সোমবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৯, ১২:৩৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
কেমন ইমাম চাই সুনামগঞ্জে বিতর্কিতদের আওয়ামী লীগে স্হান না দিতে তৃণমূল নেতাদের দাবি প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী পরীক্ষা:জগন্নাথপুরে প্রথম দিনে অনুপস্থিত ২৬০ যুক্তরাজ্য বিএনপির পূর্ণাঙ্গ কমিটিকে জগন্নাথপুর বিএনপির অভিনন্দন পেঁয়াজ নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের সমালোচনা করলেন কাদের সিদ্দিকী ‘ব্রিটিশ বাংলাদেশী হুজহু’র প্রকাশনা ও এওয়ার্ড প্রদান অনুষ্ঠানের বারোতম আসর বর্ণাঢ্য আয়োজনে সম্পন্ন পেঁয়াজ খাওয়া বন্ধ করে দিয়েছি:প্রধানমন্ত্রী জগন্নাথপুর পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ড আ.লীগের কমিটি গঠন জগন্নাথপুরে অগ্নিকাণ্ডে নি:স্ব ৮ পরিবার আশ্রয় নিলেন স্কুলে.মানবেতর জীবন যাপন মিশর থেকে কার্গো বিমানে পেঁয়াজ আসছে মঙ্গলবার

নানা প্রতিকূলতার পর দেশে প্রবাসী আয় বেড়েছে

Reporter Name
  • Update Time : মঙ্গলবার, ৫ মে, ২০১৫
  • ৯৯ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডেস্ক:: দেশের সাম্প্রতিক নানা শঙ্কার মধ্যেও চলতি অর্থবছরে প্রবাসী আয় বেড়েছে। প্রবাসী আয়ে ভালো প্রবৃদ্ধি বজায় থাকছে। অর্থবছরের জুলাই-এপ্রিল পর্যন্ত সময়ে প্রবাসী বাংলাদেশিরা এক হাজার ২৫৫ কোটি ডলার সমপরিমাণ অর্থ দেশে পাঠিয়েছেন। আগের অর্থবছরের একই সময়ে পাঠানো এক হাজার ১৭২ কোটি ডলারের তুলনায় যা ৭ দশমিক শূন্য ৫ শতাংশ বেশি।
এর আগে ২০১৩-১৪ অর্থবছরের দশ মাসে প্রবাসীদের পাঠানো অর্থ তার আগের অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় কম ছিল ৪ দশমিক ৭৮ শতাংশ।বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রবাসী আয় সংক্রান্ত মাসিক প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।
সামগ্রিকভাবে প্রবাসী আয়ে ইতিবাচক প্রবাহ বজায় থাকলেও একক মাস হিসেবে মার্চের তুলনায় গত এপ্রিলে রেমিট্যান্স কিছুটা কমেছে। এপ্রিল মাসে প্রবাসী আয় এসেছে ১২৯ কোটি ডলার। আগের মাস মার্চে যা ১৩৪ কোটি ডলার ছিল। এ হিসেবে এপ্রিলে রেমিট্যান্স কমেছে ৫ কোটি ডলার যা প্রায় ৪ শতাংশ। অবশ্য আগের অর্থবছরের এপ্রিলে আসা ১২৩ কোটি ডলারের তুলনায় এবারে তা বেড়েছে।
চলতি অর্থবছরে রেমিট্যান্স প্রবাহ ও রফতানিতে ভালো প্রবৃদ্ধি ও রাজনৈতিক অস্থিরতাজনিত কারণে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে আমদানি চাহিদা তুলনামূলক কম হওয়ায় বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ বাড়ছে। গত ২৯ এপ্রিল বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ প্রথমবারের মতো ২ হাজার ৪০০ কোটি ডলার ছাড়িয়েছে। বৈদেশিক মুদ্রার এ রিজার্ভ দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। এ পরিমাণ অর্থ দিয়ে বাংলাদেশের সাত মাসের বেশি আমদানি দায় মেটানো সম্ভব।
প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, গত এপ্রিল মাসে রাষ্ট্রীয় মালিকানার চার বাণিজ্যিক ব্যাংকের মাধ্যমে রেমিট্যান্স এসেছে ৪০ কোটি ৪৬ লাখ ডলার। মার্চে যা ছিল ৪৩ কোটি ৫২ লাখ ডলার। বিশেষায়িত ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে এসেছে ৬৭ লাখ ডলার। আগের মাসে এসেছিল এক কোটি ৭১ লাখ ডলার। বেসরকারি ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে ৮৫ কোটি ৬৬ লাখ ডলার পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। আগের মাসে পাঠিয়েছিলেন ৮৬ কোটি ৪০ লাখ ডলার।এছাড়া বিদেশি ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে এসেছে এক কোটি ৫৮ লাখ ডলার। আগের মাসে আসা রেমিট্যান্সের পরিমাণ ছিল এক কোটি ৫৮ লাখ ডলার।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24