শনিবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯, ১১:১১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
একটি নৃশংস হত্যাকাণ্ড,নাড়িয়ে দিল জগন্নাথপুরবাসিকে, ক্রাইম সিন ইউনিটের ঘটনাস্থল পরিদর্শন অফিসার্স ক্লাব থেকে রানীগঞ্জের তহশীলদারসহ ৪ জুয়াড়ি গ্রেফতার আজানের মর্মবানী জগন্নাথপুরে ২২তম ক্রিকেট টুর্নামেন্টের উদ্বোধন সম্পন্ন জগন্নাথপুরে সেই সড়কে ২৩ কোটি টাকার টেন্ডার সম্পন্ন, নতুন বছরের শুরুতেই কাজ শুরু হতে পারে জগন্নাথপুরে ১৫ দিন পর অবশেষে ধান কেনা শুরু জগন্নাথপুরে গলায় ফাঁস দিয়ে দুর্বৃত্তরা হত্যা করল স্টুডিও’র মালিক আনন্দকে সিলেট জেলা আ’লীগের নেতৃত্বে লুৎফুর-নাসির, মহানগরে মাসুক-জাকির প্রতিবন্ধীদের জন্য প্রতিটি উপজেলায় সহায়তা কেন্দ্র: প্রধানমন্ত্রী জগন্নাথপুর পৌরশহরে স্টুডিও দোকানদারের মরদেহ পাওয়া গেছে

জগন্নাথপুরে সুজনের আয়োজনে জনগনের মুখোমুখি তিন প্রার্থী

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৮
  • ১৫৮ Time View

স্টাফ রিপোর্টার ::
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সুষ্ঠ ও শাম্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করতে অঙ্গীকার করেছেন সুনামগঞ্জ -৩ জগন্নাথপুর -দক্ষিন সুনামগঞ্জ আসনের তিনজন প্রার্থী
গতকাল শুক্রবার বিকেলে সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) আয়োজিত জনগনের মুখোমুখি অনুষ্ঠানে এ অঙ্গীকার করেন তাঁরা। সুনামগঞ্জ -৩ আসনে এবার ছয়জন প্রার্থী অংশ নিয়েছেন তাদের মধ্যে আওয়ামীলীগের মোহাম্মদ আবদুল মান্নান ( নৌকা) ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী জমিয়ত উলামায়ে ইসলাম কেন্দ্রীয় নেতা অ্যাডভোকেট মাওলানা শাহীনুর পাশা চৌধুরী (ধানের শীষ) জাকের পাটির প্রার্থী শাহাজাহান চৌধুরী (গোলাপফুল) জনগনের মুখোমুখি অনুষ্ঠানে অংশ নেন।
জগন্নাথপুর উপজেলা সদরের আবদুস সামাদ আজাদ অডিটরিয়ামের সামনে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সুনামগঞ্জ জেলা সুজনের সভাপতি অ্যাডভোকেট হোসেন তৌফিক চৌধুরী এর সভাপতিত্বে ও সুজনের সিলেট বিভাগের সমন্নয়ক আব্দুল আলীম এর পরিচালনায়
এতে স্বাগত বক্তব্য দেন সুজন সুনামগঞ্জ জেলার সাধারন সম্পাদক আলী হায়দার,সুজনের সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদার,
আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী মোহাম্মদ আবদুল মান্নান,ঐক্যফ্রন্ট মনোনীত প্রার্থী অ্যাডভোকেট মাওলানা শাহীনুর পাশা চৌধুরী ও জাকেরপার্টির প্রার্থী শাহাজাহান চৌধুরী।


তিন প্রার্থী ৫ মিনিট করে দেয়া বক্তব্যে নির্বাচনী এলাকার উন্নয়নে নানা প্রতিশ্রুতি তুলে ধরেন।
আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী মোহাম্মদ আবদুল মান্নান গত ১০ বছর নির্বাচনী এলাকার সাংসদ হিসেবে উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরে বলেন, উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষার পাশাপাশি আগামীতে নির্বাচিত হলে নির্বাচনী এলাকার সবকটি কলেজকে ডিগ্রী কলেজে রুপান্তর করা হবে। জগন্নাথপুর ডিগ্রী কলেজকে সরকারী করন করেছি আগামীতে অনার্স মাষ্টার্স চালু করা হবে।
ঐক্যফ্রন্ট মনোনীত প্রার্থী অ্যাডভোকেট মাওলানা শাহীনুর পাশা চৌধুরী বলেন,আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় নেতা আবদুস সামাদ আজাদের মৃত্যুর পর ২০০৫ সালের উপ নির্বাচনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়ে নির্বাচনী এলাকায় অনেক উন্নয়ন কর্মকান্ড বাস্তবায়ন করেছি।আগামীতে নির্বাচিত হলে জগন্নাথপুর সিলেট ও জগন্নাথপুর সুনামগঞ্জ সড়কে সম্প্রসারনসহ নানা উন্নয়ন কর্মকান্ড বাস্তবায়ন করব।
জাকেরপার্টির প্রার্থী শাহাজাহান চৌধুরী বলেন, নির্বাচিত হলে ঘুষ, দুর্নীতিমুক্ত প্রশাসন গড়ে তুলব। নির্বাচিত না হলে নির্বাচিত প্রার্থী কে সহযোগীতা করব।

