বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৯, ০১:৫১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরের সন্তান অতিরিক্ত সচিব শিশির রায় কে ফুলেল শ্রদ্ধায় চীরবিদায় সিলেটে হিরন মাহমুদ নিপু আটক তারেক জিয়ার জন্মদিন উপলক্ষে জগন্নাথপুরে ছাত্রদলের এতিমদের মধ্যে খাদ্য বিতরণ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত সসীমের অসহায়ত্ব -মোহাম্মদ হরমুজ আলী তারেক জিয়ার জন্মদিন উপলক্ষে জগন্নাথপুরে বিএনপির দোয়া মাহফিল পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান জগন্নাথপুরে কাল আসছেন জগন্নাথপুরে বাজার মনিটরিং করলেন পুলিশের এএসপি ধর্মঘট স্থগিত, যান চলাচল শুরু ঢাকা-চট্টগ্রাম-সিলেট মহাসড়কে প্রতিকূলতা উপেক্ষা করে নেদার‌ল্যান্ডসের রাজধানীতে প্রথমবার মাইকে আজান জগন্নাথপুরের কৃতি সন্তান অতিরিক্ত সচিব শিশির রায় আর নেই

বিশ্ব ইজতেমা শুরু : আজ বৃহত্তম জামাতে জুমা

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, ৯ জানুয়ারী, ২০১৬
  • ২৭ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডেস্ক: বিশ্ব ইজতেমায় যোগ দিতে তুরাগ তীরে আসছেন মুসল্লিরা। বৃহস্পতিবারের ছবি -যুগান্তর
টঙ্গীর তুরাগ তীরে আজ বাদ ফজর আমবয়ানের মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে দাওয়াতে তাবলিগের ৫১তম বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব। অর্ধশতাধিক দেশের কয়েক লাখ মুসল্লি এরই মধ্যে ইজতেমা ময়দান ও এর আশপাশে অবস্থান নিয়েছেন। বয়ান, কারগুজারি, তাশকিল, তালিম, তিলাওয়াত, জিকির ও সালাতে ব্যস্ত সময় পার করছেন তারা। আজ দেশের বৃহত্তম জুমার জামাত অনুষ্ঠিত হবে এখানে। আশা করা হচ্ছে, পাঁচ লক্ষাধিক মুসল্লি এ জামাতে শরিক হবেন।

বিশ্ব ইজতেমা উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বাণী দিয়েছেন। এতে তারা ইজতেমার সাফল্য কামনা করেছেন। প্রধানমন্ত্রী তার বাণীতে আশা প্রকাশ করেছেন, এ মহান সমাবেশ বিশ্বশান্তি প্রতিষ্ঠায় অনন্য ভূমিকা রাখবে। দেশ ও বিদেশের সর্বস্তরের মানুষ ও মুসলিম উম্মাহর ঐক্য, সংহতি ও ভ্রাতৃত্বের বন্ধন দৃঢ় করবে।

বৃহস্পতিবার ময়দানে গিয়ে দেখা গেছে, মুসল্লিদের স্রোত। ট্রেন, নৌকা, বাস, ট্রাক, স্কুটার, লেগুনাসহ বিভিন্ন যানবাহনে তারা জড়ো হচ্ছেন তুরাগ তীরে। টঙ্গী ও আশপাশের এলাকায় আত্মীয়-স্বজনের বাসায়ও অবস্থান নিচ্ছেন অনেকে।

ইজতেমায় মূল বয়ান হচ্ছে আরবি ও উর্দু ভাষায়। বাংলা ও ইংরেজিসহ বিভিন্ন ভাষায় সঙ্গে সঙ্গেই অনুবাদ করা হচ্ছে তা। এতে আল্লাহর বড়ত্ব, নবীজীর (সা.) সুন্নাত, মুসলমান ও শেষ নবীর উম্মত হিসেবে করণীয়, দাওয়াতের মেহনতের তরতিব এবং দৈনন্দিন জীবনে অত্যাবশকীয় আমলগুলো নিয়ে আলোচনা করছেন তাবলিগের শীর্ষ মুরব্বিরা।

