মঙ্গলবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১২:২১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে প্রকাশ্য দিবালোকে গ্রামীণ ফোনের ৫ লাখ টাকা ছিনতাই, জনতার ধাওয়ায় বাইকসহ আটক ১ জগন্নাথপুরে সড়ক রক্ষায় ১০ টন ওজনের অধিক যান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা মিরপুর ইউপি নির্বাচনে প্রার্থীদের মধ্যে প্রতিক বরাদ্দ, আনুষ্ঠানিকভাবে প্রচারণা প্রার্থীরা গরুর মাংস বিক্রি: ভারতে খ্রিস্টান যুবককে পিটিয়ে হত্যা জগন্নাথপুরের ব‌্যবসায়ী ফেরদৌস মিয়া খুনের ঘটনায় সানিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড সুনামগঞ্জে হত্যা মামলায় একজনের মৃত্যুদণ্ড, তিনজনের যাবজ্জীবন ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের ওপর ছাত্রলীগের ‘হামলা’ আহত ২৫ অনেকেই গা ঢাকা দিয়েছে, অনেককেই নজরদাড়িতে রাখা হয়েছে: কাদের বিরিয়ানি খেলে শিক্ষকসহ ৪০ জন অসুস্থ আল কোরআন অনুসরণের আহ্বান রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিনের!

রবের বাসায় বিকল্প জোট গঠনে বৈঠক, রূপরেখা আসছে

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, ১৪ জুলাই, ২০১৭
  • ২৮ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম ডেস্ক :: বিকল্প রাজনৈতিক জোট গঠনের লক্ষ্যে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (রব) জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রবের উত্তরার বাসায় বৈঠক করেছেন কয়েকটি রাজনৈতিক দলের নেতারা। এ বৈঠকে বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে শিগগির জোটের রূপরেখা চূড়ান্ত করার সিদ্ধান্ত হয়।

বৃহস্পতিবার রাতে অনেকটা গোপনে এ বৈঠক হতে থাকলেও পুলিশ টের পেয়ে ওই বাসায় দুই দফা হানা দেয়। তখন রবের পক্ষ থেকে বলা হয়, সবাইকে রাতের খাবারের নিমন্ত্রণ করেছেন তিনি।

বৈঠকে অংশ নেন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি কাদের সিদ্দিকী, নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না, বিকল্প ধারা বাংলাদেশের সভাপতি ডা. এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (জামান) বাসদের সভাপতি খালেকুজ্জামান ভূঁইয়া, সুজন সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদার, গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (রতন) জাসদের সাধারণ সম্পাদক আবদুল মালেক রতন, বিকল্প ধারা বাংলাদেশের নেতা মাহি বি. চৌধুরী, নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক আহ্বায়ক এবং বর্তমান নাগরিক ঐক্যের নেতা এসএম আকরাম হোসেন, গীতিকার শহীদুল্লাহ ফরাজী প্রমুখ।

ওই বৈঠকে চলমান রাজনৈতিক বাস্তবতায় করণীয় নিয়ে আলোচনা হয়। বড় দুই দলের নেতৃত্বাধীন জোট দুটির বিপরীতে বিকল্প একটি জোট গঠনের প্রক্রিয়া নিয়ে আলোচনা করেন নেতারা। সিদ্ধান্ত হয় দ্রুতই আবার বৈঠক করে এর রূপরেখা চূড়ান্ত করা হবে।

ওই বাসা থেকে বের হয়ে বদরুদ্দোজা চৌধুরী সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করেন, তারা কয়েকজন রাজনীতিবিদ যে কোনো বিষয় নিয়ে বসতেই পারেন, এক সঙ্গে চা খেতেই পারেন। কিন্তু পুলিশ সেখানে দুই দফা বাধা দিতে গিয়ে ঠিক করেনি।

মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, তারা দেশের বর্তমান পরিস্থিতি এবং সমসাময়িক রাজনৈতিক অন্যান্য বিষয় নিয়ে কথা বলেছেন, মতবিনিময় করেছেন।

বদিউল আলম মজুমদার বলেন, এটা ছিল নিতান্তই একটি সামাজিক অনুষ্ঠান। ঈদ-পরবর্তী একটি দাওয়াত। আমাদের পুরনো বন্ধু তার বাড়িতে রাতের খাবারের নিমন্ত্রণে ডেকেছিলেন। সেখানে মুক্তিযুদ্ধবিরোধী, কিংবা জামায়াত বা হেফাজতের কোনো লোককে তো দেখিনি। অনেককে চিনিও না। এখন আমরা বন্ধুরা কি একসঙ্গে বসে খেতেও পারব না, পুরনো বন্ধুদের দেখা হতে পারবে না, এটাও কি করা যাবে না?

আবদুল মালেক রতন বলেন, চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করেছি। মূলত এটি ছিল গেট টুগেদার, এখানে রাতের খাবারের আয়োজন ছিল। আমাদের আর বসে থাকা উচিত হবে না।

উল্লেখ্য, প্রায় দুই বছর আগে এ জোট গঠনের প্রক্রিয়া শুরু হয়। এসব নেতা এ নিয়ে একাধিকবার আলোচনায়ও বসেছিলেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24