মৃত ঘোষণার পর নড়ে উঠল তরুণী

জগন্নাথপুর২৪ ডেস্ক::

হবিগঞ্জ আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালে সোমবার দুজন ইন্টার্ন চিকিৎসকের কর্মে ক্ষোভ অসন্তোষ ছড়িয়ে পড়েছে। জরুরি বিভাগে নেওয়া অচেতন কলেজছাত্রী রিনা আক্তারকে মৃত বলে ঘোষণা দেন এ দুজন চিকিৎসক। এ নিয়ে স্বজনদের মধ্যে শুরু হয় শোকের মাতম। অবশেষে দেখা যায় রিনার শ্বাস-প্রশ্বাস চলছে। অসুস্থ ছাত্রীকে চিকিৎসার জন্য পরে সিলেটে স্থানান্তর করা হয়েছে। সূত্র জানায়, বানিয়াচং উপজেলার জিটকা গ্রামের রিনা আক্তার একটি কলেজে দ্বাদশ শ্রেণিতে অধ্যয়নরত। সোমবার সকালে মাথাব্যথার একপর্যায়ে অচেতন হয়ে পড়লে হবিগঞ্জ আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে যায় স্বজনরা। জরুরি বিভাগে উপস্থিত দুজন ইন্টার্ন চিকিৎসক রোগীর পালস পরীক্ষা করে রিনাকে মৃত ঘোষণা করেন। ডাক্তারদের কথা শুনে কান্নায় ভেঙে পড়ে স্বজনরা। খবর শুনে রিনার ভাই সাজু মিয়া বাড়ি থেকে হাসপাতালে ছুটে যান। তিনি হাত দিয়ে বোনের শ্বাস-প্রশ্বাস অনুভব করতে পারেন। তখন চিৎকার শুরু করলে ছুটে আসেন জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. মিঠুন রায়। তিনি রোগীকে পরীক্ষা করে স্যালাইনসহ ওষুধ দেন। হাসপাতালে ভর্তির পর রিনা আক্তারকে গতকাল বিকেলে সিলেটে স্থানান্তর করা হয়েছে। বাবা ফজর উদ্দিন বলেন, ‘ডাক্তারকে না জানিয়ে ট্রেনিং করতে আসা দুজন শিক্ষার্থীরা আমার মেয়েকে মৃত বলেছিল। এ ধরনের ঘোষণা ঠিক হয়নি। তাঁদের কাছে দায়িত্বশীল আচরণ প্রত্যাশা করি।’

ডা. মিঠুন রায় বলেন, ‘যেসব শিক্ষার্থী ইন্টার্ন করতে আসেন তাঁরা অনেক সময় ডাক্তারকে খবর দেওয়ার আগে নিজেরা রোগীর পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেন। কলেজছাত্রীর চিকিৎসার ক্ষেত্রে এক ধরনের ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে।’

 

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» জগন্নাথপুরের বিভিন্ন পূজা মণ্ডপ পরিদর্শনকালে এমএ মান্নান-শেখ হাসিনার সরকার সকল ধর্মের মানুষের ধর্মীয় উৎসব পালনের নিশ্চয়তা দিয়েছে

» জগন্নাথপুরে বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশি কর্নেল সৈয়দ আলী আহমদের গনসংযোগ

» জগন্নাথপুরে প্রতিবন্ধির দোকানঘর পোড়ানোর মামলায় গ্রেফতার -১

» জগন্নাথপুরের ইটাখোলাসহ ১২ খাল খনন কাজ শুরু হচ্ছে

» ইসিতে ইইউ’র প্রতিনিধি দল

» কেরলের শবরীমালা মন্দিরে প্রবেশ করতে দেয়া হলো না নারীদের

» সঙ্গীতশিল্পী আইয়ুব বাচ্চু আর নেই

» নতুনত্বের ছোঁয়ায় সজ্জিত জগন্নাথপুর কেন্দ্রীয় পূজা মন্ডপ, উপচেপড়া ভীড় পূর্ণার্থীদের