এ পর্বে ২৭ খিত্তায় ১৭ জেলার মুসল্লিরা অবস্থান করছেন। ঢাকা জেলার মুসল্লিরা ১-৬ নম্বর খিত্তায়, শেরপুর ৭, নারায়ণগঞ্জ ৮ ও ১১, নীলফামারী ৯, সিরাজগঞ্জ ১০, নাটোর ১২, গাইবান্ধা ১৩, লক্ষ্মীপুর ১৪ ও ১৫, সিলেট ১৬ ও ১৭, চট্টগ্রাম ১৮ ও ১৯, নড়াইল ২০, মাদারীপুর ২১, ভোলা ২২ ও ২৩, মাগুরা ২৪, পটুয়াখালী ২৫, ঝালকাঠি ২৬ এবং পঞ্চগড় জেলার মুসল্লিরা রয়েছেন ২৭নং খিত্তায়।

আয়োজক মুরব্বিদের একজন গিয়াস উদ্দিন জানান, বুধবার থেকে দেশী-বিদেশী মুসল্লিরা ময়দানে আসতে শুরু করেন। বৃহস্পতিবারই কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যায় মাঠ। যারা পথে রয়েছেন, বিশেষ করে বিদেশী মেহমানদের একটি অংশ রাতের মধ্যেই চলে আসবেন।

আইনশৃংখলা পরিস্থিতি নিয়ে শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার স্টেডিয়ামে বৃহস্পতিবার ব্রিফিং করে পুলিশ। অতিরিক্ত আইজিপি (ট্রেনিং) মইনুল রহমান চৌধুরী, অতিরিক্ত ডিআইজি (ক্রাইম) শফিকুল ইসলাম, গাজীপুরের পুলিশ সুপার মো. হারুন অর রশিদ প্রমুখ এতে উপস্থিত ছিলেন। হারুন অর রশিদ জানান, ইজতেমার পাঁচ স্তরের নিরাপত্তায় নিয়োজিত রয়েছেন পুলিশ ও র‌্যাবের প্রায় ১২ হাজার সদস্য। র‌্যাব ও পুলিশ পৃথকভাবে সিসি ক্যামেরার মাধ্যমে ইজতেমা ময়দানের সার্বিক নিরাপত্তা মনিটরিং করছে। এছাড়া বাইনোকুলার, মেটাল ডিটেক্টর দিয়ে তল্লাশি করা হচ্ছে। ইজতেমা ময়দানের সব প্রবেশপথে ৬০টি ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা ও বিভিন্ন পয়েন্টে ১৩টি পর্যবেক্ষণ টাওয়ার রয়েছে।

সংশ্লিষ্টরা জানান, সুষ্ঠু যান চলাচলে ঢাকা মহানগর পুলিশ, ঢাকা ও গাজীপুর জেলা পুলিশ তৎপর রয়েছে। ইজতেমা মাঠের আশপাশ এলাকার হোটেল ও রেস্টুরেন্ট যাতে মানসম্মত হয় তা ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করছে। সার্বক্ষণিক বিদ্যুৎ সরবরাহের সব প্রস্তুতি নিয়েছে বিদ্যুৎ বিভাগ। প্রতিদিন তিন কোটি লিটার বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ করছে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতর।

বৃহস্পতিবার দুপুরে ইজতেমা ময়দান পরিদর্শনে আসেন ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান। পরে মুন্নু টেক্সটাইলের পাশে হামদর্দ ল্যাবরেটরিজের ক্যাম্পে তিনি ‘ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্পে’র উদ্বোধন করেন। এ সময় সব ওষুধ কোম্পানিকে স্বাস্থ্যসেবায় এগিয়ে আসার আহবান জানান মন্ত্রী।

হামদর্দ ল্যাবরেটরিজের বোর্ড অব ট্রাস্টির চেয়ারম্যান জাতীয় অধ্যাপক ডা. এমআর খানের সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন গাজীপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য মো. জাহিদ আহসান রাসেল, গাজীপুরের জেলা প্রশাসক এসএম আলম, পুলিশ সুপার মো. হারুন অর রশীদ, সিভিল সার্জন ডা. আলী হায়দার খান, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের ভারপ্রাপ্ত মেয়র আসাদুর রহমান কিরণ, গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আজমত উল্যাহ খান প্রমুখ।

গাজীপুর স্বাস্থ্য বিভাগ, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন, ইবনে সিনা, টঙ্গী ওষুধ ব্যবসায়ী সমিতি, আবেদা মেমোরিয়াল প্রাইভেট হাসপাতাল, সিকেডি অ্যান্ড ইউরোলজিস্ট হসপিটাল, যমুনা ব্যাংক ফাউন্ডেশন, ইসলামিক ফাউন্ডেশন, নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, স্বাস্থ্য অধিদফতর চিকিৎসা কেন্দ্রসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান মুসল্লিদের সেবা দিতে ময়দানের আশপাশে ৫৪টি ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প বসিয়েছে।

