মঙ্গলবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০২:৫০ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
পরিকল্পনামন্ত্রীর ডিও লেটারে জগন্নাথপুরে ২১টি স: প্রা: স্কুলে নতুন ভবন নির্মাণ হচ্ছে সুনামগঞ্জে স্বামীর মৃত্যুর খবর পেয়ে স্ত্রীর আত্মহত্যা জগন্নাথপুর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে মিড ডে মিল চালু জগন্নাথপুরে প্রকাশ্য দিবালোকে গ্রামীণ ফোনের ৫ লাখ টাকা ছিনতাই, জনতার ধাওয়ায় বাইকসহ আটক ১ জগন্নাথপুরে সড়ক রক্ষায় ১০ টন ওজনের অধিক যান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা মিরপুর ইউপি নির্বাচনে প্রার্থীদের মধ্যে প্রতিক বরাদ্দ, আনুষ্ঠানিকভাবে প্রচারণা প্রার্থীরা গরুর মাংস বিক্রি: ভারতে খ্রিস্টান যুবককে পিটিয়ে হত্যা জগন্নাথপুরের ব‌্যবসায়ী ফেরদৌস মিয়া খুনের ঘটনায় সানিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড সুনামগঞ্জে হত্যা মামলায় একজনের মৃত্যুদণ্ড, তিনজনের যাবজ্জীবন ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের ওপর ছাত্রলীগের ‘হামলা’ আহত ২৫

উত্তর পূর্বাঞ্চলের সবচেয়ে বড় তীর্থস্থান যাদুকাটায় স্নান সম্পন্ন

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ৩ এপ্রিল, ২০১৯
  • ৮১ Time View

বিশেষ প্রতিনিধি
দেশের উত্তর পূর্বাঞ্চলের সবচেয়ে বড় তীর্থস্থান সুনামগঞ্জ সীমান্তের তাহিরপুরের জাদুকাটায় (পনাতীর্থে) এবার লাখো পূণ্যার্থীর সমাগম ঘটেছে। আদিকাল থেকেই হিন্দু ধর্মাবলম্বিরা জেনে আসছেন, ‘চৈত্র মাসের মধুকৃষ্ণা ত্রয়োদশী তিথিতে যাদুকাটায় স্নান করলে সব পাপ মোচন হয়’- পূণ্য লাভের আশায় প্রতিবছরই দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে এই সময়ে লাখ মানুষ আসেন জাদুকাটা বা পনাতীর্থে স্নান সারতে। এ নদীতে স্নান করাকে অনেকে গঙ্গা স্নানের সমতুল্য মনে করেন। এবার স্নানের যুগ ভাল হওয়ায় (মঙ্গলবার সকাল ৯ টা ৭ মিনিট ৫৪ সেকেন্ড থেকে শুরু হয়ে রাত ১ টা ২০ মিনিট ৭ সেকেন্ড পর্যন্ত) দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এসেছিলেন পূণ্যার্থীরা।
সনাতন ধর্মাবলম্বিদের বিভিন্ন প্রকাশনায় রয়েছে ১৪০০ খৃস্টাব্দের মাঝামাঝি সময়ে মাকে গঙ্গা স্নান করানোর জন্য যোগ সাধনা বলে পৃথিবীর সমস্ত তীর্থের জল জাদুকাটা নদীর প্রবহমান জলের ধারায় একত্রিত করে মাতৃআজ্ঞা পূরণ করেছিলেন তখনকার লাউররাজ্যের সাধক ও সিদ্ধপুরুষ অদ্বৈতচার্য। তার সাধনা সিদ্ধ ফল বারুনী যোগ নামে অভিহিত। চৈত্র মাসের মধুকৃষ্ণা ত্রয়োদশী তিথিতে গঙ্গা, যমুনা, স্বরসতীসহ সাত পূণ্যনদীর প্রবাহ এক সঙ্গে যাদুকাটায় (পণাতীর্থে) এসে মিশে বলেও বিশ্বাস করেন সনাতন ধর্মাবলম্বিরা। এজন্য তারা মনে করেন সকল
তীর্থের সেরা তীর্থ এটি। এখানে স্নান করলে গঙ্গাস্নানের চেয়েও বেশী পূণ্য হয় বলে বিশ্বাস রয়েছে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের। এই সময়ে এখানে স্নান করলে যেমন পূণ্যলাভ হয়, তেমনি যার যার মনোবাসনাও (ইচ্ছা) পূরণ হয় বলেও বিশ্বাস পূণ্যার্থীদের।
পণাতীর্থ বারুণি স্নান উদ্যাপন কমিটির সদস্য সচিব কানন বন্ধু রায় জানালেন, এবার স্নানের যুগ, আবহাওয়া, এমনকি সড়কের আইন-শৃঙ্খলা অন্যান্য বছরের চেয়ে কিছুটা ভাল হওয়ায় পূণ্যার্থীর আগমন বেশি হয়েছে।

সৌজন্য – সুনামগঞ্জের খবর

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24