মঙ্গলবার, ২১ জানুয়ারী ২০২০, ১২:৫৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
সাংবাদিক সানোয়ার হাসানের পিতা সাবেক মেম্বার ছুরত মিয়ার ইন্তেকাল জানাযা বিকেলে ৪টা৪০ মিনিটে জগন্নাথপুরের মিরপুর ইউনিয়ন আ.লীগের সম্মেলন সম্পন্ন জগন্নাথপুরের সৈয়দপুর-শাহারপাড়া ইউনিয়নে ওয়ার্ড আ.লীগের কমিটি গঠন যুক্তরাষ্ট্রে দুই পুলিশ সদস্যকে গুলি করে হত্যা থানা হেফাজতে আত্মহত্যার দায় পুলিশ এড়াতে পারে না: ডিএমপি কমিশনার ’সরকারি চাকরিতে ৩ লাখ ১৩ হাজার পদ শূন্য’ জগন্নাথপুরের মিরপুর ইউনিয়ন আ.লীগের সম্মেলন আজ জগন্নাথপুরের লহরী গ্রামে শীতবস্ত্র বিতরণ আদালতের আদেশে জগন্নাথপুরের বিএন উচ্চ বিদ্যালয়ের শতবর্ষ উৎসব আবারো স্থগিত মিরপুরে বর্নিল সাজে দুইদিন ব্যাপি প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান সম্পন্ন

ভাবীকে বিয়ে করতে ভাইকে হত্যা

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, ১৩ অক্টোবর, ২০১৭
  • ৪৫ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম ডেস্ক ::
কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে প্রবাসী রাকিবুল ইসলাম হত্যার রহস্য উন্মোচন হয়েছে। স্ত্রী নাইমা সুলতানা তিশা ও ছোট ভাই রকিবুল ইসলাম মিলে তাকে হত্যা করেছে।

স্ত্রী ও ছোট ভাইয়ের পরিকল্পনায় ভাড়াটে কিলাররা রাকিবুলকে হত্যা করে লাশ নদীতে ফেলে দেয়। ঘটনার দিন ছোট ভাই রকিবুল ইসলাম নিজে মোটরসাইকেলে করে বড় ভাই রাকিবকে কিলারদের হাতে তুলে দিয়ে আসেন।

বৃহস্পতিবার সকালে গ্রেফতারকৃত ছোট ভাই রকিবুল আদালতে এসব স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। আটক স্ত্রী নাইমা সুলতানা তিশাকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

কুষ্টিয়া পুলিশ সুপার (এসপি) এসএম মেহেদী হাসান জানান, কুমারখালীর পাহাড়পুর স্কুলপাড়ার মণ্টু বিশ্বাসের ছেলে নিহত রাকিবুল ২০০৮ সালে মালয়েশিয়া যান। রাকিবুল বিদেশে থাকা অবস্থায় এক সন্তানের জননী তার স্ত্রী নাইমা সুলতানা তিশার সঙ্গে ছোট ভাই রকিবুলের পরকীয়া সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

তিনি জানান, সম্প্রতি বাড়িতে এসে রাকিবুল বিষয়টি টের পেলে স্ত্রী ও ছোট ভাই মিলে রাকিবুলকে হত্যার পরিকল্পনা করে। পরিকল্পনা অনুযায়ী রাকিবকে হত্যার জন্য তার ছোট ভাই রকিবুল দুই লাখ টাকায় সন্ত্রাসী ভাড়া করে। ৫০ হাজার টাকা অগ্রিম দেয় সে।

এসপি জানান, ৫ অক্টোবর রাতে পাশের গ্রাম কাঞ্চনপুরে শ্বশুরবাড়ি থেকে মোটরসাইকেলে করে নিজের বাড়িতে আনার নাম করে ছোট ভাই রাকিবকে নদীর ধারে বাধবাজার এলাকায় সন্ত্রাসীদের হাতে তুলে দিয়ে আসে। ওই রাতেই সন্ত্রাসীরা রাকিবকে হত্যা করে নদীতে ফেলে দেয়।

তিনি আরও জানান, তিন দিন পর ৮ অক্টোবর নদীর পাশ থেকে রাকিবের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পরদিন রাকিবের বাবা আটজনের নাম উল্লেখ করে কুমারখালী থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

পুলিশ তিন আসামি গ্রেফতার করে আদালতে পাঠায়। এর পরই তদন্তে বেরিয়ে আসে স্ত্রী তিশা ও ছোট ভাই রকিবুলের অবৈধ সম্পর্ক এবং হত্যার পরিকল্পনা।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24