সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৩:৩৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম:

জগন্নাথপুর উপজেলা উপ-খাদ্য পরির্দশক শামসুছ হকের বিরুদ্ধে উৎকোচের বিনিময়ে চাল সংগ্রহের প্রতিবেদন দেয়ার অভিযোগ- মিল মালিকরা ক্ষুব্দ

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ২৯ জুলাই, ২০১৫
  • ৪১ Time View

স্টাফ রিপোর্টার:; জগন্নাথপুর উপজেলা উপ-খাদ্য পরির্দশক শামসুছ হকের বিরুদ্ধে ব্যাপক অনিয়ম ঘুষ দুর্নীতি ক্ষমতার অপব্যবহার ও অসদাচরনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এছাড়াও তার বিরুদ্ধে উপজেলা মিল মালিক সমিতির নেতারা চলমান বোরোমৌসুমে লাইসেন্সভূক্ত স্থানীয় সচল বরাদ্দযোগ্য চালকল সমূহের অনুকূলে পাক্ষিক মিলিং ক্ষমতার ভিত্তিতে বিভাজনের তদন্ত প্রতিবেদন মোঠা অংকের উৎকোচের বিনিময়ে প্রেরণের অভিযোগ তুলেছেন। অভিযোগে মিল মালিকরা জানান, মিল সার্ভের নামে মিল মালিকদের কাছ থেকে টাকা আদায়ের মাধ্যমে নাম স্ববস্থ মিল মালিকদের মিলগুলোর পাক্ষিক মিলিং ক্ষমতা বাড়াইয়া দিয়ে প্রকৃত মিলগুলোর পাক্ষিক ক্ষমতা কমিয়ে দেয়ার কাজ করেন সমাছুল । এছাড়াও কয়েকটি বন্ধ থাকা মিল মালিকদের উৎকোচের বিনিময়ে পাক্ষিক মিলিং ক্ষমতা বাড়িয়ে দেন। যার প্রেক্ষিতে বিভাজনের ফলে মিল মালিকদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ ও অসন্তোষ দেখা দিয়েছে। মঙ্গলবার মিল মালিকরা সভা করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট এরকম অভিযোগ করেন। এছাড়াও মিল মালিকরা জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তা বরাবরে তার বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দেন। এছাড়াও মিল মালিকরা লিখিত অভিযোগে পূন তদন্তের আবেদন করেন। মিল মালিক সমিতির পক্ষে জগন্নাথপুর উপজেলা মিল মালিক সমিতির সভাপতি জামাল মিয়া তালুকদার ও সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রিজু পূন তদন্তের লিখিত অভিযোগ দেন। অপরদিকে মিল মালিক সমিতির পক্ষে ছমির উদ্দিন সুমন জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তা বরাবরে তার বিরুদ্ধে অনিয়ম দুনীতির পৃথক অভিযোগ দেন।
জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির বলেন, উপ-খাদ্য পরির্দশকের বিরুদ্ধে মিল মালিকদের অভিযোগ ও পূন তদন্তের আবেদন পেয়েছি। তিনি বলেন, মিল সমূহের বিভাজন নিয়ে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। বিষয়টি সূরাহার চেষ্ঠা করছি।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24