রবিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৯, ১১:৪০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
‘ব্রিটিশ বাংলাদেশী হুজহু’র প্রকাশনা ও এওয়ার্ড প্রদান অনুষ্ঠানের বারোতম আসর বর্ণাঢ্য আয়োজনে সম্পন্ন পেঁয়াজ খাওয়া বন্ধ করে দিয়েছি:প্রধানমন্ত্রী জগন্নাথপুর পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ড আ.লীগের কমিটি গঠন জগন্নাথপুরে অগ্নিকাণ্ডে নি:স্ব ৮ পরিবার আশ্রয় নিলেন স্কুলে.মানবেতর জীবন যাপন মিশর থেকে কার্গো বিমানে পেঁয়াজ আসছে মঙ্গলবার যুক্তরাজ্যে বিএনপির পূর্ণাঙ্গ কমিটি জগন্নাথপুরে সমাপনী পরীক্ষার্থীদের সংবর্ধনা জগন্নাথপুরের সামাটে সমাপনী পরীক্ষার্থীদের সংবর্ধনা জগন্নাথপুর পৌরসভার মেয়র মনাফকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকায় প্রেরণ জগন্নাথপুরের চিতুলিয়া গ্রামে আগুন,দুইটি ঘরসহ পুড়ল ১২ লাখ টাকার মালামাল

ভারতকে হারিয়ে বাংলাদেশী মেয়েরা ইতিহাস গড়ে চ্যাম্পিয়ন

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, ১০ জুন, ২০১৮
  • ৯৫ Time View

জগন্নাথপুর২৪ ডেস্ক:: সাকিব-মাশরাফিদেরকে পেছনে ফেলে নতুন ইতিহাস সৃষ্টি করলেন বাংলাদেশের মেয়েরা। ফাইনালে টানা ছয়বারের চ্যাম্পিয়ন পরাক্রমশালী ভারতকে তিন উইকেটে হারিয়ে এশিয়া কাপ জয়ের বিরাট কৃতিত্ব দেখিয়েছে বাংলাদেশের মেয়েরা। এশিয়া কাপে এবারই প্রথম ফাইনালে উঠে সালমারা। মেয়েদের হাত ধরেই ক্রিকেটে প্রথমবারের বহুজাতিক কোনও টুর্নামেন্টে এই প্রথম শিরোপা আসলো বাংলাদেশের ঘরে।

কুয়ালালামপুরে এশিয়া কাপের ফাইনালে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশি মেয়েদের আঁটসাঁট বোলিংয়ে নয় উইকেটে মাত্র ১১২ রান সংগ্রহ করে ভারত। জবাবে উত্তেজনা বজায় রেখে শেষ বলে (তিন উইকেট হাতে রেখে) অবিস্মরণীয় জয় তুলে নেয় বাংলাদেশ। শেষ ওভারে জয়ের জন্য বাংলাদেশের দরকার ছিল নয় রান। উইকেটে ছিলেন রুমানা আহমেদ ও সানজিদা ইসলাম। প্রথম বলে সিঙ্গেল নিয়ে সানজিদা ইসলাম স্ট্রাইক দেন রুমানা আহমেদকে।

দ্বিতীয় বলে রুমানা আহমেদ বাউন্ডারি মারেন। তৃতীয় বলে সিঙ্গেল নেন তিনি। চতুর্থ বলে কৃষ্ণামূর্তির হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন সানজিদা। পঞ্চম বলে রুমানা আহমেদ এক রান নিয়ে দ্বিতীয় রান নেয়ার সময় রান আউট হয়ে যান। শেষ বলে দরকার ছিল দুই রান। তখন স্ট্রাইকে জাহানারা আলম। অপর প্রান্তে অধিনায়ক সালমা খাতুন। শেষ বলে মাথা ঠান্ডা রেখে তারা দুজন দুইবারের জন্য প্রান্ত বদল করে দলের জয় নিশ্চিত করে মাঠ ছাড়েন।

এর আগে টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে নয় উইকেট হারিয়ে ১১২ রান করে ভারত নারী দল। ব্যাটিংয়ের শুরুতে বাংলাদেশের বোলারদের সামনে ব্যাট হাতে দাঁড়াতেই পারেনি ভারতের মেয়েরা। দলীয় ৩২ রানেই চার উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় ভারত। দলীয় ৬২ রানে পঞ্চম উইকেটের পতন ঘটলে কোণঠাসা হয়ে পড়ে গত ছয়বারের চ্যাম্পিয়নরা। দলের হয়ে একাই লড়েন ভারতের অধিনায়ক হারমানপ্রিত কাউল। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৫৬ রান করেন হারমানপ্রিত কাউল। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১১ রান করেন ভিদা। বাংলাদেশের পক্ষে ৪ ওভার বল করে ২২ রানের খরচায় ২টি উইকেট নেন রুমানা আহমেদ। ২৩ রান দিয়ে ২ উইকেট সংগ্রহ করেন খাদিজা। একটি করে উইকেট নেন সালমা এবং জাহানারা আলম।

১১৩ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা দারুণ করেন বাংলাদেশের দুই ওপেনার শামীমা সুলতানা এবং আয়েশা রহমান। দুইজন মিলে গড়েন ৩৩ রানের জুটি। এরপর পুনম যাদেবের বলে পরপর দুই উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় সালমারা। ১৭ রানে ওপেনার আয়েশা রহমানের বিদায়ের পর ১৬ রান করে সাজঘরে ফিরেন শামীমা সুলতানা।

এরপর হাল ধরেন নিগার সুলতানা এবং রুমানা আহমেদ। ২৩ বলে ৪ বাউন্ডারিতে ২৭ রান করেন নিগার সুলতানা। পুনমের বলে নিগার ফিরলে রুমানার সঙ্গী হন সানজিদা। এরপর ফাহিমা ৯ ও সানজিদা ৫ রান করে ফিরলে শেষ ওভারের নাটকীয়তায় গড়ায় ম্যাচ। ছয় বলে দরকার পড়ে ৯ রানের। হাতে পাঁচ উইকেট। এই অবস্থায় থেকে দলকে জয়ে পৌঁছে দেন জাহানারা আলম।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:
ভারত: ২০ ওভারে ১১২/৯ (মিতালি ১১, স্মৃতি ৭, দিপ্তি ৪, হারমানপ্রিত ৫৬, অনুজা ৩, ভেদা ১১, তানিয়া ১, শিখা ১, ঝুলন ১০, একতা ১*; নাহিদা ০/১২, সালমা ১/২৪, খাদিজা ২/২৩, জাহানারা ১/২৩, রুমানা ২/২২, ফাহিমা ০/৮)
বাংলাদেশ: ২০ ওভারে ১১৩/৭ (শামিমা ১৬, আয়েশা ১৭, ফারজানা ১১, নিগার ২৭, রুমানা ২৩, ফাহিমা ৯, সানজিদা ৫ জাহানারা ২*, সালমা ০*; একতা ০/১৩, শিখা ০/১০, দিপ্তি ০/১৯, অনুজা ০/২৩, পুনম ৪/৯, ঝুলন ০/২০, হারমানপ্রিত ২/১৯)।
ফল: বাংলাদেশ ৩ উইকেটে জয়ী
প্লেয়ার অব দা ম্যাচ: রুমানা আহমেদ
প্লেয়ার অব দা সিরিজ: হারমানপ্রিত কাউর

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24