বৃটেনের একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সমকামিতা শিক্ষার প্রতিবাদ অভিভাবকদের

জগন্নাথপুর২৪ ডেস্ক::

বৃটেনে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিশুদের শিক্ষা দেয়া হচ্ছে সমকামিতা (এলজিবিটি) বিষয়ক সম্পর্কের ওপর। এর প্রতিবাদে ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছেন মুসলিম অভিভাবকরা। তাদের এই প্রতিবাদ পার্কফিল্ড কমিউনিটি স্কুল থেকে অ্যানডারটন পার্ক স্কুল, বার্মিংহাম পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়েছে। পার্কফিল্ড স্কুলে পড়াশোনা যারা করে, তাদের বেশির ভাগই এশিয়ার। বিশেষ করে তার মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশী, ভারতীয়, পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত শিশু।

বেশ কিছুদিন ধরেই এমন প্রতিবাদ জানাচ্ছিলেন এসব শিশুর অভিভাবকরা। তারা আবার রাস্তায় নেমেছেন। এর আয়োজক ছিলেন শাকিল আফসার।

তিনি একটি মেগাফোনে স্লোগান দিচ্ছিলেন ‘আওয়ার চিলড্রেন’। তার ডাকে বিক্ষোভে সমবেত হয়েছিলেন অর্ধশতাধিক মুসলিম। তারা তার স্লোগানের জবাবে বলছিলেন ‘আওয়ার চয়েস’। অর্থাৎ আমাদের শিশু, আমাদের পছন্দের বিষয়ে প্রাধান্য পাবে। বাড়িতে হাতে লেখা একটি ব্যানারে লেখা ছিল- শিশুদের যৌনতায় আকৃষ্ট করাকে না বলুন। আরেকজনের হাতে কালো কালিতে লেখা ‘শিশুদের শিশু থাকতে দিন’। এ খবর দিয়েছে বৃটেনের একটি ট্যাবলয়েড পত্রিকার অনলাইন সংস্করণ।
ওইসব স্কুলে মাত্র ৪ বছর বয়স, এমন শিশুদের সমকামিতা বিষয়ক শিক্ষা দেয়া হচ্ছে। এমন শিক্ষা শিশুদের শৈশব মনমানসিকতা থেকে দূরে সরিয়ে, যৌনতায় আকৃষ্ট করবে বলে মনে করেন বিশ্লেষকরা। মাত্র ৪ বছর বয়সী শিশুকে কেন এমন শিক্ষা দেয়া হবে এ বিষয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে অভিভাবকদের মধ্যে। তাই তারা এই শিক্ষা বন্ধ করার জন্য বিক্ষোভ করছেন। বার্মিংহামের অ্যান্ডারটন পার্ক প্রাইমারি স্কুলের গেটে গত দুই সপ্তাহ ধরে এমন বিক্ষোভ হচ্ছে।
এমন বিক্ষোভ আয়োজনের মূলে থাকা শাকিল আফসারের (৩১) এক ভাইজি ও ভাইপো পড়াশোনা করে ওই স্কুলে। তিনি বলেছেন, অভিভাবকরা মনে করছেন শিশুদেরকে ভিন্ন এক নৈতিক শিক্ষার দিকে বাধ্য করা হচ্ছে। নারীতে নারীতে সমকামিতা, পুরুষে পুরুষে সমকামিতা, উভকামিতা, হিজড়া বিষয়ক ইস্যুতে এসব যৌন শিক্ষার বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধর্মীয় সম্প্রদায় হোয়াটসঅ্যাপ সহ প্রতিবাদ জানাচ্ছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। পিতামাতাদের মধ্যে এমন উদ্বেগ দেখা দিয়েছে ম্যানচেস্টার, ক্রাইডন, ওল্ডহ্যাম, ব্লাকবার্ন ও ব্রাডফোর্ডে। অভিভাবকরা এ ইস্যুতে এতটাই উত্তেজিত যে, স্কুলের হেডটিচার এ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করতে সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

