শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১২:৫৬ অপরাহ্ন

তাহিরপুরে পল্লী বিদ্যুতের ট্রান্সফরমার বসানোকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে আহত ৩০: কম্পিউটার সহ ৩টি দোকান ভাংচুর

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ২৮ মে, ২০১৫
  • ৩১ Time View

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি-সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে পল্লী বিদ্যুতের ট্রান্সফরমার বসানোকে কেন্দ্র করে উভয় পক্ষ্যের লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় কমপক্ষ্যে ৩০ জন আহত হয়েছেন। এছাড়াও একটি পক্ষ্য বেপরোয়া ভাবে তান্ডব চালিয়ে স্থানীয় বাজারের ১টি কমম্পিউটারের দোকান ও অপর ২টি মুদি দোকানকোটায় ভাংচুর চালিয়েছে। আহতদের মধ্যে আশংকাজনক অবস্থায় বৃহস্পতিবার রাতে ৬ জনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। উপজেলার উওর শ্রীপুর ইউনিয়নের চারাগাঁও সীমান্তের কলাগাঁও মাইজহাটির মোড়ে এ সংঘর্ষের ঘটনাটি ঘটেছে।স্থানীয় এলাকাবাসী ও মোড়ের ব্যবসায়ীদের সুত্রে জানা যায়, উপজেলার কলাগাঁও এলাকায় নতুন করে শতাধিক বসতবাড়ি ও দোকানকোটায় পল্লী বিদ্যুতের সংযোগ প্রদান করার জন্য ১০ কেভি ট্রান্সফরমার বদল করে ১৫ কেভি বিদ্যুত ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন একটি ট্রান্সপরমার প্রদান করা হয়েছে। কলাগাঁও মাইজহাটির মোড়ে সড়কের উওরের খুঁটিতে ট্রান্সফরমারটি বদল করে নতুন ট্রান্সফরমারটি বসানোর জন্য গত প্রায় দু’ সপ্তাহ ধরে উপজেলার বাদাঘাট অভিযোগ কেন্দ্রের সদস্যরা চেষ্টা করে ব্যার্থ হওয়ার পর নতুন গ্রাহকের পক্ষ্যে কলাগাঁও মাইজহাটি মোড়ের শামসুদ্দিনের ছেলে আজিজুল একই গ্রামের মৃত নুরুল হকের ছেলে রতনকে অনুরোধ করেন। কিন্তু রতনের আতাভুক্ত খুঁটিটি দাবি করে অযাচিত ট্রান্সফরমার বদল করে নতুন ট্রান্সফরমার বসাতে বাঁধা প্রদান করেন। এ নিয়ে গতকাল রবিবার সন্ধায় আজিজুল ও রতনের মধ্যে কথা কাঁটাকাটি হলে রতন তার পরিবারের লোকজনকে সংঘটিত করে ধারালো রামদা নিয়ে আজিজুলের ওপর হামলা করেন। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে আজিজুলের পরিবারের লোকজনও প্রতিরোধ করতে এগিয়ে আসলে পওে উভয় পক্ষের লোকজন দেশীয় অশ্বস্বস্ত্র ও লাঠিসোটা, রামদা নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। প্রায় আধাঘন্টা ব্যাপী সংঘর্ষে উভয় পক্ষের কমপক্ষে ৩০ জন আহত হয়েছেন। আহতরা হলেন, আজিজুলের পক্ষের আজিজুল, লাল চাঁন, মতলেব, আল-আমিন, মতিন, সবুজ ও আলম। অপরদিকে রতনের পক্ষের আহতরা হলেন, রতন, হাবি রহমান, ও ছিদ্দিক। আহতদের মধ্যে আশংকাজনক অবস্থায় উভয় পক্ষের ৬ জনকে গতকাল সন্ধায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এদিকে এলাপাতারী ধাওয়া ও হামলার সময় রতনের নেতৃত্বে রতনের লোকজন কলাগাঁও মাইজহাঁটির মোড়ে নিরীহ ব্যবসায়ী আমিনের কম্পিউটার, বিকাশ ও ফ্ল্যাক্সি লোডের দোকান, হরজুলের এবং রহমতের অপর দু’টি মুদি দোকান ভাংচুর করে প্রায় ৩ থেকে ৫ লাখ টাকার ক্ষতিসাধান করেছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24