» বাসুদেববাড়ীতে আনন্দময়ীর ব্যতিক্রমী পূজা মন্ডপে মুগ্ধ দর্শনার্থীরা

» জগন্নাথপুরের শিক্ষা সংগ্রামী রুমি পড়বে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে

সম্পাদক ॥ অমিত দেব, মোবাইল ॥ ০১৭১৬-৪৬৫৫৩৫,
ই-মেইল ॥ amit.prothomalo@gmail.com
বার্তা সম্পাদক ॥ আলী আহমদ, মোবাইল ॥ ০১৭১৮-২২২৯৭৫,
ই-মেইল ॥ ali.jagannathpur@gmail.com,
ওয়েবসাইট ॥ www.jagannathpur24.com, ই-মেইল ॥ jpur24@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
,

মৃত ঘোষণার পর নড়ে উঠল তরুণী

জগন্নাথপুর২৪ ডেস্ক::

হবিগঞ্জ আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালে সোমবার দুজন ইন্টার্ন চিকিৎসকের কর্মে ক্ষোভ অসন্তোষ ছড়িয়ে পড়েছে। জরুরি বিভাগে নেওয়া অচেতন কলেজছাত্রী রিনা আক্তারকে মৃত বলে ঘোষণা দেন এ দুজন চিকিৎসক। এ নিয়ে স্বজনদের মধ্যে শুরু হয় শোকের মাতম। অবশেষে দেখা যায় রিনার শ্বাস-প্রশ্বাস চলছে। অসুস্থ ছাত্রীকে চিকিৎসার জন্য পরে সিলেটে স্থানান্তর করা হয়েছে। সূত্র জানায়, বানিয়াচং উপজেলার জিটকা গ্রামের রিনা আক্তার একটি কলেজে দ্বাদশ শ্রেণিতে অধ্যয়নরত। সোমবার সকালে মাথাব্যথার একপর্যায়ে অচেতন হয়ে পড়লে হবিগঞ্জ আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে যায় স্বজনরা। জরুরি বিভাগে উপস্থিত দুজন ইন্টার্ন চিকিৎসক রোগীর পালস পরীক্ষা করে রিনাকে মৃত ঘোষণা করেন। ডাক্তারদের কথা শুনে কান্নায় ভেঙে পড়ে স্বজনরা। খবর শুনে রিনার ভাই সাজু মিয়া বাড়ি থেকে হাসপাতালে ছুটে যান। তিনি হাত দিয়ে বোনের শ্বাস-প্রশ্বাস অনুভব করতে পারেন। তখন চিৎকার শুরু করলে ছুটে আসেন জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. মিঠুন রায়। তিনি রোগীকে পরীক্ষা করে স্যালাইনসহ ওষুধ দেন। হাসপাতালে ভর্তির পর রিনা আক্তারকে গতকাল বিকেলে সিলেটে স্থানান্তর করা হয়েছে। বাবা ফজর উদ্দিন বলেন, ‘ডাক্তারকে না জানিয়ে ট্রেনিং করতে আসা দুজন শিক্ষার্থীরা আমার মেয়েকে মৃত বলেছিল। এ ধরনের ঘোষণা ঠিক হয়নি। তাঁদের কাছে দায়িত্বশীল আচরণ প্রত্যাশা করি।’

ডা. মিঠুন রায় বলেন, ‘যেসব শিক্ষার্থী ইন্টার্ন করতে আসেন তাঁরা অনেক সময় ডাক্তারকে খবর দেওয়ার আগে নিজেরা রোগীর পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেন। কলেজছাত্রীর চিকিৎসার ক্ষেত্রে এক ধরনের ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে।’

 

© 2018 জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃক সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত

সম্পাদক ॥ অমিত দেব, মোবাইল ॥ ০১৭১৬-৪৬৫৫৩৫,
ই-মেইল ॥ amit.prothomalo@gmail.com
বার্তা সম্পাদক ॥ আলী আহমদ, মোবাইল ॥ ০১৭১৮-২২২৯৭৫,
ই-মেইল ॥ ali.jagannathpur@gmail.com,
ওয়েবসাইট ॥ www.jagannathpur24.com, ই-মেইল ॥ jpur24@gmail.com

error: ভাই, কপি করা বন্ধ আছে।