বাঁধে অনিয়ম হলে ঘাড় ধরে পানিতে চুবাবো: পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী

আমিনুল ইসলাম, তাহিরপুর
বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন ফসলরক্ষা বাঁধ নির্মাণ/রক্ষণাবেক্ষণ প্রকল্পের কাজ পরিদর্শন করেছেন পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক।
শুক্রবার তাহিরপুর উপজেলার মাটিয়ান হাওরে আনন্দনগর, বোয়ালমারা ও বনুয়া বাঁধ পরিদর্শন করেন তিনি।
এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন, পানিসম্পদ মন্ত্রনালয়ের অতিরিক্ত সচিব (উন্নয়ন) মুহাম্মদ ইউসূফ, জেলা প্রশাসক মো আব্দুল আহাদ, পুলিশ সুপার মুহাম্মদ বরকতুল্লাহ খান, তাহিরপুরের উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সাইফুল ইসলাম, থানার অফিসার ইনচার্জ নন্দন কান্তি ধর, উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আবুল হোসেন খাঁ, তাহিরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক অমল কান্তি কর, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, উপজেলা যুবলীগ আহবায়ক হাফিজ উদ্দিন, যুবলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক অনুপম রায়, উপজেলা ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক তানসেন তালুকদার তুষার, ছাত্রলীগ নেতা ধীমান চন্দ, সায়েম তালুকদার, মবিননূর, রোমান আহমেদ তুষা প্রমুখ।
পরিদর্শন শেষে তাহিরপুর উপজেলা পাবলিক লাইব্রেরি মিলনায়তনে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক।
বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, সুনামগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতন, উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আবুল হোসেন খাঁ, সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ও্র উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী করুণাসিন্ধু চৌধুরী বাবুল, তাহিরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগ সহ সভাপতি আলী মর্তূজা, মোশারফ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক অমল কান্তি কর, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক হাওরের ফসল রক্ষা বাঁধ নির্মাণ কাজে অসন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, ‘যারা বাঁধ নির্মাণ কাজে অনিয়ম করবে তাদের কিছুতেই ছাড় দেয়া হবে না। প্রধানমন্ত্রী হাওরের বিষয়ে আন্তরিক। তিনি সব সময় হাওরের মানুষের খোঁজ খবর রাখেন। প্রধানমন্ত্রী দুর্নীতিবাজদের পছন্দ করেন না।’
তিনি আরো বলেন, ‘আমি সেনাবাহিনীতে চাকুরী করেছি, সেক্টর কমান্ডারের দায়িত্বে ছিলাম। সেখানে চাকুরীরত অবস্থায় অন্যায়ভাবে একটি টাকাও খাইনি, এখনও খাব না।’
তিনি আনন্দনগরের একটি বাঁধে দাঁড়িয়ে এক প্রকল্প চেয়ারম্যানকে বলেন, ‘প্রকল্প কাজ ভালভাবে না করলে এক টাকাও বিল পাবেন না। বাঁধ নির্মাণ কাজে অনিয়ম হলে আপনাদের ঘাড় ধরে পানিতে চুবাবো।’
তিনি বলেন, ‘ডিসি সাহেবের নেতৃত্বে হাওরের বাঁধের কাজে বিভিন্ন কমিটি গঠন করা হয়েছে। কিন্তু আমি কাজের যে অগ্রগতি আশা করেছিলাম তা হয়নি। হাওরে বাঁধ নির্মাণে সঠিক নীতামালা মানা হয়নি এছাড়া বাঁধে ঠিকমতো মাটিও পড়েনি। এছাড়া বেশির ভাগ বাঁধের কাজ এখনো রয়ে গেছে তাই সময়মতো বাঁধের কাজ শেষ হওয়া নিয়ে আমি শংকিত। প্রশাসনের সবাইকে আরো সচেতন ভাবে কাজ করতে হবে। আমি পিআইসিদের বলেছি যেভাবে কাজ হচ্ছে, এভাবে চলতে থাকলে আমরা কোন টাকা দেবো না। কারণ কাজটি যে মেজারমেন্টে হওয়া উচিত ঠিক সেভাবে না হওয়া পর্যন্ত আমরা কোন টাকা পয়সা দিতে রাজি না।’

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» আজ স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস

» চানপুর সাতহাল স.প্রা. বিদ্যালয়ে বার্ষিক ক্রীড়া,সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ

» একই পরিবারের ৫ সদস্যের ইসলাম ধর্ম গ্রহণ

» নির্বাচনী সহিংসতায় স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

» জগন্নাথপুরে টমটম উল্টে স্কুল ছাত্রসহ আহত-৫

» গণহত্যা দিবসে জগন্নাথপুরে আ,লীগের আলোচনা সভা

» জগন্নাথপুরে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে স্ট্যান্ডসহ জাতীয় পতাকা বিতরণ

» ১২ ব্যক্তি ও এক প্রতিষ্ঠানকে সর্বোচ্চ সম্মাননা স্বাধীনতা পুরস্কার প্রদান

» সিলেটে পাইপগানসহ আটক ১

» ১৩০০ যাত্রী নিয়ে সাগরে আটককে আছে প্রমোদতরী

সম্পাদক ॥ অমিত দেব, মোবাইল ॥ ০১৭১৬-৪৬৫৫৩৫,
ই-মেইল ॥ amit.prothomalo@gmail.com
বার্তা সম্পাদক ॥ আলী আহমদ, মোবাইল ॥ ০১৭১৮-২২২৯৭৫,
ই-মেইল ॥ ali.jagannathpur@gmail.com,
ওয়েবসাইট ॥ www.jagannathpur24.com, ই-মেইল ॥ jpur24@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
,

