্তব্য করলেন এই অধ্যক্ষ।
জামালগঞ্জ কলেজের অধ্যক্ষ রফিকুল বিন বারী বললেন, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের নির্দেশ মোতাবেক বেসরকারি আমলের নিয়ম অনুযায়ীই টিউশন ফি নেওয়া হচ্ছে। তিনি জানালেন, শিক্ষকদের জাতীয়করণের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত না হওয়া পর্যন্ত জাতীয়করণের সুফল শিক্ষার্থী অভিভাবকরা পাচ্ছেন না।
মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের সিলেট অঞ্চলের পরিচালক প্রফেসর মো. আব্দুল মান্নান খান বললেন, একসঙ্গে তিনশ এর বেশি প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ হয়েছিল। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর তাতে প্রাথমিক প্রক্রিয়ার কাজ করে। শিক্ষা, সংস্থাপন, অর্থ মন্ত্রণালয় ছাড়াও কেবিনেট ডিভিশন হয়ে এর চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়। নিয়োগের কাগজপত্রসহ নানা বিষয় নির্ভুলভাবে যাচাই-বাছাই করতে সময় লাগছে। প্রতি সপ্তাহে কোন না কোন জাতীয়করণকৃত প্রতিষ্ঠানের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হচ্ছে। পর্যায়ক্রমে সবগুলোর প্রক্রিয়াই শেষ হবে। সূত্র সুনামগঞ্জের খবর





শেয়ার করুন

Comments are closed.

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২৩
Design & Developed By ThemesBazar.Com
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com