বিশ্ব ইজতেমায় আসা মুসল্লিদের সার্বক্ষণিক চিকিৎসাসেবা দিতে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সব চিকিৎসক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের ছুটি বাতিল করেছে। টঙ্গী সরকারি হাসপাতাল একশ’ শয্যায় উন্নীত করা হয়েছে।

প্রতি বছরের মতো এবারও শতাধিক দেশের বিদেশী মুসল্লি ইজতেমায় আসবেন বলে আশা করা হচ্ছে। পাকিস্তান, ভারত, কাতার, সংযুক্ত আরব আমিরাত, সৌদি আরব, ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া, আফ্রিকাসহ অর্ধশত দেশের মুসল্লি বৃহস্পতিবার রাতের মধ্যেই ময়দানে এসেছেন।

গাজীপুরের জেলা প্রশাসক এসএম আলম জানান, জেলা প্রশাসন বিশ্ব ইজতেমার সব দিক সার্বিকভাবে দেখভাল করবেন। পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ জানান, যে কোনো নাশকতা প্রতিরোধে পুলিশ তৎপর রয়েছে।

ময়দান পরিদর্শনকালে জাহিদ আহসান রাসেল এমপি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে ইজতেমা ময়দানে ১১০ কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ হয়েছে। এর মধ্যে ১২টি ডিপ টিউবওয়েল, ৩ তলাবিশিষ্ট ১৫টি, ২ তলাবিশিষ্ট ৪টি পাকা বাথরুম, ১৩ কিলোমিটার রাস্তা সলিং করা হয়েছে। বিদেশী মেহমানদের জন্য ১২৪টি পাকা গোসলখানা তৈরি করা হয়েছে।

বেনাপোল দিয়ে আসছেন হাজারও বিদেশী মুসল্লি : বেনাপোল প্রতিনিধি জানান, বিশ্ব ইজতেমায় যোগ দিতে বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে বিদেশী মেহমানরা আসছেন। বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত তিন হাজারেরও বেশি বিদেশী মুসল্লি এসেছেন বলে জানিয়েছেন বেনাপোল জামিয়া আরাবিয়া বাগ-এ-জান্নাত মাদ্রাসার কর্মকর্তা হাজী নজরুল ইসলাম। শনিবার পর্যন্ত আরও বিদেশী মেহমান আসবেন বলে জানিয়েছেন বেনাপোল ইমিগ্রেশনের ওসি (তদন্ত) মমিনুল হক।

বিদেশী মেহমানদের অভ্যর্থনা, থাকা-খাওয়া ও ঢাকায় পাঠানোসহ সব কাজ দ্রুত করার জন্য ঢাকার কাকরাইল মসজিদের ১০০ জনের প্রতিনিধি দল ভোর থেকে রাত পর্যন্ত কাজ করে যাচ্ছেন। এদের সহযোগিতা করছেন জামিয়া আরাবিয়া বাগ-এ-জান্নাত কওমি মাদ্রাসার শিক্ষক-কর্মকর্তা ও শিক্ষার্থীরা। এদিকে পরিবহন স্বল্পতার কারণে বিদেশ থেকে আসা মুসল্লিরা নানা দুর্ভোগের মধ্যে পড়ছেন। বিশেষ করে কুয়াশার কারণে এখানে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে পরিবহনগুলো না আসায় সমস্যা প্রকট আকার ধারণ করেছে।

বিদেশী মেহমানদের অনেকেই ভ্রমণকর বাবদ ৫০০ টাকা নেয়া নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। ইজতেমায় যোগ দিতে আসা ভারতীয় নাগরিক মো. মিজানুর রহমান জানান, আমরা শত শত বিদেশী লোক শুধু ধর্মীয় কাজে যোগ দিতে এদেশে এসেছি। সরকারের উচিত শুধু ইজতেমায় আসা বিদেশী মেহমানদের ভ্রমণকর মওফুক করে দেয়া।

বেনাপোল চেকপোস্ট পুলিশ ইমিগ্রেশনের ওসি তরিকুল ইসলাম জানান, বিশ্ব ইজতেমায় যোগ দিতে আসা বিদেশী মেহমানদের দ্রুততার সঙ্গে পাসপোর্টের কাজ সম্পন্ন করা হচ্ছে। এজন্য অতিরিক্ত লোক নিয়োগ দেয়া হয়েছে। বিদেশী মেহমানদের সেবা করতে পেরে আমরাও খুশি।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24