তবে এ ইস্যুটি সহজে দূর হচ্ছে না। বুধবার নারী-পুরুষের সম্পর্ক, যৌন শিক্ষাকে আগামী বছরের সেপ্টেম্বর থেকে ইংলিশ স্কুলগুলোতে বাধ্যতামূলক করার পক্ষে ভোট দিয়েছেন ৫৩৮ জন এমপি। বিপক্ষে ভোট দিয়েছেন মাত্র ২১ জন। এমন কারিকুলাম প্রায় ২০ বছরের মধ্যে প্রথম আপডেট করা হয়েছে। সমকামিতায় লিপ্ত পরিবার সহ বিভিন্ন রকম পরিবার সম্পর্কে বিভিন্ন রকম শিক্ষাকে উৎসাহিত করা হয়েছে।

সুত্র-

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» পরীক্ষা কেন্দ্রে ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগে আটক-১

» দলকে না জানিয়ে এমপি হিসেবে শপথ নিলেন বিএনপির জাহিদুর

» ‘ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে হামলার সঙ্গে শ্রীলঙ্কা হামলার সম্পর্কের প্রমাণ নেই’

» ক্লাসে শিক্ষকদের সিগারেট-পান নিষিদ্ধ

» জগন্নাথপুরে এক সন্তানের জননীর আত্মহত্যা

» জগন্নাথপুরে নিসচা’র উদ্যোগে লিফলেট বিতরণ

» জগন্নাথপুরের সাবেক ছাত্রলীগ নেতা যুক্তরাজ্য প্রবাসিকে আনহার মিয়াকে সংবর্ধনা প্রদান

» জগন্নাথপুরে সু-সেবা নেটওয়ার্ক কমিটির ত্রিমাসিক পর্যালোচনা সভা অনুষ্ঠিত

» জগন্নাথপুরে যুক্তরাজ্য প্রবাসি গীতিকার আক্কাছ মিয়াকে সংবর্ধনা প্রদান

» হবিগঞ্জে প্রেমিক হত্যার পর খাটের নিচে মাটিতে পুতে রাখে প্রেমিকা

সম্পাদক ॥ অমিত দেব, মোবাইল ॥ ০১৭১৬-৪৬৫৫৩৫,
ই-মেইল ॥ amit.prothomalo@gmail.com
বার্তা সম্পাদক ॥ আলী আহমদ, মোবাইল ॥ ০১৭১৮-২২২৯৭৫,
ই-মেইল ॥ ali.jagannathpur@gmail.com,
ওয়েবসাইট ॥ www.jagannathpur24.com, ই-মেইল ॥ jpur24@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
,

বৃটেনের একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সমকামিতা শিক্ষার প্রতিবাদ অভিভাবকদের

জগন্নাথপুর২৪ ডেস্ক::

বৃটেনে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিশুদের শিক্ষা দেয়া হচ্ছে সমকামিতা (এলজিবিটি) বিষয়ক সম্পর্কের ওপর। এর প্রতিবাদে ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছেন মুসলিম অভিভাবকরা। তাদের এই প্রতিবাদ পার্কফিল্ড কমিউনিটি স্কুল থেকে অ্যানডারটন পার্ক স্কুল, বার্মিংহাম পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়েছে। পার্কফিল্ড স্কুলে পড়াশোনা যারা করে, তাদের বেশির ভাগই এশিয়ার। বিশেষ করে তার মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশী, ভারতীয়, পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত শিশু।

বেশ কিছুদিন ধরেই এমন প্রতিবাদ জানাচ্ছিলেন এসব শিশুর অভিভাবকরা। তারা আবার রাস্তায় নেমেছেন। এর আয়োজক ছিলেন শাকিল আফসার।

