সোমবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৯, ১১:৩৯ অপরাহ্ন

মৌলভীবাজার সদর ব্র্যাক অফিস থেকে অপহৃত ব্যাক্তিকে উদ্ধার করেছে পুলিশ

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ৩০ এপ্রিল, ২০১৫
  • ৮০ Time View

নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ)প্রতিনিধি::নবীগঞ্জ উপজেলার দিনারপুরে এক লন্ডনী চক্রের মিথ্যা মামলার বিরুদ্ধে ফুঁসে উঠেছে গ্রামবাসী। ঐ গডফাদারের মিথ্যা অপহরণ মামলার দাযেরের ৪ দিনের মাথায় অপহৃত ব্যাক্তিকে বুধবার সকালে নবীগঞ্জ থানা পুলিশ মৌলভীবাজার সদর উপজেলার মোস্তফাপুর ব্র্যাক অফিস থেকে উদ্ধার করেছে। গ্রামবাসি গতকাল ঐ মামলাবাজ লন্ডনীর মিথ্যা মামলা চক্রের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সভা করেছে। ঘটনাটি নিয়ে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।
জানাযায়, নবীগঞ্জ উপজেলার দেবপাড়া ইউনিয়নের সদরঘাট কবুলেশ্বর গ্রামের লন্ডন প্রবাসী আসাদ মিয়া, র‌্যাবের সোর্স দাবীদার মোহাম্মদ আলী ও জাহাঙ্গীর মিয়া গংদের সাথে গ্রামের পঞ্চায়েত পক্ষের সাথে লায়েক পতিত জায়গা নিয়ে বিরুধ সৃষ্টি হয়। কিছুদিন পূর্বে লন্ডন প্রবাসী আসাদ মিয়া জোর পুর্বক গ্রামের পঞ্চায়েতী গোচারন ভূমি মালিকানা দাবী করে দখল করে গৃহ নির্মানের চেষ্টা করলে গ্রামবাসী তাদের বাঁধা দেয়। এ নিয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান এডঃ মাসুম আহমেদ জাবেদের মধ্যস্থতায় সালিশ বৈঠকে লন্ডন প্রবাসী ও তার সাঙ্গপাঙ্গরা পঞ্চায়েতী গোচারন ভূমি দখল ছেড়ে দেয়। গ্রামবাসীকে সে জানায় ওই জায়গাতে আর দখলে যাবেনা। এক পর্যায়ে ওই সুচতুর ওই লন্ডন প্রবাসী ও মোহাম্মদ আলী গ্রামের সাধারন মানুষকে হয়রানী করতে গত ২০ এপ্রিল পঞ্চায়েত পক্ষের প্রায় ৩৩জনকে আসামী করে নবীগঞ্জ থানায় একটি মামলা এফ আই আর ভুক্ত করান। এ খবর শুনে পুরো গ্রামবাসী হতবাক হয়ে পড়েন। গ্রামে ছড়িয়ে পড়ে তুমুল উত্তেজনা। পরদিন ওই লন্ডন প্রবাসী আসাদ মিয়া তার জীবনের নিরাপত্তা ছেয়ে গ্রামবাসীর বিরুদ্ধে হবিগঞ্জ আদালতে ১০৭ ধারায় আরেকটি মামলা দায়ের করেন এবং ওই দিনই রাতে লন্ডন প্রবাসী আসাদ মিয়া তার চাচাতো বাড়ির কাজের লোক রফিক মিয়াকে বাদী করে তার পাওয়ার টিলা গাড়ীর চালক ও বাড়ির কেয়াটেকার ছালিক মিয়াকে অপহরণের অভিযোগ করে আরেকটি মামলা থানায় এফআইআর ভুক্ত করান। এসব সাজানো মামলার হয়রানির শিকার হয়ে গ্রামবাসী স্থানীয় চেয়ারম্যানের কাছে বিচার প্রার্থী হন। কিন্তু লন্ডনী আসাদ মিয়া ও মোহাম্মদ আলী গংরা গ্রামবাসীকে আল্টিমেটাম দেয় তাদের নিশ্চিহৃ করে ছাড়বে। আর না হয় তাদের কে গ্রামের গোচারণ ভূমি ছেড়ে দিতে হবে। আর নিখোঁজ ছালিক কে ফিরিয়ে দিতে হবে।
গ্রামের লোকজন মিথ্যা মামলায়ক্রান্ত হয়ে পালিয়ে ভেড়াচ্ছিলেন। একপর্যায়ে গ্রামবাসি জানতে পারেন নিখোঁজ ছালিক মিয়া মৌলভীবাজার সদর উপজেলার মোস্তফাপুর আঞ্চলিক ব্র্যাক অফিসের কেয়ারটেকার হিসাবে কাজ করছে। এখবর পেয়ে তারা স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান এডঃ মাসুম আহমেদ জাবেদ কে সঙ্গে নিয়ে মৌলভীবাজার সদর উপজেলার মোস্তফাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শেখ রুমেল আহমদ ইউপি সদস্য মনসুর আহমদ ও মুশাহিদ আলমকে সঙ্গে নিয়ে অপহৃত ছালিককে ব্র্যাক অফিসে আটক করে নবীগঞ্জ থানায় খবর দেন। খবর পেয়ে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ওসি (তদন্ত )গৌর চন্দ মজুমদার একদল পুলিশ নিয়ে মৌলভীবাজার সদর থানার সহযোগিতায় ছালিক মিয়াকে উদ্ধার করে নবীগঞ্জ থানায় নিয়ে আসেন। এরপর থেকে লন্ডন প্রবাসী ও তার সাথীরা গাডাকা দিয়েছে। এদিকে গতকাল গ্রামবাসি সদরঘাট ইমামগঞ্জ বাজারে লন্ডনী মামলাবাজ আসাদ মিয়া ও মোহাম্মদ আলীর গ্রেফতারের দাবিতে প্রতিবাদ সভা করেছে।প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন অলিদুর রহমান,আমির হোসেন,মতলিব মিয়া,তাজুদ মিয়া, মজিদ মিয়া প্রমূখ।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24