শুক্রবার, ২২ নভেম্বর ২০১৯, ০৭:০৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুর পৌরসভার ৭ নং ওয়ার্ড আ.লীগের কমিটি গঠন তাহিরপুরকে হারিয়ে বিজয়ী জগন্নাথপুর,ম‌্যাচ সেরা অলি বাস-মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ৭ জগন্নাথপুরের রসুলপুর আর্দশ ক্রিকেট ক্লাবের জার্সি উম্মোচন শাহারপাড়ায় মেডিকেল সেন্টার উদ্ধোধন ও মেডিকেল ক্যাম্প অনুষ্ঠিত এম এ মান্নান প্রাথমিক মেধাবৃত্তি পরীক্ষা ২৯ নভেম্বর ‘মার্টিন স্বপ্নে ইসলামের কোনো এক নবীর কথা বারবার উচ্চারণ করছিল’ জগন্নাথপুরের নয়াবন্দর-শংকপুর সড়ক উদ্বোধন করলেন পরিকল্পনামন্ত্রী জগন্নাথপুরে পরিকল্পনামন্ত্রী-ক্ষমতায় আসতে না পেরে একটি মহল গুজব ছড়াচ্ছে মিরপুর ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান শেরীন শপথ নেবেন ২৫ নভেম্বর

দোষ স্বীকার করায় রিজভীর দিকে তেড়ে গেলেন নেতারা

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, ২৪ জুন, ২০১৮
  • ১৮৩ Time View

নিউজ ডেস্ক: বিএনপি যে পরনির্ভরশীল দল তা নিজ মুখেই স্বীকার করে নিলেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রিজভী আহমেদ। ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য বন্ধুরাষ্ট্রের কাছে নালিশ করার বিষয়ে আভাস দিয়েছেন রিজভী আহমেদ। নিরুপায় হয়ে জনগণের কাছে নিজেদের ভাগ্য তুলে দেওয়ার পরিস্থিতি তৈরি করায় এবং রিজভী আহমেদের বেফাঁস কথা-বার্তার প্রেক্ষাপটে রিজভীকে মারার জন্য তেড়ে আসেন বিএনপি বেশ কয়েকজন নেতা। জনগণকে ব্যবহার করে আস্তাকুঁড়ায় ছুঁড়ে ফেলে দেওয়ার জন্য খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানকেও গালিগালাজ করেন নেতারা। প্রেস ব্রিফিংয়ের পর কার্যালয়ে হইচই বেধে যায়। পরে অন্যান্য নেতাদের সহযোগে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

২৩ জুন নয়াপল্টনে দলটির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি এই কথা বললে উপস্থিত নেতারা রিজভীকে ঘেরাও করে বক্তব্য ফিরিয়ে নেওয়ার জন্য চাপ দেন। নেতারা রিজভীকে দালাল ও বেঈমান বলেও গালিগালাজ করেন। দলটির কেন্দ্রীয় কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া, নির্বাচন, জনগণের উপর আস্থা-ভরসার বিষয়ে প্রেস ব্রিফিং করেন রিজভী। রিজভী বলেন, জনগণই বিএনপির শেষ ভরসা। জনগণকে সাথে নিয়ে আন্দোলন-কর্মসূচির আয়োজন করতে হবে। রিজভী আহমেদের বক্তব্যর পরপরই নিজেদের মধ্যে কোন্দলে জড়িয়ে পড়েন কয়েকজন সিনিয়র নেতা। মোয়াজ্জেম হোসেন আলালসহ একাধিক নেতা রিজভীকে গালিগালাজ করেন। বিএনপিকে করুণা ও অবহেলার পাত্র বানানোর জন্য রিজভীকে একহাত নেন নেতারা। ঘরে বসে বসে টিভি দেখে দিনশেষে প্রেস ব্রিফিং করার জন্য রিজভীকে অপমান করেন নেতারা। ঘরে না বসে সাহস থাকলে রাস্তায় নেমে আন্দোলন করে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার সাহস দেখানোর জন্যও চ্যালেঞ্জ করেন নেতারা। মাইক নেতা হিসেবেও রিজভীকে ব্যঙ্গ করেন তারা।

এছাড়াও জনগণ থেকে বিএনপির বিচ্ছিন্নতার জন্য উপস্থিত নেতারা খালেদা জিয়া, তারেক রহমানকেও গালি দেন। জনগণকে পুড়িয়ে আবার তাদের কাছে পাওয়ার উচ্চাভিলাসের জন্য নিজেদের দায়ী করেন তারা। এসময় রিজভী বলেন, আমাকে দৈনিক প্রেস ব্রিফিং করার জন্য দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। তোমরা কে আমাকে গালি দেওয়ার? সাহস থাকলে লন্ডনে গিয়ে নালিশ করো। এরপরই রিজভীকে মারার জন্য তেড়ে আসেন নেতারা।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24