শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১২:১৪ পূর্বাহ্ন

পৈশাচিক নির্যাতন করে শিশু হত্যা রাজন আর রাকিবের পথে প্রাণ হারাল রবিউল

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ৬ আগস্ট, ২০১৫
  • ১৪৯ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডেস্ক:: পৈশাচিক নির্যাতন করে শিশু হত্যা যেন থামছেই না। সিলেটে শেখ সামিউল আলম রাজন এবং খুলনার রাকিবুল ইসলাম রাকিবকে হত্যার পর এবার বরগুনার তালতলীতে ১১ বছরের এক শিশুকে চোখ উপড়ে ও পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। মাছ চুরির অভিযোগে তাকে এভাবে হত্যা করা হয়।
উপজেলার ছোট আমখোলা গ্রামের এক মাছের ঘের থেকে মঙ্গলবার বিকালে শিশুটির লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। শিশুটির নাম রবিউল ইসলাম। সে ওই এলাকার ফরাজি বাড়ি দাখিল মাদ্রাসার চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্র। তার বাবার নাম মো. দুলাল মৃধা।
এ ঘটনায় রবিউলের বাবা তালতলী থানায় বুধবার হত্যা মামলা করেছেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে বুধবার প্রধান অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
রবিউলের পরিবারের সদস্যরা জানান, সোমবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে ঘর থেকে রবিউল বের হয়ে যায়। এরপর আর ফেরেনি। মঙ্গলবার দুপুর পর্যন্ত অনেক খোঁজাখুঁজি করেও ওকে পাওয়া যায়নি। বিকালে এক কিশোর স্থানীয় লকরার খালের মাছের ঘেরে রবিউলের লাশ পড়ে থাকার খবর দেয়। সেখানে গিয়ে রবিউলের লাশ খালে ভাসতে দেখা যায়। তার বাম চোখটি উপড়ে ফেলা হয়েছে এবং থুতনির নিচে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।
পুলিশ ও রবিউলের স্বজনরা জানান, একই এলাকার দেলোয়ারের ছেলে মিরাজ (২৮) জাল পেতে নিয়মিত মাছ শিকার করে। কয়েকদিন আগে মিরাজ অভিযোগ করে, রবিউল ওই জাল থেকে মাছ চুরি করেছে। এ নিয়ে দু-তিন আগে মিরাজ তাদের (রবিউল) বাড়িতে এসে রবিউলকে হত্যার হুমকি দেয়। স্থানীয় খালেক সরদার জানান, মঙ্গলবার রাতেও মিরাজ বেশ কয়েকবার রবিউলকে খোঁজাখুঁজি করেছে। রবিউলের লাশ পাওয়ার পর মিরাজ আত্মগোপনের চেষ্টা করে।
কান্নাজড়িত কণ্ঠে রবিউলের বাবা দুলাল মৃধা জানান, ‘মোর পোলায় ফরাজি বাড়ি মাদ্রাসায় পড়ে। হে কেউর কিছু চুরি হরে নাই। হেরহম কেউ কোনো পেরমান দেতে পারবে না। হ্যার পরও দেলোয়ারের পোলা মিরাজ মোর পোলাডারে মাইররা হালাইলে। মুই এর বিচার চাই।’ দুলাল মৃধা আরও জানান, ওইদিনই সে (মিরাজ) বলেছিল, রবিউলকে হাতেনাতে ধরতে পারলে মেরে ফেলবে।
রবিউলের মা মোর্শেদা জানান, ‘মোর পোলায় মাছ চুরি হরে নাই। তবুও অরা মোর পোলার দোষ দেয়। কয়দিন আগেও মোর পোলারে মাইররা হালাইবে কইয়া হুমকি দিয়া গ্যাছে। এ্যাহন মোর পোলার লাশ পাইছি। মিরাজ ছাড়া আর কেউ মারে নাই।’ এমনটি বলতে বলতে অজ্ঞান হয়ে পড়ে রবিউলের মা মোর্শেদা।
তালতলী থানার ওসি বাবুল আখতার জানান, বুধবার দুপুরে রবিউলের বাবা দুলাল মৃধা থানায় এসে হত্যা মামলা করেন। তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত মিরাজকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে খুনের কিছু আলামত জব্দ করেছি।
বরগুনার পুলিশ সুপার বিজয় বসাক জানান, হত্যার অভিযোগ পেয়ে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পেয়েছি। অভিযুক্তকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে আশা করি সবকিছু বেরিয়ে আসবে। সে অনুযায়ী আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।
বরগুনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে ময়নাতদন্ত শেষে বুধবার দুপুরে রবিউলের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। লাশ বাড়িতে আনার পর তাকে স্থানীয় কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।
এদিকে বার্তা সংস্থা বিডিনিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম রবিউলের ফুপাতো বোন সাহিদার একটি উদ্ধৃতি তুলে ধরেছে। সাহিদা বলেন, ‘রবিউল নাকি জাল থেইকা মাছ ছাড়াইতে গেছে। পরে মিরাজ ওরে শাবল দিয়া পিটান মারছে। পিটান মাইরা ওর একটা চোখ ডাবাইয়া ফালাইছে। কপালেরও অর্ধেক ফালাইয়া দিছে।’ পুলিশ বলছে, এ অভিযোগ খতিয়ে দেখা হচ্ছে।
সোমবার রাতে খুলনার টুটপাড়ায় একটি মোটর গ্যারেজে মলদ্বারে পাইপের মাধ্যমে হাওয়া ঢুকিয়ে ১২ বছরের শিশু রাকিবকে হত্যা করা হয়। এর আগে ৮ জুলাই সিলেটে পিটিয়ে ও খুঁচিয়ে খুঁচিয়ে হত্যা করা হয় ১৩ বছরের শিশু রাজনকে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24