অনুষ্ঠানে প্রার্থীদের কে ভোটাররা তিনটি করে প্রশ্ন করেন।
তাঁর মধ্যে জগন্নাথপুর পৌর এলাকার লুদরপুর গ্রামের বাসিন্দা আবদুল তাহিদ আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী মোহাম্মদ আবদুল মান্নান কে প্রশ্ন করেন নির্বাচনী এলাকার সংসদ সদস্য হিসেবে দুই উপজেলার উন্নয়নের ভারসাম্য কতটুকু রাখতে পেরেছেন? জবাবে তিনি বলেন, আমি উন্নয়নের বিষয়ে দুই উপজেলার মধ্যে কোন বৈষম্য করিনি। জগন্নাথপুরের রানীগঞ্জ সেতুর ব্যয়ের অর্থ দিয়ে দক্ষিন সুনামগঞ্জ সব উন্নয়ন ব্যয়ের পরিমাপ করা যাবে। ইকড়ছই গ্রামের আবদুল মুকিত এম এ মান্নান কে প্রশ্ন করেন আগামীতে নির্বাচিত হলে হলে জগন্নাথপুর ডিগ্রী কলেজকে অনার্স চালু করা হবে কিনা। তিনি বলেন শুধু অনার্স নয় এ কলেজে মাসার্স কলেজে রুপান্তর করা হবে। আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন জগন্নাথপুর উপজেলা স্বাস্হ্য কমপ্লেক্স আধুনিকায়নের পাশাপাশি পৌর এলাকায় আরেকটি হাসপাতাল নির্মান কাজ নির্বাচনের পর পর শেষ হবে। জগন্নাথপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কে ১০০ শয্যায় উন্নীত করা হবে কি না প্রশ্ন করেন পৌর এলাকার চিক্কা গ্রামের এনামুল হক এনাম।

পৌর এলাকার হবিবপুর গ্রামের বাসিন্দা শাহ রুহেল ঐক্যফ্রন্ট মনোনীত প্রার্থী শাহীনুর পাশা চৌধুরী কে প্রশ্ন করেন-অভিযোগ রয়েছে,রোহিঙ্গাদের নামে টাকা তুলে আপনি রোহিঙ্গাদের মধ্যে বিতরন না করে আত্মসাৎ করেছেন জবাবে তিনি বলেন,ভোটের মাঠে আমার জনপ্রিয়তা নষ্ট করতে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে। দুর্নীতি প্রমানিত হলে রাজনীতি ছেড়ে দিব। ফয়ছল আহমদ নামের এক প্রশ্নকর্তা সাবেক সাংসদ শাহীনুর পাশাকে প্রশ্ন করেন নির্বাচিত হলে বিগতদিনের মতো উন্নয়ন করবেন কীনা জবাবে তিনি বলেন,আমি সাংসদথাকাকালে ব্যাপক উন্নয়ন করেছি।আগামীতে নির্বাচিত হলে আরো উন্নয়ন করব। কলেজ ছাত্র রনি রাজ,সমাজসেবী আবদুল গফুরের প্রশ্নের জবাবে জাকেরপাটির প্রার্থী শাহাজাহান চৌধুরী বলেন, নির্বাচিত হলে দুনীর্তিমুক্ত প্রশাসন গড়ব।
সর্বশেষ তিন প্রার্থী একে অপরের হাত উচিয়ে ধরে সুষ্ঠ নির্বাচনের স্বার্থে নির্বাচনী নীতিমালা মেনে চলা এবং নির্বাচনের শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখতে ১৫ টি বিষয়ে অঙ্গীকার করেন।

অনুষ্ঠানে সুজনের সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদার বলেন, আমার ভোট আমি দিব,দেখে শুনে বুঝে দিব। শ্লোগান ধারন করেই প্রভাবমুক্ত হয়ে ও কালো টাকার বিরুদ্ধে ভোট দিতে ভোটার কাছ থেকে অঙ্গীকার নেন। এসময় উওস্হিত ছিলেন সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগ সহ সভাপতি প্রবীন রাজনীতিবীদ সিদ্দিক আহমদ,যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগ সাধারন সম্পাদক সাজিদুর রহমান ফারুক,
জে লা আওয়ামীলীগ সহ সভাপতি সৈয়দ আবুল কাশেম,উপজেলা আওয়ামীলীগ সাধারন সম্পাদক রেজাউল করিম রিজু,
উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান বিজন কুমার দেব,জেলা পরিষদ সদস্য মাহাতাবুল হাসান সমুজ,শাহজালাল মহাবিদ্যালয় অধ্যক্ষ এম এ মতিন,উপজেলা আওয়ামীলীগ সহ সভাপতি সিরাজুল হক, যুগ্মসাধারণ সম্পাদক লুৎফুর রহমান,
শিক্ষক আবদুস সামাদ,সাইফুল ইসলাম রিপন,
উপজেলা শ্রমিকলীগ সাবেক সভাপতি নুরুল হক,বর্তমান সভাপতি নিজামুল করিম,যুবলীগ সভাপতি কামাল উদ্দিন,সাধারণ সম্পাদক আবুল হোসেন লালন,উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি সাফরোজ ইসলাম,সহসভাপতি কল্যাণ কান্তি রায় সানীসহ বিভিন্ন শ্রেনীপেশার মানুষ।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24