রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৮:২৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে নৌপথে বেপরোয়া ‘চাঁদাবাজি’,চাঁদা না দিলে শ্রমিকদের মারধর করে লুটে নেয় মালামাল মিরপুরের সেই প্রার্থী আপিলে ফিরলেন নির্বাচনী লড়াইয়ে মিরপুর ইউপি নির্বাচনে প্রার্থিতা প্রত্যাহার করলেন দুইজন, কাল প্রতিক বরাদ্দ পড়াশোনার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের নামাজ শেখানো হয় যে বিদ্যালয়ে পানির নিচে প্রেমিকাকে বিয়ের প্রস্তাব দিতে গিয়ে মৃত্যু! সিলেটে চারদিনের রিমান্ডে পিযুষ যুক্তরাষ্ট্রে বন্দুকধারীর গুলিতে নিহত ২ জগন্নাথপুরে ৩৯টি মন্ডপে দুর্গাপূজার প্রস্তুতি,চলছে প্রতিমা তৈরীর কাজ জগন্নাথপুর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কমিটির বিরুদ্ধে অপপ্রচারে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত জগন্নাথপুরে ৬ মাসেও বকেয়া টাকা মিলেনি, ঋণের চাপে দিশেহারা পিআইসিরা

নিজ দলের এমপিরা অনাস্থা দেবেন তেরেসার বিরুদ্ধে!

Reporter Name
  • Update Time : সোমবার, ২৪ জুলাই, ২০১৭
  • ৫৪ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম ডেস্ক :: নিজ দল কনজার্ভেটিভেই বিদ্রোহের মুখে পড়ছেন বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মে। এরই মধ্যে তার ওপর অনাস্থা প্রকাশের একটি চিঠিতে স্বাক্ষর করতে তার দলের কমপক্ষে ১৫ জন এমপি সম্মতি দিয়েছেন বলে খবর বেরিয়েছে। যদি এভাবে তার নেতৃত্বকে চ্যালেঞ্জ করা হয় তাহলে আরেকটি সাধারণ নির্বাচনের দিকে ধাবিত হতে পারে বৃটেন। এ ছাড়া পার্লামেন্টের গ্রীষ্মকালীন অধিবেশনের বিরতির সময়টা তার ভবিষ্যতের জন্য হয়ে উঠতে পারে গুরুত্বপূর্ণ। এ খবর দিয়েছে বৃটেনের অনলাইন দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট। এতে বলা হয়েছে, প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্ব চ্যালেঞ্জ করতে হলে প্রয়োজন হবে কমপক্ষে ৪৮ জন এমপি। কিন্তু বিদ্রোহী শিবিরে এখন পর্যন্ত পাওয়া যাচ্ছে ১৫ জনকে। এতে বলা হচ্ছে নেতৃত্ব চ্যালেঞ্জের সঙ্গে থাকা এমপিদের তেরেসা মে বলেছেন, হয়তো তিনি থাকবেন না হয় জেরেমি করবিন। তার এ বক্তব্যের পর নেতৃত্ব চ্যালেঞ্জের বিষয়টি উঠে এসেছে। সাবেক একজন মন্ত্রী দ্য সানডে টাইমসকে বলেছেন, বৃটেনে কি ঘটছে তার ওপর ভিত্তি করে বিদ্রোহ করা এসব এমপির সংখ্যা দিন যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে পরিবর্তন হবে। এখন পর্যন্ত ১৫ জন এমপি আছেন যারা নেতৃত্ব পরিবর্তনের ইচ্ছা পোষণ করেন। প্রধানমন্ত্রী যদি ভালোয় ভালোয় গ্রীষ্মটা পার করে দিতে পারেন আর কোনো সঙ্কট না থাকে, কোনো অব্যবস্থাপনা না হয় তাহলে তিনি দলীয় সম্মেলন পর্যন্ত টিকে থাকতে পারেন। কিন্তু এক্ষেত্রে এখনো একটি বড় ‘যদি’ রয়ে গেছে। গত সপ্তাহে দলীয় এমপিদের নিয়ে গ্রীষ্মকালীন অনুষ্ঠানে বলেছেন, বেরিয়ে পড়–ন। যথাযথভাবে ছুটি কাটান। তারপর গুরুতর কাজ করার জন্য প্রস্তুতি নিয়ে ফিরে আসুন। ওই অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী তাদেরকে বলেছেন, কারো পিছু লাগা নয়। কারো খুত ধরা নয়। পছন্দ হলো আমি অথবা জেরেমি করবিন। তবে জেরেমি করবিনকে কেউ চায় না। এ বিষয়টি জানিয়েছেন ওই অনুষ্ঠানে উপস্থিত কনজার্ভেটিভ দলের এমপিরা। ওদিকে কনজার্ভেটিভ দলের নেতৃত্ব প্রশ্নে এক জরিপে প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মে’র স্থানে প্রার্থী তালিকায় শীর্ষ রয়েছেন ব্রেক্সিট বিষয়ক মন্ত্রী ডেভিড ডেভিস। তবে বেশির ভাগই এ পদে প্রধানমন্ত্রী তেরেসা থাকুন এমনটা চান। শিক্ষাবিদদের চালানো জরিপে দেখা গেছে প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে ক্ষমতা ডেভিড ডেভিস নিন এমনটা চান শতকরা ২১ ভাগ মানুষ। তার পরেই রয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী বরিস জনসন। তাকে সমর্থন করেছেন শতকরা ১৭ ভাগ মানুষ। অন্যদিকে পার্লামেন্টে পিছনের সারির জ্যাকব রিস-মগ’কে চান শতকরা ৬ ভাগ। ওই জরিপের ফল পেয়েছে দ্য অবজার্ভার। তাতে দেখা গেছে কেন তেরেসা মে’র উত্তরসুরি দেখতে চায় বৃটিশরা এর কারণ হয়তো জানে না অথবা মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে শতকরা ২৬ ভাগ মানুষ। অন্যদিকে শতকরা ৭১ ভাগ মানুষ মনে করেন তেরেসা মে এখনই পদত্যাগ করুন। শতকরা ২২ ভাগ তাকে এই পদেই চান।
সুত্র-মানব জমিন

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24