সোমবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০১৯, ১০:৫৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় নিহতের স্মরণে শোকসভা অনুষ্ঠিত জগন্নাথপুরে নারী নির্যাতন প্রতিরোধ ও বেগম রোকেয়া দিবস পালন, ৫ জয়িতাকে সম্মাননা প্রদান জগন্নাথপুরে মুক্ত দিবস পালিত জগন্নাথপুরে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় নিহত দুই যুবকের জানাজায় শোকাহত মানুষের ঢল জগন্নাথপুরে আইনশৃংঙ্খলা সভায়-আনন্দ সরকারের হত্যাকারিদের গ্রেফতারের দাবি জগন্নাথপুরে নারী নির্যাতন প্রতিরোধ ও বেগম রোকেয়া দিবস পালন, ৫ জয়িতাকে সম্মাননা প্রদান জগন্নাথপুরে দুর্নীতি বিরোধী দিবসে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত ১৭ ডিসেম্বর থেকে হাওরের বাঁধ নির্মাণ কাজ শুরু লজ্জা শুধু নারীরই নয়, পুরুষেরও ভূষণ জগন্নাথপুর মুক্ত দিবস আজ

তীব্র যানজটে নাকাল সিলেট

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, ২৫ জুন, ২০১৭
  • ৫৬ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম ডেস্ক :: অনেকটা স্বস্তির মধ্যেই এবার ঈদ এসে গেল সিলেটবাসীর ঘরে। আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভালো। রাস্তায় নেই ছিনতাইকারীদের দৌরাত্ম্য। ডাকাতিও কমে এসেছে। সড়কপথেও বড় কোনো দুর্ঘটনা নেই। লোডশেডিংয়ের উৎপাত নেই। এত সব ভালো’র মধ্যে সিলেটের এবারের তীব্র যানজট কিছুটা হলেও অস্বস্তির মধ্যে ফেলে দিয়েছে নগরবাসীকে। সেই সকাল থেকে যানজট থাকার কারণে ঈদে কেনাকাটা করতে আসা মানুষকে পোহাতে হয় পদে পদে দুর্ভোগ। শুক্রবার রাত থেকে আর সিলেটের ঈদবাজারে শুধু নগরেই মানুষ নয়- ছুটে আসছেন গ্রামের মানুষ। শেষ মুহূর্তের কাপড় কিনতে সবাই ভিড় করছেন নগরীতে। কিন্তু দুর্ভাগ্য অনেকেই নির্ধারিত সময়ের মধ্যে গন্তব্যে ফিরতে না পেরে রাস্তায়ই সারতে হয়েছে ইফতার। আর এবারের এই যানজট পুরোপুরি ভাবিয়ে তুলেছে সিলেটবাসীকে। এর কারণ গত ৭-৮ বছরের মধ্যে সিলেটে এমন যানজট পরিলক্ষিত হয়নি। সিলেটের রাস্তাঘাট এখন আর আগের মতো গলিপথ নেই। শহরের ভেতরের বড় রাস্তার সবক’টি হচ্ছে ফোর লেনের। বাকি সব রাস্তা প্রায় দুই লেনের। এ রাস্তায় সন্তুষ্ট ছিলেন সিলেটবাসী। কিন্তু এখন এই রাস্তায়ই এখন সংকুলান হচ্ছে না। তীব্র যানজটে নাকাল সিলেট। কেন এই সমস্যা দেখা দিল- এমন প্রশ্ন করা হলে সিলেটের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীও কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি। শুধু বললেন, ‘আমি কারাগারে থাকা অবস্থায় সিলেটের যানজট নিরসনে কিছু সিদ্ধান্ত হয়েছে। সেই সিদ্ধান্ত মতোই চলছে। দেখি ঈদের পরে এ বিষয়টি নিয়ে আলোচনায় বসবো।’ তিনি বলেন, ‘বৃষ্টির জন্য কোথাও কোথাও জলাবদ্ধতার কারণে যানজট হয়। সেটি বেশিক্ষণ স্থায়ী থাকেনি। রাস্তা মেরামত ঈদের আগে শেষ করা হয়েছে। তবে বিভিন্ন পয়েন্টে মাঝখানে বসানো ডিভাইডার কোনো কাজে আসছে কিনা সেটি নিয়ে ভাবতে হবে। পাশাপাশি বিভিন্ন রাস্তা ওয়ানওয়ে করে দেয়া হয়েছে। সেই বিষয়টিও খতিয়ে দেখতে হবে।’ সিলেট সিটি করপোরেশন সূত্র জানিয়েছে, সিলেটের যানজটের অন্যতম কারণ ছিল ফুটপাত ও রাস্তা দখল করে ব্যবসা করা। সেটি সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে রমজানের প্রথমার্ধ্বেই করা হয়েছে। কিন্তু ২০শে রমজানের পর থেকে তারা ফের বসতে শুরু করেছেন। বর্তমানে ঈদবাজারে সব একাকার হয়ে গেছে। হকার নেতারা জানিয়েছেন- তারা ফুটপাতে বসে ব্যবসা করছেন। রাস্তায় বসে
করছেন না। রাস্তায় অটোরিকশা স্ট্যান্ডসহ কয়েকটি স্ট্যান্ড করা হয়েছে। রাস্তায় স্ট্যান্ড থাকলেই যানজট কমবে না বলে জানান তারা। সিলেট নগরীর রাস্তায় প্রায় সব যানবাহনের অবৈধ স্ট্যান্ড গড়ে তোলা হয়েছে। নগরীর কোর্ট পয়েন্ট এলাকা আগে ছিল রাজনীতিবিদদের দখলে। কিন্তু যানজটের কথা বিবেচনা করে আর কোর্ট পয়েন্টে সভা-সমাবেশ হয় না। তার বদলে কোর্ট পয়েন্ট দখলে নিয়েছে অবৈধ স্ট্যান্ড। প্রথমে সেখানে সিএনজি অটোরিকশার স্ট্যান্ড, পরে ধীরে ধীরে লেগুনা স্ট্যান্ডও গড়ে তোলা হয়েছে। এই অবৈধ স্ট্যান্ডের কারণে শত চেষ্টা করেও ট্রাফিক পুলিশ ওই এলাকার যানজট নিয়ন্ত্রণ করতে পারছে না। একই সঙ্গে নগরীর মধুবন মার্কেট, করিমউল্লাহ মার্কেট, কারাগারের সামন, ধোপাদিঘীরপাড়, সুবহানীঘাট, চৌহাট্রা, দরগাহ গেট, রিকাবীবাজার, শেখঘাট, আম্বরখানা, মেডিকেল রোড, শাহী ঈদগাহ, শিবগঞ্জ, উপশহর এলাকায় স্ট্যান্ড গড়ে তোলা হয়েছে। এসব স্ট্যান্ডের কোনো অনুমতি নেই সিলেট সিটি করপোরেশনের। বলতে গেলে কেবল গায়ের জোরেই পরিবহন শ্রমিকরা এসব স্ট্যান্ড গড়ে তুলেছেন। অ্যাকশনে গেলেই তারা ডাকে ধর্মঘট। ফলে প্রশাসন তাদের কাছে অসহায় হয়ে পড়েছে। এ অবস্থায় এবারের ঈদের আগের তীব্র যানজটে নাকাল গোটা সিলেট। শুক্রবার সন্ধ্যা রাত থেকে গোটা নগরী যেন যানজটে অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে। ক্বীন ব্রিজ থেকে আম্বরখানা, তালতলা, লামাবাজার থেকে টিলাগড় পয়েন্ট পর্যন্ত গোটা এলাকায় তীব্র যানজট দেখা দেয়। সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপপুলিশ কমিশনার জেদান আল মুছা জানিয়েছেন- এবার সবকিছুই ঠিক ছিল। গত কয়েক বছরের মধ্যে এবার সিলেটের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক ছিল। ছিনতাই ডাকাতির ঘটনা ঘটেনি। কিন্তু যানজট পরিস্থিতি নিয়ে কিছুটা অস্বস্তি ছিল। এ কারণে সব এলাকায় ট্রাফিক পুলিশের পাশাপাশি থানা পুলিশকেও ট্রাফিকের অতিরিক্ত দায়িত্বে নিয়োজিত করা হয়েছে। তিনি বলেন, আশা করি আজ থেকে সিলেটের যানজট অনেকটা নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24