তিনি একটি মেগাফোনে স্লোগান দিচ্ছিলেন ‘আওয়ার চিলড্রেন’। তার ডাকে বিক্ষোভে সমবেত হয়েছিলেন অর্ধশতাধিক মুসলিম। তারা তার স্লোগানের জবাবে বলছিলেন ‘আওয়ার চয়েস’। অর্থাৎ আমাদের শিশু, আমাদের পছন্দের বিষয়ে প্রাধান্য পাবে। বাড়িতে হাতে লেখা একটি ব্যানারে লেখা ছিল- শিশুদের যৌনতায় আকৃষ্ট করাকে না বলুন। আরেকজনের হাতে কালো কালিতে লেখা ‘শিশুদের শিশু থাকতে দিন’। এ খবর দিয়েছে বৃটেনের একটি ট্যাবলয়েড পত্রিকার অনলাইন সংস্করণ।
ওইসব স্কুলে মাত্র ৪ বছর বয়স, এমন শিশুদের সমকামিতা বিষয়ক শিক্ষা দেয়া হচ্ছে। এমন শিক্ষা শিশুদের শৈশব মনমানসিকতা থেকে দূরে সরিয়ে, যৌনতায় আকৃষ্ট করবে বলে মনে করেন বিশ্লেষকরা। মাত্র ৪ বছর বয়সী শিশুকে কেন এমন শিক্ষা দেয়া হবে এ বিষয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে অভিভাবকদের মধ্যে। তাই তারা এই শিক্ষা বন্ধ করার জন্য বিক্ষোভ করছেন। বার্মিংহামের অ্যান্ডারটন পার্ক প্রাইমারি স্কুলের গেটে গত দুই সপ্তাহ ধরে এমন বিক্ষোভ হচ্ছে।
এমন বিক্ষোভ আয়োজনের মূলে থাকা শাকিল আফসারের (৩১) এক ভাইজি ও ভাইপো পড়াশোনা করে ওই স্কুলে। তিনি বলেছেন, অভিভাবকরা মনে করছেন শিশুদেরকে ভিন্ন এক নৈতিক শিক্ষার দিকে বাধ্য করা হচ্ছে। নারীতে নারীতে সমকামিতা, পুরুষে পুরুষে সমকামিতা, উভকামিতা, হিজড়া বিষয়ক ইস্যুতে এসব যৌন শিক্ষার বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধর্মীয় সম্প্রদায় হোয়াটসঅ্যাপ সহ প্রতিবাদ জানাচ্ছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। পিতামাতাদের মধ্যে এমন উদ্বেগ দেখা দিয়েছে ম্যানচেস্টার, ক্রাইডন, ওল্ডহ্যাম, ব্লাকবার্ন ও ব্রাডফোর্ডে। অভিভাবকরা এ ইস্যুতে এতটাই উত্তেজিত যে, স্কুলের হেডটিচার এ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করতে সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

তবে এ ইস্যুটি সহজে দূর হচ্ছে না। বুধবার নারী-পুরুষের সম্পর্ক, যৌন শিক্ষাকে আগামী বছরের সেপ্টেম্বর থেকে ইংলিশ স্কুলগুলোতে বাধ্যতামূলক করার পক্ষে ভোট দিয়েছেন ৫৩৮ জন এমপি। বিপক্ষে ভোট দিয়েছেন মাত্র ২১ জন। এমন কারিকুলাম প্রায় ২০ বছরের মধ্যে প্রথম আপডেট করা হয়েছে। সমকামিতায় লিপ্ত পরিবার সহ বিভিন্ন রকম পরিবার সম্পর্কে বিভিন্ন রকম শিক্ষাকে উৎসাহিত করা হয়েছে।

সুত্র-

© 2018 জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃক সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত

সম্পাদক ॥ অমিত দেব, মোবাইল ॥ ০১৭১৬-৪৬৫৫৩৫,
ই-মেইল ॥ amit.prothomalo@gmail.com
বার্তা সম্পাদক ॥ আলী আহমদ, মোবাইল ॥ ০১৭১৮-২২২৯৭৫,
ই-মেইল ॥ ali.jagannathpur@gmail.com,
ওয়েবসাইট ॥ www.jagannathpur24.com, ই-মেইল ॥ jpur24@gmail.com

error: ভাই, কপি করা বন্ধ আছে।