বাঁধে অনিয়ম হলে ঘাড় ধরে পানিতে চুবাবো: পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী

আমিনুল ইসলাম, তাহিরপুর
বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন ফসলরক্ষা বাঁধ নির্মাণ/রক্ষণাবেক্ষণ প্রকল্পের কাজ পরিদর্শন করেছেন পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক।
শুক্রবার তাহিরপুর উপজেলার মাটিয়ান হাওরে আনন্দনগর, বোয়ালমারা ও বনুয়া বাঁধ পরিদর্শন করেন তিনি।
এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন, পানিসম্পদ মন্ত্রনালয়ের অতিরিক্ত সচিব (উন্নয়ন) মুহাম্মদ ইউসূফ, জেলা প্রশাসক মো আব্দুল আহাদ, পুলিশ সুপার মুহাম্মদ বরকতুল্লাহ খান, তাহিরপুরের উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সাইফুল ইসলাম, থানার অফিসার ইনচার্জ নন্দন কান্তি ধর, উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আবুল হোসেন খাঁ, তাহিরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক অমল কান্তি কর, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, উপজেলা যুবলীগ আহবায়ক হাফিজ উদ্দিন, যুবলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক অনুপম রায়, উপজেলা ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক তানসেন তালুকদার তুষার, ছাত্রলীগ নেতা ধীমান চন্দ, সায়েম তালুকদার, মবিননূর, রোমান আহমেদ তুষা প্রমুখ।
পরিদর্শন শেষে তাহিরপুর উপজেলা পাবলিক লাইব্রেরি মিলনায়তনে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক।
বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, সুনামগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতন, উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আবুল হোসেন খাঁ, সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ও্র উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী করুণাসিন্ধু চৌধুরী বাবুল, তাহিরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগ সহ সভাপতি আলী মর্তূজা, মোশারফ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক অমল কান্তি কর, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক হাওরের ফসল রক্ষা বাঁধ নির্মাণ কাজে অসন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, ‘যারা বাঁধ নির্মাণ কাজে অনিয়ম করবে তাদের কিছুতেই ছাড় দেয়া হবে না। প্রধানমন্ত্রী হাওরের বিষয়ে আন্তরিক। তিনি সব সময় হাওরের মানুষের খোঁজ খবর রাখেন। প্রধানমন্ত্রী দুর্নীতিবাজদের পছন্দ করেন না।’
তিনি আরো বলেন, ‘আমি সেনাবাহিনীতে চাকুরী করেছি, সেক্টর কমান্ডারের দায়িত্বে ছিলাম। সেখানে চাকুরীরত অবস্থায় অন্যায়ভাবে একটি টাকাও খাইনি, এখনও খাব না।’
তিনি আনন্দনগরের একটি বাঁধে দাঁড়িয়ে এক প্রকল্প চেয়ারম্যানকে বলেন, ‘প্রকল্প কাজ ভালভাবে না করলে এক টাকাও বিল পাবেন না। বাঁধ নির্মাণ কাজে অনিয়ম হলে আপনাদের ঘাড় ধরে পানিতে চুবাবো।’
তিনি বলেন, ‘ডিসি সাহেবের নেতৃত্বে হাওরের বাঁধের কাজে বিভিন্ন কমিটি গঠন করা হয়েছে। কিন্তু আমি কাজের যে অগ্রগতি আশা করেছিলাম তা হয়নি। হাওরে বাঁধ নির্মাণে সঠিক নীতামালা মানা হয়নি এছাড়া বাঁধে ঠিকমতো মাটিও পড়েনি। এছাড়া বেশির ভাগ বাঁধের কাজ এখনো রয়ে গেছে তাই সময়মতো বাঁধের কাজ শেষ হওয়া নিয়ে আমি শংকিত। প্রশাসনের সবাইকে আরো সচেতন ভাবে কাজ করতে হবে। আমি পিআইসিদের বলেছি যেভাবে কাজ হচ্ছে, এভাবে চলতে থাকলে আমরা কোন টাকা দেবো না। কারণ কাজটি যে মেজারমেন্টে হওয়া উচিত ঠিক সেভাবে না হওয়া পর্যন্ত আমরা কোন টাকা পয়সা দিতে রাজি না।’

© 2018 জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃক সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত

সম্পাদক ॥ অমিত দেব, মোবাইল ॥ ০১৭১৬-৪৬৫৫৩৫,
ই-মেইল ॥ amit.prothomalo@gmail.com
বার্তা সম্পাদক ॥ আলী আহমদ, মোবাইল ॥ ০১৭১৮-২২২৯৭৫,
ই-মেইল ॥ ali.jagannathpur@gmail.com,
ওয়েবসাইট ॥ www.jagannathpur24.com, ই-মেইল ॥ jpur24@gmail.com

error: ভাই, কপি করা বন্ধ আছে।