মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯, ০৬:১৯ পূর্বাহ্ন

প্রসঙ্গ জগন্নাথপুর ছাত্রলীগের সন্মেলন- জেলা আওয়ামীলীগের বিরোধের কারনে তিরে এসে তরী ডুবল

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, ২৬ এপ্রিল, ২০১৫
  • ৭৭ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডেস্ক :: জগন্নাথপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সন্মেলন অনিদিষ্টকালের জন্য স্থগিত করা হয়েছে। সকল প্রস্তুুতি সম্পন্নের পর উপজেলা ছাত্রলীগের নেতারা জেলা আওয়ামীলীগের গ্রুপিং কোন্দলের বলি হয়ে তিরে এসে তরী ডুবল। ছাত্রলীগ নেতারা সন্মেলন স্থগিত করতে বাধ্য হন। এদিকে দীর্ঘ প্রতিক্ষিত এ সন্মেলন স্থগিত হওয়ায় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে হতাশা দেখা দেয়। গত কয়েক দিন ধরে সন্মেলনকে সামনে রেখে জগন্নাথপুরে যে উৎসবের আমেজ ছিল তা এক নিমিষে বেদনার সূরে পরিণত হয়।
উপজেলা ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা জানান, দীর্ঘ ছয় বছর পর আজ (রোববার) উপজেলা ছাত্রলীগের সন্মেলনের দিনক্ষন ঠিক করা হয়। সন্মেলনকে সামনে রেখে সন্মেলন সফলের লক্ষ্যে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়। কিন্তুু সন্মেলনে অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান, কে প্রধান অতিথি ও জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি সিদ্দিক আহমদকে বিশেষ অতিথি ও জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ফজলে রাব্বি স্মরণ ও সাধারণ সম্পাদক রফিক চৌধুরীকে উদ্বোধক করে চিঠি ও পোষ্টার প্রকাশ করা হয়। জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি ফজলে রাব্বি স্মরণ সন্মেলনে তাঁর মা সংরক্ষিত মহিলা সাংসদ সামছুন্নাহার বেগম শাহানা রব্বানী, ও সুনামগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন রতন কে বিশেষ অতিথি হিসেবে সন্মেলনে উপস্থিত রাখার প্রস্তাব করেন। এনিয়ে শুরু হয় আলোচনা। এছাড়াও সন্মেলনের প্রধান অতিথি অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নানের সফরসঙ্গী হিসেবে সুনামগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন রতন আসবেন বলে প্রচার হওয়ায় জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সাবেক সাংসদ মতিউর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক নুরুল হুদা মুকুট সন্মেলনে তাদেরকে অতিথি না করায় ক্ষুব্দ হন। এসব পরিস্থিতি বিবেচনা করে উপজেলা ছাত্রলীগের নেতারা গতকাল শনিবার সভা করে সন্মেলন অনিদিষ্ট সময়ের জন্য স্থগিত ঘোষনা করেন। এদিকে সন্মেলন স্থগিত হওয়ায় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে হতাশা দেখা দেয়। দীর্ঘ দিন ধরে যারা সন্মেলনের মাধ্যমে নতুন নের্তৃত্ব প্রত্যাশা করছিলেন তারা হতাশ হন। জগন্নাথপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি প্রার্থী পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাফরোজ ইসলাম বলেন,ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা মেয়াদোর্ত্তীণ কমিটি বিলুপ্ত করে নতুন কমিটি গঠনের জন্য দীর্ঘ দিন ধরে দাবি জানিয়ে আসছেন। আমরা আশা করেছিলাম সন্মেলনের মাধ্যমে নতুন নের্তৃত্ব আসবে। কিন্তুু সন্মেলন স্থগিত হওয়ায় নেতাকর্মীদের মধ্যে কিছুটা হতাশা দেখ দিয়েছে। তবে আমরা আশাবাদী জগন্নাথপুর উপজেলা ছাত্রলীগকে চাঙ্গা করতে দ্রুত নতুন কমিটি আসবে।
উপজেলা ছাত্রলীগের আরেক সভাপতি প্রাথী কল্যাণ কান্তি রায় সানী বলেন, সন্মেলন উপলক্ষে ছাত্রলীগের মধ্যে যে জাগরন সৃষ্টি হয়েছিল। তা ধরে রাখতে হলে দ্রুত সিদ্ধান্ত আসতে হবে।
জগন্নাথপুর উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি মুজিবুর রহমান মুজিব ও সাধারণ সম্পাদক কুতুব উদ্দিন জুয়েল সন্মেলন স্থগিতের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সাথে জেলার সাংসদের বিরোধীতার কারণে ছাত্রলীগকে বলীর পাঠা হয়ে সন্মেলন স্থগিত করতে হয়েছে।

সুনামগঞ্জ ৪ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি আলহাজ্ব মতিউর রহমান জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, ছাত্রলীগ আওয়ামীলীগের অঙ্গসহযোগী সংগঠন। তাই আওয়ামীলীগকে দাওয়াত না দিয়ে ছাত্রলীগের সন্মেলন হতে পারে না। এ উপলব্ধি থেকে স্থানীয় নের্তৃবৃন্দ ছাত্রলীগের সন্মেলন স্থগিত করেছেন বলে মনে হয়।

এপ্রসঙ্গে সুনামগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন রতন জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, ছাত্রলীগ আওয়ামীলীগের অঙ্গসহযোগী সংগঠন হলেও ছাত্রলীগ তাঁর নিজস্ব গতিতে চলবে। কাকে দাওয়াত দিবে না দিবে তারা বুঝবে। মুরব্বী হিসেবে সুপরামর্শ নিতে পারে। তিনি বলেন, শেখ হাসিনা ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও সম্পাদক কে দল লীজ দেননি।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24